আদমদীঘির বাতাসে ভাসছে আমের মুকুলের ম-ম- গন্ধ

প্রকাশিত:রবিবার, ১৬ ফেব্রু ২০২০ ০৫:০২

আদমদীঘির বাতাসে ভাসছে আমের মুকুলের ম-ম- গন্ধ

আদমদীঘি (বগুড়া) ঃ
বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার প্রায় সর্বত্র ও প্রতিটি বাড়ির আঙ্গিনায় সুমিষ্টি আম গাছের ডগায় ডগায় আম মুকুলের সমারোহ ঘটেছে। সেই মুকুলের ম-ম গন্ধে সব বয়সী মানুষের মনে দিচ্ছে নতুন স্বপ্নের দোলা। আমগাছে আগাম মুকুল আসতে শুরু করায় জানান দিচ্ছে মধুমাস সমাগত।
আম বলতে একসময় চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও রাজশাহীকেই বোঝাত। এখন অবস্থা ভিন্ন। কৃষকরা ভালো দাম পাওয়ায় প্রতি বছর বাড়াচ্ছেন আম বাগান। বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলায় ছয়টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এলাকার গ্রাম গঞ্জে দেখা গেছে ব্যাপক এই আমের বাগান বা আম গাছ। এছাড়া নওগাঁ, জয়পুরহাট, আক্কেলপুর, রাজশাহী, রংপুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বাণিজ্যিক ভিত্তিতে প্রায় সব জাতের আমের উৎপাদন হলেও আদমদীঘি উপজেলায় চলছে বানিজ্যিক ভাবে আমচাষ। আম চাষিরা মৌসুমে ভাল লাভজনক হওয়ায় প্রতিবছর কৃষিজমিতে বাড়চ্ছে আমের আবাদ। বৈরী আবহাওয়া কারনে কিছু কিছু আম গাছের মুকুল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। প্রকৃতির সঙ্গে লড়াই করেই আম গাছকে টিকতে হয় ফলের জন্য। সান্তাহারের আম বাগানের মালিক মজিবর রহমান জানায়, আম গাছে প্রচুর মুকুল বের হয়েছে। তবে বড় ধরণের কোনো প্রাকৃতিক দূর্যোগ ঝড় বা শিলা বৃষ্টি না হলে এবারও আমের বাম্পার ফলন হবে বলে আশা করছি।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মিঠু চন্দ্র অধিকারী জানায়, আবহাওয়াগত কারণেই নির্ধারিত সময়ের প্রায় এক মাস আগেই বিভিন্ন জাতের আমের মুকুল আসতে শুরু করছে। চলতি মাসের শেষের দিকে প্রতিটি গাছেই পুরোপুরিভাবে মুকুল ফুটতে শুরু করবে। যেসব আম গাছে আগাম মুকুল আসতে শুরু করেছে সে বাগান মালিকরা পরিচর্যাও শুরু করেছেন। আম গাছে মুকুল আসার সাথে সাথে প্রয়োজনীয় ঔষধ ও পানি ¯েপ্র করা গেলে আমের মুকুল সংরক্ষণ এবং পোকার হাত থেকে আমকে রক্ষা করা সম্ভব হবে।

এই সংবাদটি 1,226 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •