ইংল্যান্ডে ইমিগ্র্যাশন পলিসি পরিবর্তনের আবেদন জানালের মেয়র জন বিগস

প্রকাশিত:রবিবার, ৩১ মে ২০২০ ০১:০৫

ইংল্যান্ডে ইমিগ্র্যাশন পলিসি পরিবর্তনের আবেদন জানালের মেয়র জন বিগস

ডেস্ক রিপোর্ট, ইউএসঃ লন্ডন বারা অব টাওয়ার হ্যামলেটসের নির্বাহী মেয়র জন বিগস ইমিগ্র্যাশন স্ট্যাটাসের কারনে করোনা ভাইরাসের সাপোর্ট থেকে কাউকে বঞ্চিত না করার আহবান জানিয়েছেন।

জরুরীভিত্তিতে ইমিগ্র্যাশন পলিসি পরিবর্তন করার অনুরুধ জানিয়ে মেয়র জন বিগস হোম সেক্রেটারী প্রীতি প্যাটেলের কাছে লেখা এক চিঠিতে এই আহবান জানিয়েছেন।

চিঠিতে মেয়র উল্লেখ করেন এদেশে বসবাসরত সকল বাসিন্দারই করোনা ভাইরাসজনিত সাপোর্ট সমানভাবে পাওয়া উচিত।

উল্লেখ্য যে, বর্তমানে চালু থাকা নো রিসোর্স টু পাবলিক ফান্ড (NRPF) আইন অনুযায়ী কোন কোন বাসিন্দা তাদের ইমিগ্র্যাশন স্ট্যাটাসের কারনে বিভিন্ন ধরনের ওয়েলফেয়ার বেনিফিট, ট্যাক্স ক্রেডিট কিংবা হাউজিং সহযোগিতা নিতে পারেন না।

কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারনে বর্তমানে বেশিরভাগ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং অন্যান্য কাজ বন্ধ রয়েছে। ফলে অনেকের আয়ই এখন প্রায় শূন্য। পাশাপাশি জীবন রক্ষাকারী বেনিফিট থেকেও তারা বঞ্চিত হবার কারনে তাদের ভোগান্তি চরমে উঠেছে।

হোম সেক্রেটারীর কাছে লেখা চিঠিতে মেয়র ষ্ক্রনো রিসোর্স টু পাবলিক ফান্ড এর কারনে যেসব ক্ষেত্রে সবচাইতে বেশী প্রভাব পড়েছে তা তুলে ধরেন।

এসবের মধ্যে রয়েছে বিশেষ ইমিগ্র্যাশন স্ট্যাটাস সম্পন্ন গৃহহীন অনেককে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল জরুরী ভিত্তিতে অস্থায়ী হাউজিং এর ব্যবস্থা করেছে।

মধ্যম থেকে দীর্ঘ মেয়াদে তাদের হাউজিং এর খরচ কিভাবে বহন করা হবে তা কাউন্সিল নিশ্চিত নয় কারন তারা বিভিন্ন ধরনের বেনিফিট পাবার যোগ্য নন।পারিবারিক সহিংসতা সার্ভিস এবং ফ্রি স্কুল মিলের বেলায়ও এটা প্রযোজ্য।

কারন বিশেষ ইমিগ্র্যাশন স্ট্যাটাসের কারনে এসব সুবিধা তারা নিতে পারছেন না। মেয়র আরো বলেন, অনেকে তাদের ইমিগ্র্যাশন সমস্যার কারনে ভাইরাস টেস্টের মতো গুরুত্বপূর্ন মেডিক্যাল সেবা নিতে ভয় পাচ্চেছন যা করোনা বিস্তাররোধে নেয়া পদক্ষেপকে বাধাগ্রস্থই করছে না আমাদের পাবলিক হেলথকেও বিপদে ফেলছে।

আর এজন্য মেয়র হোম সেক্রেটারীর কাছে ষ্ক্রনো রিসোর্স টু পাবলিক ফান্ড (NRPF) আইনটি স্থগিতের আবেদন জানিয়েছেন যাতে করে তাদের জন্য অতি প্রয়োজনীয় আর্থিক সহযোগিতার বিষয়টির সুরাহা করা যায়।

মেয়র জন বিগস বলেন, সরকার বর্তমান সংকটে বিপদগ্রস্থ মানুষদের জন্য বিভিন্ন ধরনের আর্থিক সহযোগিতা দিলেও ইমিগ্র্যাশনের ঝামেলায় থাকা মানুষজন এর বাইরে থেকে যাচ্চেছন।

এর একটা বিহিত দরকার। তা নাহলে সমাজে এর বহুবিধ নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

এই মুহুর্তে আমাদের টার্গেট হচ্চেছ ভাইরাসের বিস্তারকে বন্ধ করা এবং ক্ষতিগ্রস্থ সবাইকে সহযেগিতা করা। এক্ষেত্রে কারো ইমিগ্র্যাশন স্ট্যাটাস বিবেচনায় আনা উচিত নয়। আর এজন্যই আমি হোম সেক্রেটারীর কাছে নো রিসোর্স টু পাবলিক ফান্ড (NRPF) আইনটি স্থগিতের আবেদন জানাচ্ছি এবং মনেকরি এটাই সঠিক সময়।

এই সংবাদটি 1,225 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •