এন্ড্রু কিশোর দুস্থ নন, তিনি বাংলা গানের রাজাধিরাজ

প্রকাশিত:সোমবার, ১৬ সেপ্টে ২০১৯ ০৩:০৯

এন্ড্রু কিশোর দুস্থ নন, তিনি বাংলা গানের রাজাধিরাজ

সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোর। তার সঙ্গে আছেন স্ত্রী ও চিকিৎসা সমন্বয়ক কণ্ঠশিল্পী জাহাঙ্গীর। শিল্পীর কিডনি ও হরমোনজনিত সমস্যা ছিল। ফলে শরীরের ওজন হ্রাসসহ নানা সমস্যা দেখা দেয়। বিভিন্ন পরীক্ষার পর তার এড্রেনাল গ্লান্ড একটু বড় হয়ে গেছে বলেও জানা যায়। যদিও তিনি এখন আগের চেয়ে কিছুটা সুস্থ আছেন। তবে তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বায়োপসির রিপোর্ট পাওয়া যাবে ছয় সপ্তাহ পর। শারীরিক সুস্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন বাংলা গানের জনপ্রিয় এই শিল্পী।

 

এন্ড্রু কিশোরকে নিয়ে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবর। রাইজিংবিডি’র পাঠকদের জন্য তা তুলো ধরা হলো-

 

‘আমাদের কুমিল্লার বাসায় নীচতলায় ভারাটিয়া ছিলো একটি রোমান ক্যাথলিক পন্থী ক্রিশ্চিয়ান পরিবার। ঐ পরিবারে আমার দুজন ক্লাসমেট ছিল মিউরি আর মরিন। বাবরা আপা ছিলেন শাসক। রড্রিকস ফ্যামিলির প্রিয় শিল্পী ছিলেন আনপ্যারালাল প্লে-ব্যাক সম্রাট এন্ড্রু কিশোরদা। বাবরা আপার কালেকশনে ছিলো এন্ড্রু’দার সব ফিল্মের গানের ক্যাসেট। আমি তখন ফোর ফাইভে প্রাইমারি লাইফে। আপার প্যানাসনিক সেটে দাদার গান শুনতাম।

 

ক্রিসমাস কিংবা ইস্টার সানডে’তে ডেকোরশনে আমি থাকতাম নিশ্চিত, চার্চের প্রার্থনা সঙ্গীত খুব ভাল লাগতো, এটা ছিলো আমার শৈশবের একটা অধ্যায়। সমস্ত অকেশনে ফুর্তি থাকে। আমিও ফুর্তিতেই সামাজিকতা খুঁজেছি, এখনো পেয়ে যাচ্ছি। পূজা ঈদ আমাদের শৈশবের আনন্দের স্বাধীনতায় বিলীন ছিলো। হালকা গায়ক হবার পর সেই স্বপ্নের নায়কের সাথে মেলামেশার সুযোগ হয়েছে, তিনি এন্ড্রু’দা। বাবরা আপা কোথায় আছেন জানি না, হয়তো তিনিও জানেন না, তার স্নেহের মিঠু এখন আসিফ হয়েছে।

 

এন্ড্রু কিশোর বাংলাদেশের অহঙ্কার, তার গানে কেঁদে হেসে আমাদের জন্ম হয়েছে। কোন মানুষের সবদিন সমান কখনোই যায় না। তিনি কঠোরতা দেখিয়েছেন পেশাদারিত্বে, নইলে আমাদের প্রজন্ম আরো ধোঁকায় নিমজ্জিত হতো। দাদার শরীরটা ভালো না, তার জন্য দোয়া চাই। দাদা আমাকে সম্বোধন করেন ‘বাবু’ নামে। দাদার কোন অভাব নাই, একটু শ্রদ্ধা ভালোবাসা জাতির কাছে অবশ্যই প্রাপ্য। তিনি হরমোন আর কিডনী জটিলতা থেকে মুক্তি পান- এটাই চাই। আমাদের সম্রাট চিকিৎসা শেষে সুস্থভাবে ফিরে আসুন আমার মত সাধারণ প্রজাদের কাছে, পরম করুণাময়ের কাছে এই পানাহ্ চাই। আসুন এই ক্ষণজন্মা অভাগা দেশীয় সম্পদ গুণী মানুষটাকে সম্মান দিয়ে নিজেরাই সম্মানিত হই। উনার চল্লিশ বছরের শ্রমটাকে কান্না হাসিতেই সম্মান জানাই, একটু ভাবুন। ভাবলেই পেছনের দৃষ্টিকোণ সরাসরি আপনার মুখোমুখি হবে। আর এন্ড্রু’দা আপনি এসব এদিক সেদিক কষ্ট নিয়ে আপনার এবং আমাদের বেঁচে থাকার ইচ্ছেটাকে হাওয়ায় ভাসিয়ে দেবেন না প্লীজ । আমরা আমাদের সম্রাটকে অনেক ভালোবাসি। এন্ড্রু কিশোর কখনোই দুস্থ নন, তিনি বাংলা গানের রাজাধিরাজ।

এই সংবাদটি 1,226 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •