এবার যেসব ভিসায় আপাতত যুক্তরাষ্ট্র আসা বন্ধ

প্রকাশিত:সোমবার, ২৯ জুন ২০২০ ০১:০৬

এবার যেসব ভিসায় আপাতত যুক্তরাষ্ট্র আসা বন্ধ

ভিসার ওপর আরও কড়াকড়ি আরোপের ঘোষণা আগেই দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আজ সোমবার নির্দিষ্ট বিদেশি শ্রমিকদের ওপর ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ পর্যন্ত এ কড়াকড়ি আরোপ করে নতুন এই আদেশটিতে সাক্ষর করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

গত ২১ এপ্রিল এক টুইট বার্তায় করোনায় বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্রে অনির্দিষ্টকালের জন্য ইমিগ্রেশন বন্ধ করে দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন নাগরিকদের ‘রোজগার বাঁচানোর’ জন্যই এই সিদ্ধান্ত ছিল বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

গত ২২ এপ্রিল যারা সিটিজেন তাদের বাবা-মা, ভাই-বোন, গ্রিনকার্ড যাদের আছে তাদের স্বামী/স্ত্রী ও সন্তানসহ যেসকল অভিবাসী ভিসা বন্ধের প্রোক্লেমেশন জারি হয়েছিল, আজ ২২ জুন সেটার মেয়াদ শেষ না হয়েই আবারও মেয়াদ বাড়ল ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। নতুন এই আদেশে ভিসার আবেদন বন্ধ হয়নি।

ট্রাম্পের স্বাক্ষরিত নতুন এই আদেশে এইচ -১ ‘বি’ কারিগরি কর্মী ভিসা, এইচ -২ ‘বি’ এইচ-৪ খণ্ডকালীন কর্মী ভিসা, নির্দিষ্ট ‘জে’ ওয়ার্ক এবং শিক্ষা এক্সচেঞ্জ ভিজিটর ভিসা এবং ‘ এল’ এক্সিকিউটিভ ট্রান্সফার ভিসা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এটি বছরের শেষ অবধি কার্যকর থাকবে। তবে যাদের ইতিমধ্যে ভিসা রয়েছে তাদের ওপর প্রভাব ফেলবে না।

আগে থেকেই ট্রাম্পের এ ঘোষণায় আপত্তি জানিয়েছেন সমালোচকরা। তারা বলছেন, ট্রাম্পের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসীদের সংখ্যা কমিয়ে আনা। এমনকি ভোটারদের কাছেও এ বিষয়ে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি। তাই সামনে নির্বাচনকে ঘিরে অভিবাসী কমাতে করোনাভাইরাস মহামারিকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতে চাচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ট্রাম্পের অভিবাসন নীতির বিপক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান প্রধান কোম্পানিগুলো। বিশেষ করে প্রযুক্তি কোম্পানিগুলো ট্রাম্পকে আহ্বান জানিয়েছেন বিদেশি শ্রমিকদের ওপর বাধানিষেধ আরোপ থেকে বিরত থাকার জন্য। তবে আশঙ্কা, এতে দেশের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা অনুমান করেছিলেন যে এই বিধিনিষেধ আমেরিকানদের জন্য ৫,২৫,০০০ চাকরি উন্মুক্ত করে দেবে।

এই সংবাদটি 1,230 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ