ওয়াশিংটন রাজ্যে বিলুপ্ত হচ্ছে মৃত্যুদণ্ডের বিধান

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন রাজ্যে মৃত্যুদণ্ড বিলুপ্ত হচ্ছে। সেখানকার ‍সুপ্রিম কোর্ট মৃত্যুদণ্ডের বিধানকে বৈষম্যমূলক আচরণ ব্যাখ্যা করে এই বিধান নিষিদ্ধ করেছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের ২০তম রাজ্য হিসেবে মৃত্যুদণ্ডের বিধান বাতিল করতে চলেছে ওয়াশিংটন। মৃত্যুদণ্ডের অপেক্ষায় থাকা আট আসামির সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন করা হয়েছে। এই রায়ের প্রশংসা করেছেন মানবাধিকার কর্মীরা। গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে ২৩ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিলো। তবে ২০১০ সাল থেকে ওয়াশিংটনে কারও মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়নি।

বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটন রাজ্যের সুপ্রিম কোর্টে বিচারকরা সবাই সম্মত হন যে এই আইন বাতিল করতে হবে। ১৯৯৬ সালে ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগে মৃত্যুদণ্ড পাওয়া অ্যালেন ইউজিন গ্রেগরি আপিল করেন। আবেদনে একটি গবেষণা প্রতিবেদন তুলে ধরা হয় যেখানে বলা হয়েছে যে যেকোনও শ্বেতাঙ্গের চেয়ে কৃষ্ণাঙ্গের মৃত্যুদণ্ড পাওয়ার সম্ভাবনা সাড়ে চার গুণ বেশি।

বিচারকরা বলেন, ওয়াশিংটনে মৃত্যুদণ্ড কাঙ্খিত লক্ষ্য পূরণে ব্যর্থ হচ্ছে। একে বৈষম্যমূলকভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। রাজ্যের গভর্নর জে ইনস্লি এক টুইটে বলেন, ‘অনেকদিন ধরেই অভিযোগ ছিলো যে ওয়াশিংটনে মৃত্যুদণ্ড সমঅধিকার নিশ্চিত করতে ব্যর্থ। এখানে কোনও কিছুই স্বচ্ছ কিংবা সমতা ছিলো না।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের যুক্তরাষ্ট্র শাখার মুখপাত্র ক্রিস্টিনা রোথ বলেন, যারা ওয়াশিংটনে এই বিধান বিলুপ্তের জন্য লড়াই করেছেন এটা সবার জন্য দারুণ খবর। অমানবিক এই বিধান থেকে এই নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ২০টি রাজ্য বেরিয়ে আসলো। সব জায়গাতেই এই আইন নিষিদ্ধ করা উচিত।