কলম্বিয়াকে হারাতে পারল না আর্জেন্টিনা

আগের ম্যাচে দুর্বল গুয়াতেমালার সঙ্গে ৩-০ গোলের জয় পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। তবে এবার কলম্বিয়ার বিপক্ষে আর জিততে পারল না দুবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। দক্ষিণ আমেরিকার দুই দেশের আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হয়েছে।

বিশ্বকাপের পরপরই জাতীয় দল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ছুটিতে গেছেন লিওনেল মেসি। বার্সেলোনা তারকাকে ছাড়া গুয়াতেমালার বিপক্ষে অবশ্য সহজেই  জিতেছিল আর্জেন্টিনা। কিন্তু কলম্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল, বড় দলগুলোর বিপক্ষে মেসিকে ছাড়া কতটা ভুগতে হবে আর্জেন্টিনাকে!

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির মেটলাইফ স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বুধবার সকালে হওয়া ম্যাচে অবশ্য ভালোই খেলেছে আর্জেন্টিনা। কিন্তু গোল না পেলে ভালো খেলার আর দাম থাকে কি!

আগের ম্যাচ থেকে এদিন বেশ কিছু পরিবর্তন এনেছিলেন আর্জেন্টিনার অন্তর্বর্তীকালীন কোচ লিওনেল স্কালোনি। শুরু থেকে খেলেন ইন্টার মিলানের ফরোয়ার্ড মাউরো ইকার্দি। দ্বিতীয়ার্ধে বদলি নামেন জুভেন্টাসের ফরোয়ার্ড পাওলো দিবালা।

সপ্তম মিনিটে প্রথম ভালো সুযোগ পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। তবে প্যালাসিওসের শট ঠেকিয়ে দেন কলম্বিয়ার গোলরক্ষক ডেভিড অসপিনা। পরে ইকার্দিকেও গোলবঞ্চিত করেন তিনি।

আধা ঘণ্টার মাথায় নিজেদের ভুলে গোল প্রায় খেতে বসেছিল আর্জেন্টিনা। কলম্বিয়ান ফরোয়ার্ড রাদামেল ফ্যালকাওয়ের নিচু শট ফিরিয়ে আর্জেন্টিনাকে রক্ষা করেন ফ্রাঙ্কো আরমানি। প্রথমার্ধের শেষ দিকে লুইস মুরিয়েলের জরালো শটও ঠেকান আর্জেন্টিনা গোলরক্ষক।

দ্বিতীয়ার্ধে প্যালাসিওসের বদলি হিসেবে দিবালা মাঠে নামার পর আর্জেন্টিনার আক্রমণে ধার বাড়ে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কলম্বিয়ার জমাট রক্ষণ ভাঙতে পারেনি তারা। গোল পায়নি কলম্বিয়াও। ২০০৭ সালের পর থেকে তারা আর্জেন্টিনাকে হারাতে পারেনি।