কানাডায় শুরু হচ্ছে ফোবানা সম্মেলন

আগামী ১৬ ও ১৭ সেপ্টেম্বর কানাডার টরন্টো সিটির ডেল্টা হোটেলে এটি অনুষ্ঠিত হবে বলে এক সংবাদ সম্মেলনে জানান ‘ফোবানা’র পরিচালনা কমিটির মহাসচিব কাজী আজম।

 

স্থানীয় সময় রোববার সন্ধ্যায় নিউ ইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “সম্মেলনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। ঐক্যবদ্ধ কম্যুনিটি নির্মাণে ফোবানার গুরুত্ব অপরিসীম। এজন্য সব জায়গায় ভিন্ন এক আমেজ তৈরি হয়েছে।”

 

পরিচালনা কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান সালু বলেন, “১৯৮৭ সাল থেকেই ফোবানার বাংলাদেশ সম্মেলন হয়েছে সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে লেবার ডে উইকেন্ডে। এবার সেই উইকেন্ডে ঈদুল আজহা হওয়ায় আমরা সম্মেলন পিছিয়ে ১৬-১৭ সেপ্টেম্বর ঠিক করেছি।”

 

পরিচালনা কমিটির আরেক সদস্য আলী ইমাম বলেন, “যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিপুলসংখ্যক প্রবাসী যাবেন কানাডায় এই সম্মেলনে অংশ নিতে। নিউ ইয়র্ক থেকে অর্ধ শতাধিক সদস্যের একটি টিম যাচ্ছি আমরা।”

 

 

সংগঠনের সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেন খান বলেন, “যে চেতনায় ১৯৮৭ সালে যাত্রা শুরু, সেই ঐক্যের প্রশ্নে আমরা সবসময়ই সচেষ্ট রয়েছি। আমরা কখনোই ফোবানার বিভক্তি চাই না। অন্যদেরও ছাড় দেয়ার মনোভাব থাকতে হবে।”

সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন- পরিচালনা কমিটির সদস্য ও বাংলাদেশ সোসাইটির ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য দেলোয়ার হোসেন এবং মিরসরাই সমিতির সভাপতি ও সমাজকর্মী কাজী নয়ন।

 

৬ থেকে ৮ অক্টোবর ফ্লোরিডার মায়ামি সিটিতে ফোবানার ব্যানারে এবারও আরেকটি বাংলাদেশ সম্মেলন হবে। সেই সম্মেলনেও বাংলাদেশের রাজনীতিক, সাংবাদিক, লেখক, সাহিত্যিক, অভিনেতা ও কণ্ঠশিল্পীরা আসবেন বলে আয়োজকরা জানান।

 

এদিকে ফোবানার নির্বাহী কমিটির যুগ্ম মহাসচিব জাকারিয়া চৌধুরী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আইনগত দূরের কথা, অন্য কারো নৈতিক অধিকারও নেই ফোবানা নাম ব্যবহার করার। কারণ, আমরা ফোবানার ট্রেড মার্ক রেজিস্ট্রেশন করেছি মার্কিন প্রশাসনে। তাই, সবাইকে আহ্বান জানাচ্ছি মায়ামির সম্মেলনে অংশ নিতে। তাহলেই কম্যুনিটির অনৈক্য কেটে যাবে। কারণ, ফোবানাকে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা প্রবাসীদের মহামিলন মেলায় পরিণত করতে চাই আমরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.