কুলাউড়ায় সুলতান মনসুরের বিপরীতে কে?

মৌলভীবাজার-২ আসনেই লড়ছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ । পরিস্থিতি বিবেচনায় নিজের জন্মস্থানেই তিনি লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এদিকে এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী নিয়ে নতুন মেরূকরণ তৈরি হয়েছে। বিএনপির সাবেক নেতা ও সাবেক এমপি এমএম শাহীন গতকাল বি. চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন যুক্তফ্রন্টে যোগ দেয়ার পর তিনি এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী হচ্ছেন এ নিয়ে জোরালো আলোচনা এলাকায়। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কেন্দ্রীয় নেতাদের সিগন্যাল পেয়েই সুলতান মনসুর মৌলভীবাজারে নির্বাচনে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। নির্বাচনের বিষয়ে জানতে চাইলে গতকাল তিনি মানবজমিনকে বলেন, নির্বাচনে লড়তে হলে কুলাউড়া থেকেই লড়ব। তিনি বলেন এখানে কে কোন দলের প্রার্থী হলো এটা আমার বিবেচ্য বিষয় নয়। সবাই প্রার্থী।

আমি কুলাউড়ার মানুষের সঙ্গে আছি। এলাকার মানুষই আমাকে মূল্যায়ণ করবে। তিনি বলেন, জাতীয় বৃহত্তর স্বার্থে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠিত হয়েছে। আগামী নির্বাচনে জনরায় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষেই থাকবে।

সুলতান মনসুর আওয়ামী লীগ থেকে ১৯৯৬ সালে মৌলভীবাজার-২ আসনে নির্বাচন করে বিজয়ী হন। ২০০৮ সালে দলীয় মনোনয়নকে কেন্দ্র করে তিনি দলীয় রাজনীতি থেকে অনেকটা দূরে সরে যান। জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার হয়ে সম্প্রতি গঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনে তিনি গরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটিরও তিনি সদস্য। জোট সূত্র জানায়, জোটের নীতি-নির্ধারক হিসেবে সুলতান মুনসুরের ইচ্ছা অনুযায়ী তাকে মূল্যায়ণ করা হবে।

এদিকে হেভিওয়েট প্রার্থী সুলতান মনসুরের বিপরীতে এ আসনে আওয়ামী লীগ বা মহাজোটের প্রার্থী কে হচ্ছেন এখন এ নিয়ে নতুন আলোচনা চলছে। কয়েক দিন থেকেই আলোচনা ছিল এমএম শাহীন বি. চৌধুরীর বিকল্পধারায় যোগ দিচ্ছেন। বিকল্পধারা আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোটবদ্ধ হলে তাকে এ আসন থেকে জোটের মনোনয়ন দেয়া হবে এমনটা নিশ্চিত হয়েই তিনি গতকাল বিকল্পধারায় আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দেন।

এমএম শাহিন বিএনপির হয়ে প্রথম মৌলভীবাজার-২ আসনে নির্বাচন করে সংসদ সদস্য হন (১৯৯৬ সালে ১৫ই ফেব্রুয়ারি)। ২০০১ সালে জোট থেকে জামায়াতের প্রার্থী মনোনয়ন দেয়ায় দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এমএম শাহিন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করে জয় লাভ করেন। এমএম শাহিনের কথা মূলত দলে মূল্যায়ন না পেয়ে তিনি বিকল্পধারায় যোগদান করেছেন। বিকল্পধারায় যোগ দেয়া প্রসঙ্গে তিনি মানবজমিনকে বলেন, মূলত আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আলাপ হয়েছে, যুক্ত্যফ্রন্ট যে সিদ্ধান্ত নেয় সেই ভাবেই আমার পথচলা শুরু হবে। নির্বাচনের ব্যাপারে বলেন, তাকে মহাজোটের প্রার্থী হিসাবে দেখা যেতে পারে।

এদিকে এ আসনের বর্তমান এমপি আওয়ামী লীগের আবদুল মতিন আবারও দলের মনোনয়ন চাইছেন। এ আসন থেকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নপত্র নিয়েছেন ১১ জন। বিএনপি’র মনোনয়নপত্র নিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতা এডভোকেট আবেদন রাজাসহ তিনজন।