গাইবান্ধায় হাট আন্দোলনে ৪ সিপিবি নেতা বেকসুর খালাস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ১০ নভে ২০২০ ০৮:১১

গাইবান্ধায় হাট আন্দোলনে ৪ সিপিবি নেতা বেকসুর খালাস

 

গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ

গাইবান্ধা সদর উপজেলার হাটের টোল আদায় আন্দোলনে মিথ্যা মামলায় বেকসুর খালাস পেলেন সিপিবির চার নেতা। মঙ্গলবার অতিরিক্ত চীপ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটে নজরুল ইসলামের আদালতে মামলা প্রমাণিত না হওয়ায় জেলা সিপিবি সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিুজর রহমান মুকুল, জেলা কমিটির সদস্য ময়নুল কবির মন্ডল, সন্তোষ বর্মন ও আলি আজমকে আদালত বেকসুর খালাস দেয়।

আসামী পক্ষের এ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বাবু জানান, ২০০৬ সালে দারিয়াপুর তহসিল অফিসের তৎকালীন তহসিলদার খয়বার হোসেন বাদি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটি আমরা মিথ্যা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। মামলার রায়ে আদালত চার আসামিকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন।
জানা গেছে, সেসময় জেলা সিপিবির সভাপতি মিহির ঘোষসহ ১২জনের বিরুদ্ধে দারিয়াপুর তহসিল অফিসের তৎকালীন তহসিলদার খয়বার হোসেন বাদি হয়ে তহসিল অফিস ভাঙ্গচুরের অভিযোগ এনে থানায় একটি মামলা দায়ের করে। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মিহির ঘোষকে বাদি দিয়ে ১১জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করে। পরবর্তীতে আদালত চার্জ গঠনের সময় আরও ৬জনকে বাদ দিয়ে মামলা পরিচালনা করে। ৫ জনের মধ্যে লালু মোদক নামে আসামির মৃত্যু হলে তাকে বাদ দিয়ে ৪জনের বিরুদ্ধে মামলার শুনানিসহ সাক্ষ্য প্রমাণ শুরু হয়। সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আদালত গতকাল চারজনকে বেকসুর খালাস দেন।

এদিকে এই মিথ্যা মামলায় চারজনের বেকসুর খালাস পাওয়ায় সিপিবি জেলা সভাপতি মিহির ঘোষ ও সহসাধারণ সম্পাদক মুরাদ জামান রব্বানী এক বিবৃতিতে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ২০০৬ সালে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি গাইবান্ধা জেলা কমিটির উদ্যোগে জেলার বিভিন্ন হাটে অতিরিক্ত টোল আদায়ে অনিয়ম, ইজারদারের জুলুম,ক্ষুদ্র ব্যবসায়িদের হয়রানির প্রতিবাদ জানিয়ে ধারাবহিক আন্দোলনের শুরু করে। আন্দোলনের এক পর্যায়ে তৎকালীন জেলা প্রশাসক মজিবুর রহমানের নির্দেশে দারিয়াপুর তহসিল অফিসের তৎকালীন তহসিলদার খয়বার হোসেন বাদি হয়ে সিপিবি জেলা সভাপতি মিহির ঘোষসহ ১২জনের বিরুদ্ধে তহসিল অফিস ভাঙ্গচুরের মামলা দায়ের করে। দীর্ঘদিন পর হলেও মামলাটি মিথ্যা ছিল বলেই আদালতে প্রমাণিত হয়েছে। তারা বলেন, সিপিবি ন্যায় সঙ্গত যে কোন আন্দোলনে জনগণের পাশে ছিল এবং থাকবে।

এই সংবাদটি 1,229 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •