চুয়াডাঙ্গায় এক স্কুল ছাত্রসহ তিনজন চার মাস নিখোঁজ

প্রকাশিত:রবিবার, ০৭ আগ ২০১৬ ০২:০৮

-150x150_002
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:

চুয়াডাঙ্গায় এক স্কুল ছাত্রসহ তিনজন চার মাস ধরে নিখোঁজ রয়েছে। এতে তাদের পরিবারের সদস্যরা উদ্বেগ উৎকন্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। এদের সন্ধান ও ফিরে পেতে তাদের পরিবারের সদস্যরা থানায় জিডি করেছে। নিধোঁজ ব্যক্তিরা হলেন স্কুল ছাত্র কাইমুজ্জামান ওরফে লিখন (১৪),সামসুল হক (২৮), ও সাধন কুমার ওরফে সাধন (২৮)।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সুত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে নিখোঁজ রয়েছেন জীবননগর উপজেলার গোয়ালপাড়া গ্রামের নিগারের ছেলে সামসুল হক । তার পার্সপোট নং সি-১৮৯৫৭৩০। তার শ্বশুড় ৪ জুলাই ২০১৬ তারিখে জীবননগর থানায় সাধারন ডায়েরি করেছেন।
আলমডাঙ্গা উপজেলার বড় বোয়ালিয়া গ্রামের আব্বাস উদ্দিনের ছেলে কায়মুজ্জামান ওরফে লিখন বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয় ৪ এপ্রিল’১৬ তারিখে। নিখোঁজ কায়মুজ্জামান ওরফে লিখন গ্রামের হাটবোয়ালিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী । এ ব্যাপারে তার বাবা আলমডাঙ্গা থানায় ৮ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে সাধারন ডায়েরি করেছেন। নিখোঁজ স্কুল ছাত্র কায়মুজ্জামান ওরফে লিখনের বাবা আব্বাস উদ্দিন বলেন, লিখন লেখাপড়ায় খুবই দুর্বল ও অমনোযোগী ছিল। ঘটনার দিন গত ৪ এপিল তারিখে লেখাপড়ায় অমনোযোগী সংক্রান্ত বিষয়ে একটু বকাবকি করার কারণে লিখন বাড়ি ছেড়ে অজ্ঞাত স্থানে চলে গেছে। এ পর্যন্ত নিখোঁজ কায়মুজ্জামান ওরফে লিখনের কোন সন্ধান মিলেনি।
এ ছাড়া গত ৫ মাস আগে আলমডাঙ্গা শহরের ডিগ্রি কলেজপাড়ার মৃত অজয় কুমারের ছেলে ব্যবসায়ী সাধন কুমার ওরফে সাধন নিঁখোজ হয়। এ ব্যাপারে তার ভাই জীবন কুমার আলমডাঙ্গা থানায় ২৩ মার্চ ২০১৬ তারিখে সাধারন ডায়েরি করেন। যোগাযোগ করলে নিখোঁজ সাধন কুমার ওরফে সাধনের দাদা জীবন কুমার জানান, আলমডাঙ্গা বাজারের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী অল্প শিক্ষিত সাধন কেন এবং কী কারণে নিখোঁজ হয়েছেÑ এই বিষয়ে তারা কিছুই বলতে পারে না।
চুয়াডাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলায়েত হোসেন নিখোঁজের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ৩ জনের ব্যাপারে খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।

এই সংবাদটি 1,227 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ