জামালগঞ্জের কালীপুর স্কুলের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ইউএনওর কাছে অভিযোগ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ০৯ আগ ২০১৬ ১২:০৮

jamalgonj pic (sunamgonj)

তৌহিদ চৌধুরী প্রদীপ,জামালগঞ্জ (সুনামগঞ্জ) :
সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জে কালীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সহ সকল শিক্ষকের অনুপস্থিতি ও অনিয়মে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভীমখালী ইউনিয়নের কালীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আনোযার পারভেজ।
লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন,প্রধান শিক্ষক করুনা মোহন দত্ত নিজের পল্লী চিকিৎসা নিয়ে ব্যস্ত থাকার কারনে শিক্ষকতার পেশায় ঠিক মত সময় দিতে পারেননী। যার দরুন অন্যান্য শিক্ষকরা নিজেদের খেয়াল খুশীমত স্কুলে আসা যাওয়া করেন। প্রতিদিনই শিক্ষকরা পালাক্রমে আসেন। শিক্ষকরা স্কুলে না থাকলেও হাজিরা খাতায় ঠিকই স্বাক্ষর দিয়ে যান আগের দিন। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য ও অভিভাবকরা কেন আসেননা জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকরা কেন জবাব দেননী।
অভিযোগে আরো উল্লেখ করেন,প্রধান শিক্ষকের বিভিন্ন অনিয়ম ও স্কুল ফাকির বিষয় গুলি নিয়ে একাধিকবার জেলা শিক্ষা অফিসার ও উপজেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে লিখিত আবেদন করেও কোন ফল পাওয়া যায়নী। কালীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক করুনা মোহন দত্ত বলেন,আমি শিক্ষকতার পাশাপাশি পল্লী চিকিৎসকও। তবে আমি স্কুল ফাকি দেয়না,স্কুলের আগে ও পরে বাজারে বসে চিকিৎসা করি। আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ সব গুলি সঠিক নয়। আপনারা গ্রামে এসে তদন্ত করে যান,গ্রামের অধিকাংশ মানুষ আমার কথাই সঠিক বলবে।
জামালগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো: নূরুল আলম ভুইয়া বলেন,কালীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক যদি শিক্ষকতা ছেড়ে অন্য কোন পেশায় স্কুল ফাকি দিয়ে সময় দিলে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টিটন খীসা বলেন,শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড,প্রাথমিক শিক্ষাই শিক্ষার মুল স্তম্ভ। শিক্ষকের বিদ্যালয়ের অনুপস্থিতির অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত পূর্বক বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এই সংবাদটি 1,225 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ