জামালপুর-দওেয়ানগঞ্জ রলেযোগাযোগ বন্ধ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ২১ জুলা ২০২০ ০৪:০৭

জামালপুর-দওেয়ানগঞ্জ রলেযোগাযোগ বন্ধ

জামালপুর সংবাদদাতা :
জামালপুর জলোয় দ্বতিীয় দফা বন্যার কারণে জামালপুর জলোর ৭টি উপজলোয় বন্যার পরস্থিতিি চরম অবনতি হয়ছে।ে বৃহস্পতবিার সকাল নাগাদ ২৪ ঘন্টায় ৪ সন্টেি মটিার পানি বৃদ্ধি পয়েে বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়ন্টেে বপিদ সীমার ১২৮ সন্টেমিটিার উপর দয়িে প্রবাহতি হচ্ছ।ে বাংলাদশে পানি উন্নয়ন র্বোড (পউবো)’র জামালপুররে নর্বিাহী প্রকৌশলী মো. আবু সাঈদ এবং পানি মাপক গজে পাঠক আব্দুল মান্নান এটি নশ্চিতি করছেনে।
জামালপুর রলে স্টশেনরে ভারপ্রাপ্ত স্টশেন মাস্টার শখে উজ্জ্বল মাহমুদ এবং দওেয়ানগঞ্জ বাজার স্টশেন মাস্টার আব্দুল বাতনে জানান-দওেয়ানগঞ্জ রলেষ্ট্রশেনে বন্যার পানতিে তলয়িে যাওয়ায় ট্রনে চলাচল বন্ধ আছ।ে আপাতত: জামালপুর থকেে ইসলামপুর র্পযন্ত ট্রনে চলাচল অব্যাহত আছ।ৈ আগামী চব্বশি ঘন্টা পানবিৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে এই লাইনওে ট্রনে চলাচল বচ্ছিন্নি হবার আশংকা করা হচ্ছ।ে
ইতোমধ্যইে দওেয়ানগঞ্জ-ইসলামপুর উপজলোর বহু বসতবাড়-িস্থাপনা-রাস্তাঘাট যমুনা বলিীন হয়ছে।ে জলোর দওেয়ানগঞ্জ, ইসলামপুর, মাদারগঞ্জ, মলোন্দহ, সরষিাবাড়,ি বকসগিঞ্জ ও জামালপুর সদর ৭টি উপজলোর ৬৮টি ইউনয়িনরে মধ্যে প্রায় ৪০ টি ইউনয়িনরে বস্তর্িৃণ এলাকা বন্যার পানতিে তলয়িে গছে।ে প্রায় সাড়ে ৫ লাখ মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়ছে।ে
দওেয়ানগঞ্জ উপজলোর নর্বিাহী র্কমর্কতা সুলতানা রাজয়িা বলনে, এই উপজলোয় দড়ে লক্ষ মানুষ বন্যার পানতিে আক্রান্ত হয়ছে।ে তনিি বলনে, পাঁচটি বন্যা আশ্রয় কন্দ্রেে উপজলোর পাঁচ শাতাধকি পরবিার আশ্রয় নয়িছে।ে বন্যায় ক্ষতগ্রিস্থ মানুষদরে মাঝে ৩৭ মট্রেকি টন চাউল, নগদ আড়াই লক্ষ টাকা ও এক হাজার প্যাকটে শুকনো খাবার বতিরণ করা হয়ছে।ে এছাড়াও ৫৭ হাজার পরবিাররে মাঝে ভজিএিফ এর চাল বতিরণরে র্কাযক্রম চলছ।ে
অপরদকিে এই উপজলোয় গো খাদ্যরে জন্য ৫০ হাজার ও শশিু খাদ্যরে জন্য ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ দয়ো হয়ছে।ে ইসলামপুর উপজলোর নর্বিাহী র্কমর্কতা মোহাম্মদ মজিানুর রহমান বলনে এ উপজলোয় এক লক্ষ ২০ হাজার মানুষ বন্যায় পানি বন্দি হয়ে পরছে।ে বন্যায় ক্ষতগ্রিস্থ ছয় হাজার ১৬০ জন মানুষ ৪৬টি আশ্রয় কন্দ্রেে অবস্থান করছনে। তনিি বলনে বন্যা র্দুগতদরে মাঝে ১৯ মট্রেকি টন চাউল ও দুই হাজার প্যাকটে শুকনো খাবার বতিরণ করা হয়ছে।ে
এদকিে ইসলামপুর উপজলোর সাপধরী, বলেগাছা, চনিাডুলী, কুলকান্দি ইউনয়িনরে যমুনার দ্বীপ চররে লোকজন নৌকার অভাবে তাদরে ঘররে ধান চাল এমনকি গৃহপালতি পশু নরিাপদ স্থানে নতিে পারছে না বলে বলেগাছা ইউপরি চয়োরম্যান আব্দুল মালকে জানয়িছেনে।
বন্যা কবলতি এলাকার গুলোর মধ্যে দওেয়ানগঞ্জ উপজলো চুকাইবাড়ী, চকিাজানী, বাহাদুনাবাদ, চর আমখাওয়া ইউনয়িন, ইসলামপুর উপজলোর র্পার্থশী কুলকান্দ,ি বলেগাছা, চনিাডুলী, নোয়ারপাড়া, ইসলামপুর সদর, পলবান্দা, ইসলামপুর পৌরসভা, গোয়ালরে চর,গাইবান্দা, চরগোয়ালীনী ও চরপুটমিারী ইউনয়িন। মলোন্দহ উপজলোর, মাহমুদপুর, শ্যামপুর, মলোন্দহ পৌরসভা, নাংলা, আদ্রা, ফুলকোচা, ঝাউগড়া, ও ঘোষরেপাড়া ইউনয়িন। মাদারগঞ্জ উপজলোর গুনারীতলা জোড়খালী, বালজিুড়ি ও চর পাকরেদহ ইউনয়িন।
সরষিাবাড়ী উপজলোর পংিনা, আওনা, পোগলদঘিা, সাত পোয়া ও কামরাবাদ ইউনয়িন। বকশগিঞ্জ উপজলোর সাদুরপাড়া, মরেুরচর, বগারচর, ইউনয়িন। জামালপুর সদর উপজলোর লক্ষীরচর, তুলশরিচর ইউনয়িন বন্যার পানতিে তলয়িে গছে।ে বন্যায় ক্ষতগ্রিস্ত মানুষসহ গৃহপালতি পশু নয়িে উচু বাঁধ,ে বভিন্নি শক্ষিা প্রতষ্ঠিানে আশ্রয় নয়িছে।ে বানভাসদিরে শুকনো খাবার ও বশিুদ্ধা পানরি, গো খাদ্যরে চরম সংকট দখো দয়িছে।ে
ইসলামপুর চনিাডুলি ইউনয়িনে ৩৫০ প্যাকটে ত্রাণসামগ্রী বতিরণ করনে আলহাজ ফরদিুল হক খান দুলাল এমপ।ি মলোন্দহ ইউএনও তামমি আল ইয়ামীন জানান-বন্যা মোকাবলোয় এখনো ১৪ ম:ে টন ত্রাণ মজুদ আছ।ে পআিইও অফসি সূত্র জানয়িছেে আজ থকেে র্দুগতদরে মাঝে ত্রাণ বতিরণরে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়ছে।ে
জামালপুর জলোর মাদারগঞ্জ উপজলোর মহষিবাথান-মাহমুদপুর বন্যা নয়িন্ত্রণ বাঁধরে ৫০ মটিার অংশ বন্যার পানরি প্রবল স্রোতে ভঙেে গছে।ে কৃষি সম্প্রসারণরে উপ-পরচিালক মো.আমনিুল ইসলাম জানান বন্যার পানতিে ৭৩৯ হক্টের জমরি আমন বীজতলা, ১৬ হাজার ৬৬ হক্টের জমরি আউস ধান এবং ২১ হাজার ২৭ হক্টের জমরি পাট তলয়িে গছে।ে

এই সংবাদটি 1,227 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ