Wed. Nov 13th, 2019

BANGLANEWSUS.COM

-ONLINE PORTAL

জীবন হাতে জিপলাইনিং

1 min read

জিপলাইন কী অনেকেই হয়তো আমরা জানি না। দুই পাহাড় বা উঁচু জায়গার মধ্যে ঝুলন্ত দড়ি হলো জিপলাইন এবং এর মাধ্যমে একপাশ থেকে অন্যপাশে যাওয়াকেই জিপলাইনিং বলা হয়। স্নায়ু শক্ত না হলে এই চেষ্টা না করাই ভালো। অ্যাডভেঞ্চারের সন্ধানে যেসব ভ্রমণপ্রেমী ছুটে চলেন তারা অবশ্যই সংযুক্ত আরব আমিরাতের সর্বোচ্চ পাহাড় জেবেল জাইসে যেতে পারেন। এই পাহাড়ে রয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘতম জিপলাইন রাইড। আপনারা যারা সেখানে যেতে চান তাদের জন্য সবচেয়ে রোমাঞ্চকর তথ্য হলো, এই দড়িতে ঝুলন্ত অবস্থায় প্রায় ৭৫ থেকে ৯৩ মাইল গতিতে আপনি প্রায় ১.৭৬ মাইল পাড়ি দিতে পারবেন। এটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৬৮০ মিটার উঁচুতে অবস্থিত। পর্বত অঞ্চল এমনিতেই আকর্ষণীয়! আর যদি বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘতম জিপলাইনের আনন্দ সেখানে মেলে, তাহলে তো কথাই নেই।

 

তবে সবচেয়ে বেশি গতিতে যদি জিপলাইনে ছুটে চলতে চান তাহলে আপনাকে যেতে হবে নর্থওয়েলসের ভেলোসিটি-২ নামক জিপলাইনে। সেখানে আপনি ঘণ্টায় প্রায় ১০০ মাইল গতিতে যেতে পারবেন। এজন্য অবশ্য  টেক্সাস প্রসিদ্ধ অঞ্চল। পাহাড়ঘেরা এই রাজ্যে অন্তত দশটিরও বেশি জায়গায় আপনি জিপলাইনিং করতে পারবেন।

 

টেক্সাসের মূল শহর থেকে মাত্র আধা ঘণ্টা ড্রাইভিং দূরত্বে অবস্থিত লেক ট্র্যাভিস জিপলাইনিংয়ের জন্য বিখ্যাত। এখানে আপনি জিপলাইনের পাশাপাশি পাহাড়ের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য পুরো এলাকা গাইড নিয়ে ঘুরতে পারবেন। লেক ট্র্যাভিসে পাঁচটিরও বেশি জিপলাইন রয়েছে যেগুলোর কোনো কোনোটি প্রায় ১৬০০ ফুটের চেয়েও বেশি লম্বা। এছাড়া টেক্সাসের ছোট একটি পাহাড়ি শহর উইম্বারলিতে অবস্থিত উইম্বারলি জিপলাইন অ্যাডভেঞ্চারও বেশ প্রসিদ্ধ। উইম্বারলি জিপলাইন অ্যাডভেঞ্চারে প্রায় দশটিরও বেশি জিপলাইন রয়েছে যেগুলো ১৫০ ফুট থেকে ৯০০ ফুট পর্যন্ত লম্বা।

 

স্যান অ্যান্টোনিওর ন্যাচারাল ব্রিজ ক্যাভার্ন্স জিপলাইন অবশ্য বিখ্যাত এর আশেপাশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের জন্য। এখানে জিপলাইন দিয়ে ঘেরা অনেকগুলো প্লাটফর্ম রয়েছে, জিপলাইনের মাধ্যমে আপনি এক প্লাটফর্ম থেকে অন্য প্লাটফর্মে ঘুরে বেড়াতে পারবেন। আর পাহাড়ের সৌন্দর্য দেখে যদি আপনার মন না ভরে, তবে আপনি মাটির নিচের সৌন্দর্যও উপভোগ করতে পারবেন এখানে। এই পাহাড়ি অঞ্চল অনেকগুলো গুহা দিয়ে ভরপুর এবং টেক্সাসের সবচেয়ে বেশি গুহা এই অঞ্চলেই রয়েছে।

 

আপনার জিপলাইন অ্যাডভেঞ্চারের মধ্যে আরেকটু থ্রিল দিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কলোরাডো অঙ্গরাজ্যে পাহাড় নদী ও গভীর গিরিখাদের উপর দিয়ে তৈরি করা হয়েছে গ্লেনউড ক্যানিয়ন জিপলাইন। অ্যাডভেঞ্চারের পাশাপাশি আপনি যদি প্রকৃতিপ্রেমী হন তাহলে এটা আপনার জন্য একদম পোয়াবারো! কেননা প্রায় ৪০০ ফুট লম্বা জিপলাইন থেকে আপনি যখন পাহাড় আর নদী দেখবেন তখন তা আপনার সারাজীবন মনে থাকবে। কলোরাডো রাজ্যটি এই ধরনের জিপলাইনিং অ্যাডভেঞ্চার দিয়ে ঘেরা।

 

কোস্টারিকার ‘আরেনাল ভলকানো’ অঞ্চলটি আগ্নেয়গিরির পাশাপাশি জিপলাইনের জন্যও বিখ্যাত। এখানে জিপলাইন দিয়ে ঘেরা অনেকগুলো প্লাটফর্ম রয়েছে, এক প্লাটফর্ম থেকে অন্য প্লাটফর্মে আপনি প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে করতে ঘুরে বেড়াতে পারবেন। এছাড়া নিউজিল্যান্ডের ‘ওয়াইহেক আইল্যান্ড’ অঞ্চলে আপনার জন্য বিশেষ ধরনের জিপলাইনের ব্যবস্থা রয়েছে। বিশেষ বলতে, এমন এক জিপলাইন যেখানে দুইজন একসঙ্গে উঠতে পারবেন। অর্থাৎ আপনার যদি একা একা জিপলাইনিং  করতে ভালো না লাগে তাহলে আপনি সঙ্গী নিয়ে ঘুরে বেড়াতে পারবেন।

 

অপরদিকে হাইতির লাবাদে অঞ্চলে পানির উপরে তৈরি করা সবচেয়ে বড় একটি জিপলাইন রয়েছে। চমৎকার নীল স্বচ্ছ জলরাশির প্রায় ৫০০ ফুট উঁচু দিয়ে ঘুরে বেড়ানো একজন ভ্রমণপ্রেমী হিসেবে আপনার মনে রাখার মতো একটি অভিজ্ঞতা হবে বলেই ধারণা করছি। ফ্রান্সের আইফেল টাওয়ারের কথা আমরা কে শুনিনি? কিন্তু আমরা অনেকেই হয়তো জানি না, আইফেল টাওয়ার থেকে বেশ কিছু ঐতিহাসিক এলাকা আপনি জিপলাইন দিয়ে ঘুরে বেড়াতে পারবেন। তবে এই জিপলাইনটি এখন পর্যন্ত স্থায়ী করা হয়নি। তবে জিপলাইনটি বেশ গতিশীল। ফলে আপনাকে রোমাঞ্চিত হবেন এটা নিশ্চিত। একবার ভাবুন, এর গতি ঘণ্টায় প্রায় ৫৫ মাইল!

 

পরিশেষে আলাস্কার আইসিস্ট্রেইট পয়েন্ট-এর কথা না বললেই নয়। বরফ-ঘেরা নয়নাভিরাম সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন পাহাড় থেকে পাহাড়ে জিপলাইন দিয়ে ঘুরতে ঘুরতে। আপনার যদি ঠাণ্ডার খুব একটা সমস্যা না থাকে, তাহলে শীতের সময় এই এলাকা থেকে ঘুরে আসতে পারেন। বরফ আর পাহাড়ের এই সৌন্দর্যের দ্বৈরথ আপনাকে মুগ্ধ করবেই। অ্যাডভেঞ্চারপ্রেমীরা বলেন, একবার যে শ্বাসরুদ্ধকর জিপলাইনে চড়েছে, সে চিরকাল জিপলাইনিং করতে চাইবে৷ তাই জীবন হাতে নিয়ে ঝুলে পড়ুন জিপলাইনে!

Copyright © Banglanewsus.com All rights reserved. | Developed By by Positive it USA.

Developed By Positive itUSA