টরন্টোয় প্রথমবারের মতো সূর্যোদয়ে বাংলা বর্ষবরণ

‘কাক ডাকা ভোরে দল বেধে রমনার বটমূলে হাজির হওয়া’-  প্রবাসের বাংলা নববর্ষের উদযাপনে এই স্বাদটা মেটানো যাচ্ছিলো না কিছুতেই।  বৈশাখি মেলা, মঙ্গল শোভাযাত্রা সবকিছু যুক্ত হলেও এটিই ছিলো অনুপস্থিত। আবৃত্তি শিল্পী মেরী রাশেদীনের প্রস্তাবনা ও পরিকল্পনায় এবার সেটিও যুক্ত হলো টরন্টোর বৈশাখি আয়োজনে।

বৈরি আবহাওয়া উপেক্ষা করে প্রাণের টানেই টরন্টোনিয়ান বাংলাদেশিরা এবার সুর্যোদয়ের লগ্নেই বাংলা নববর্ষকে  বরণ করে নিয়েছে। আর এর মধ্য দিয়ে টরন্টোর বাংলা সংস্কৃতি চর্চায় যুক্ত হলো নতুন এক ধারা।

‘নব আনন্দে জাগো’ শিরোনামে গ্র্যান্ড প্যালেসের আয়োজনে চারদিনের বৈশাখি উদযাপনেসূর্যোদয়ের লগ্নে বর্ষবরণের আয়োজন করা হয়।  বৈরি আবহাওয়া উপেক্ষা  করেই  সাপ্তাহিক ছুটির দিনের সকাল বেলা টরন্টোর বাংলাদেশিরা যোগ দেন  বাংলা বর্ষ বরনের আয়োজনে। টরন্টোর শিল্পীদের পরিবেশনায় নাচ, গান আর কবিতায় বরণ করা হয় বাংলা নতুন বছর ১৪২৫কে ।

একই সাথে আয়োজন করা হয় পন্তা ইলিশের। ফলে গ্র্যান্ড প্যালেসে আয়োজিত প্রবাসীদের বর্ষবরণ আনুষ্ঠানটি অনেকটা রমনার বটমূলের আবহও পেয়ে যায়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *