তদন্ত কর্মকর্তাদের কাছে মিথ্যা: দায় স্বীকার গেইটসের

দুই বছর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের সময় ডোনাল্ড ট্রাম্প শিবিরের অন্যতম শীর্ষ কর্মকর্তা রিক গেইটস যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও তদন্ত কর্মকর্তাদের কাছে মিথ্যা বলার দায় স্বীকার করে নিয়েছেন।

 

মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ নিয়ে চলা বিচার বিভাগের বিশেষ তদন্তদলের এসব অভিযোগে শুক্রবার গেইটস তার দোষ স্বীকার এবং তদন্ত দলকে সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন বলে খবর রয়টার্সের।

 

ট্রাম্প শিবিরের সাবেক এ উপ-ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে ব্যাংক জালিয়াতি ও মুদ্রা পাচার ষড়যন্ত্রেরও অভিযোগ এনেছে মার্কিন বিচার বিভাগ; সেগুলোতে দোষী সাব্যস্ত হলে গেইটসের কয়েক দশক পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে।

 

শুক্রবার যে অভিযোগগুলোর দায় স্বীকার করেছেন, তাতে সাবেক গেইটসের সর্বোচ্চ ছয় বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। তবে রাশিয়া সংযোগ বিষয়ে তদন্তে সহযোগিতা করার ঘোষণা দেওয়ায় তদন্ত কর্মকর্তারা আদালতে সাবেক এ ট্রাম্প উপদেষ্টার সাজা কমানোর অনুরোধ করতে পারেন।

 

পরিবারের সদস্যদের ওপর চাপ কমাতে ও আইনী খরচ নিয়ে উদ্বেগের কারণে গেইটস এই দায় স্বীকার করতে পারেন বলে ধারণা রয়টার্সের।

 

মার্কিন নির্বাচনে মস্কোর হস্তক্ষেপ নিয়ে চলা এ বিশেষ তদন্ত দল ট্রাম্পের প্রচার শিবিরের সাবেক ব্যবস্থাপক পল ম্যানাফোর্টের বিরুদ্ধেও একই ধরণের অভিযোগ এনেছে।

 

গেইটস দায় স্বীকার করে নেওয়ায় ট্রাম্পের সাবেক এ প্রভাবশালী উপদেষ্টার ওপর চাপ বাড়লেও শুক্রবার এক বিবৃতিতে নিজেকে নিষ্পাপ দাবি করেছেন ম্যানাফোর্ট।

 

তদন্ত কর্মকর্তারা বলছেন, গেইটসের সহযোগিতা নিয়ে ম্যানাফোর্ট তিন কোটিরও বেশি ডলার পাচার করেছেন ও ঋণের টাকার জন্য ব্যাংকগুলোকে ধাপ্পা দিয়েছেন।

 

বিলাসী জীবনযাপনের জন্য রিপাবলিকান প্রচার শিবিরের প্রভাবশালী এই দুই কর্মকর্তা গোপন অফশোর অ্যাকাউন্টের একটি তহবিল ব্যবহার করেন বলেও দাবি মুলারের তদন্ত দলের।

 

গেইটস ও ম্যানাফোর্টের বিরুদ্ধে গত বছরের অক্টোবরে মুদ্রা পাচারের প্রথম অভিযোগ এনেছিলেন স্পেশাল কাউন্সিল রবার্ট মুলার।

 

এসব অভিযোগের কোনোটিই মার্কিন নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়।

 

মার্কিন বিচার বিভাগের বিশেষ এ তদন্ত দলের মূল লক্ষ্য ২০১৬-র প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান শিবিরের সঙ্গে রাশিয়ার কোনো আঁতাত ছিল কিনা তা খতিয়ে দেখা।

 

এ বিষয় নিয়ে এফবিআই বা অন্য কোনো সংস্থার তদন্তে ট্রাম্প প্রশাসন হস্তক্ষেপ করেছিল কিনা, তাও খুঁজে দেখবে তারা।

 

তদন্ত দলটি এর মধ্যে ট্রাম্পের অনেক সহযোগী ও উপদেষ্টার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি অভিযোগ আনলেও রিপাবলিকান শিবিরের সঙ্গে মস্কোর যোগসাজশ বিষয়ে কোনো অভিযোগ নেই।

 

পর্যবেক্ষকদের ধারণা, গেইটসের পর ম্যানাফোর্টও যদি তদন্ত কর্মকর্তাদের সহযোগিতা করার ঘোষণা দেন, তাহলে ২০১৬-র প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রচার শিবিরের অনেক তথ্যই মুলারের হাতে চলে আসবে।

 

ওই বছরের জুনে ট্রাম্প টাওয়ারে রুশ আইনজীবীর সঙ্গে রিপাবলিকান প্রচার দলের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বৈঠকে তখনকার ব্যবস্থাপক ম্যানাফোর্টও ছিলেন। বৈঠকটির মাত্র ছয়দিন পর জনসম্মুখে আসা ডেমোক্রেটদের ইমেইলের সঙ্গে ট্রাম্প শিবিরের কোনো সংযোগ ছিল কিনা তা খুঁজে দেখছে বিশেষ এ তদন্ত দল।

 

ডেমোক্রেটদের ওই ইমেইলগুলো রাশিয়ানরা হ্যাক করেছিল বলে অভিযোগ আছে। জনসম্মুখে আসা সেসব ইমেইল ডেমোক্রেট প্রার্থী হিলারির জনপ্রিয়তা কমাতে ভূমিকা রেখেছিল বলেও মনে করা হচ্ছে।

 

রিপাবলিকান প্রচার শিবিরের সাবেক উপ-ব্যবস্থাপক গেইটসের মূল দায়িত্ব ছিল নির্বাচনী প্রচারের দৈনন্দিন ব্যয়ের দেখভাল করা। ২০১৬-র অগাস্টে ম্যানাফোর্ট প্রচার শিবির থেকে পদত্যাগ করলেও গেইটস তার কাজ চালিয়ে যান। ট্রাম্প নির্বাচনে জেতার পর তিনি প্রেসিডেন্টের ট্রানজিশন দল ও অভিষেক কমিটিরও সদস্য হয়েছিলেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.