তাইওয়ানে ভূমিকম্পে নিহত ৪

তাইওয়ানে শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ৪। তাইওয়ানের পর্য

টন শহর হুয়ালিয়েনে মঙ্গলবার রাতে ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। খবর সিএনএন, বিবিসি।

 

ভূমিকম্পের পর এখন পর্যন্ত ১৪৫ জন নিখোঁজ রয়েছে। বুধবার ধ্বংসস্তুপের নিচ থেকে আটকে পড়াদের উদ্ধারে অংশ নেয় উদ্ধারকারী দল। তারা ধসে পড়া ভবন এবং ধ্বংসস্তুপের নিচ থেকে লোকজনকে উদ্ধার করেন। অনেকেই খালি হাতেই উদ্ধারকাজে অংশ নেন।

 

ভূমিকম্পে তাইওয়ানের হুয়ালিয়ন শহর সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এখানকার মার্শাল নামে একটি আবাসিক হোটেল সম্পূর্ণ ধসে পড়েছে। উদ্ধারকারীরা এখনও সেখানে উদ্ধার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

 

 

 

মঙ্গলবার মধ্যরাতে উপকূলীয় শহরে আঘাত হানা ভূমিকম্প ২২৫ জন আহত হয়েছে বলে কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন। সরকারি তথ্য অনুযায়ী এখনও ১৪৫ জনের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে এদের বেশিরভাগই ধসে পড়া ভবনের নিচে আটকা পড়েছেন। উপকূলীয় শহর হুয়ালিয়েন থেকে ২২ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ভূমিকম্পের আঘাতে একটি সামরিক হাসপাতালও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

 

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আহতরা জাপান, চেক প্রজাতন্ত্র এবং চীনের পর্যটক। আহতরা মূলত মার্শাল হোটেলে এবং শহরের আকেটি ভবনে অবস্থান করছিলেন। তাইওয়ানের সরকারি সংবাদ সংস্থা সিএনএ জানিয়েছে, ভূমিকম্পের কারণে একটি সেতু সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে।

 

মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জপির সংস্থার তথ্যমতে, ভূমিকম্পের কিছুক্ষণ পর হুয়ালিয়ন শহরে বেশ কয়েকটি আফটারশক আঘাত হানে। এছাড়া গত কয়েক দিনে আশপাশের এলাকায় ভূকম্পন অনুভূত হয়।

 

 

 

তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট এক টুইট বার্তায় বলেছেন, উদ্ধার কাজের জন্য সেনাবাহিনীকে তলব করা হয়েছে। জনগণকে নিরাপদ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

 

হুয়ালিয়েন শহরে প্রায় ১ লাখ মানুষের বাস। ভূমিকম্পের কারণে প্রায় ৪০ হাজার মানুষ আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে। এছাড়া বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন অবস্থায় রয়েছে আরও ১ হাজার ৯শ বাড়ি-ঘর।

 

স্থানীয় এক বাসিন্দা জানান, ভূমিকম্পের সময় স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান এবং অন্যান্য লোকজনকে সাহায্য করার চেষ্টা করেন।

 

তাইওয়ানের কেন্দ্রীয় জরুরি সেবা দপ্তর জানিয়েছে, ৬শ সেনা এবং ৭৫০ জন দমকল কর্মী উদ্ধারকাজে অংশ নিয়েছেন। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ভূমিকম্পে আহত নয়জন জাপানি নাগরিককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

 

ভূমিকম্পে ৩১ জন বিদেশি নাগরিক আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ১৪ জন দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিক, নয়জন জাপানি, দু’জন চেক প্রজাতন্ত্রের, দু’জন সিঙ্গাপুরের এবং একজন ফিলিপিনো নাগরিক।

 

এর আগে ২০১৬ সালে তাইওয়ানে একটি ভয়াবহ ভূমিকম্পে শতাধিক মানুষ নিহত হয়। তবে দেশটিতে সবচেয়ে ভয়াবহ ভূমিকম্প আঘাত হেনেছিল ১৯৯৯ সালে। ওই ভূমিকম্পের আঘাতে ২ হাজারের বেশি মানুষ প্রাণ হারায়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.