তিস্তার জল আর ইলিশের সমীকরণ কোন পথে গড়াবে?

পশ্চিমবঙ্গের বোলপুরে হাসিনা-মমতা বৈঠকের দিকে তাকিয়ে ভোজনরসিক বাঙালি। কারণটা শুধুই ইলিশ নয়; তিস্তার জল আর ইলিশের সমীকরণ কোন পথে গড়ায়, সেদিকেও চোখ। জৈষ্ঠ্য শেষে আষাঢ়। পাতে ইলিশের জোগানে ভাঁটা পড়বে? নাকি দ্বিপাক্ষিক কথায় মসৃণ হবে ইলিশ সরণি? এসবই এখন সময়ের অপেক্ষা।

 

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাত্কার প্রসঙ্গে মমতা বলেন, ‘সমাবর্তনে রাজনীতির জায়গা নেই। কেবলই এটা সৌজন্যের সাক্ষাৎ।’ বৃহস্পতিবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

 

 

নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী, আগামীকাল শুক্রবার (২৫ মে) সকাল ৮টায় দু’দিনের সফরে কলকাতার উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে শেখ হাসিনার। ভিভিআইপি ফ্লাইটে নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর হেলিকপ্টার যোগে সকাল নয়টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং নরেন্দ্র মোদি কলকাতা ছাড়বেন।

 

বিশ্ব ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য অধ্যাপক সবুজ কলি সেন সেখানে শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদিকে অভ্যর্থনা জানাবেন। শেখ হাসিনা এবং নরেন্দ্র মোদি বঙ্গ ভবনের (বাংলাদেশ ভবন) উদ্বোধন করবেন। আসানসোলের নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবর্তন অনুষ্ঠান শেষে মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে সাক্ষাত করবেন শেখ হাসিনা।

 

মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠকে বহুল কাঙ্ক্ষিত তিস্তা পানিবণ্টন চুক্তি এবং রোহিঙ্গা ইস্যু গুরুত্ব পেতে পারে বলে ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে উল্লেখ করা হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.