দুবাইয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এক প্রবাসীকে হত্যা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ২৮ জুলা ২০১৬ ১২:০৭

Dobi ded-pic-2

মোঃ জুয়েল রহমান : গত সোমবার দিবাগত রাতে দুবাইয়ের আবুধাবীতে পাকিস্থানীদের হাতে বাংলাদেশী নাগরিক ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার মো: বাচ্চু মিয়া খুন হয়েছেন। এ ঘটনার খবর পাওয়ার পর নিহতের গ্রামের বাড়ী ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার সেন্দ গ্রামের পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

এলাকাবাসী এবং পরিবারের সদস্যরা জানায়, পরিবারের একটু প্রশান্তির আশায় গত ছয় বছর আগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার রামরাইল ইউনিয়নের সেন্দ গ্রামের মৃত রশিদ সর্দারের ছোট ছেলে মো: বাচ্চু মিয়া (৪৫) দুবাইয়ের প্রবাসী হন। দীর্ঘদিন ধরে সেখানে তিনি একটি খাবার হোটেলে কর্মরত ছিলেন। গত ২৫ জুলাই রাতে মাতাল অবস্থায় তিন পাকিস্থানী নাগরিক ওই হোটেলে ডুকে কোন কারণ ছাড়াই বাংলাদেশী নাগরিক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাচ্চু মিয়ার উপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারি হামলা চালায়। এতে ঘটনা স্থলেই বাচ্চু মিয়ার মৃত্যুহয়। ঘটনার পরপরই সেখানকার পুলিশ মাতাল তিন পাকিস্থানীকে আটক করে।

নিহততের বড়ভাই এলাহী মিয়া এবং জাহের সর্দার জানান, প্রবাসী সহকর্মীদের মাধ্যমে গত মঙ্গলবার রাতে তাদের ছোট ভাই বাচ্চু মিয়ার নির্মম মৃত্যুর খবর পান। এ খবর পাওয়ার পর পরই পরিবারের শুরু হয় শোকের মাতম।
নিহতের স্ত্রী সুমনা আক্তার কান্না জরিত কন্ঠে বলেন, আমার স্বামী খুব ভালমানুষ ছিল। তাকে কেন এভাবে দুবৃর্ত্তরা হত্যা করেছে বুঝতে পারছিনা। আমি এই হত্যাকারীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তিচাই। তিনি তার স্বামীর মরদেহ দ্রুত দেশের মাটিতে ফিরিয়ে আনার দাবী জানান।

নিহততের বড়ভাই এলাহী মিয়া এবং জাহের সর্দার বলেন এমন হত্যাকান্ড খুবই নির্মম। আমরা আমাদের ভাইয়ের হত্যাকারীদের দৃষ্টান্ত মূলক বিচার চাই। পাশপাশি আমাদের ভাইয়ের লাশ দ্রুত যেন দেশের মাটিতে ফিরিয়ে আনাহয়। এজন্যে সরকারের কাছে দাবী জানাচ্ছি।

নিহতের বাচ্চু মিয়া নয় ভাই বোনের মধ্যে সকলের ছোট। বর্তমানে তার স্ত্রী-দুই ছেলে ইমন(১৫)এবং নাবিদ(৫) এবং কন্যা মুনমুন আক্তার কে নিয়ে চট্টগ্রামের বোয়াল খালি অবস্থান করছেন। আগামী কোরবানী ঈদে বাচ্চু মিয়া বাড়ী ফেরার কথা ছিল।

 

 

 

এই সংবাদটি 1,225 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ