নৌমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবিতে ফার্মগেটে সড়ক অবরোধ

সড়ক দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের পদত্যাগ, নিরাপদ সড়ক ও ঘাতক জাবালে নূরের চালকদের দ্রুত বিচার ও ফাঁসি দাবিতে রাজধানীর ব্যস্ততম এলাকা ফার্মগেটের সড়ক অবরোধ করেছেন সরকারি বিজ্ঞান কলেজের শিক্ষার্থীরা।

 

মঙ্গলবার (৩১ জুলাই) সকাল সোয়া ১০টার দিকে তারা এ সড়ক অবরোধ করেন। তেজগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাজহারুল ইসলাম সড়ক অবরোধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

 

 

রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে এমইএস বাস স্ট্যান্ডে জাবালে নূর পরিবহনের বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ফার্মগেট ওভারব্রিজের নীচে শিক্ষার্থীরা বসে পড়েন। এতে ওই এলাকায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

 

অবরোধ থেকে নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের পদত্যাগ, নিরাপদ সড়ক ও ঘাতক জাবালে নূরের চালকদের দ্রুত বিচার ও ফাঁসি দাবি ছাড়াও বেশ কয়েকটি দাবি করা হয়েছে।

 

দাবিগুলো হলো- নৌপরিবহন মন্ত্রী সকল সংসদীয় কমিটি, মালিক-শ্রমিক ফেডারেশন ও মন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগ, ক্ষতিগ্রস্ত সকল পরিবারের ন্যায্য দাবি পূরণ, পেশাদার লাইসেন্স প্রদানে স্বচ্ছতা, সড়ক দুর্ঘটনায় সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি, বিগত দিনের সকল দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতকরণ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংলগ্ন এলাকায় ওভারব্রিজ, সকল প্রকার দলীয় আচরণ ত্যাগ করে সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিত করা, পরিবহন খাতে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে সর্বোচ্চ আইন প্রণয়ন, ক্ষতিগ্রস্তদের বাস্তবসম্মত ক্ষতিপূরণ, গাড়ির ফিটনেস ও শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কার্যকর করা।

 

 

 

এসব দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত ওয়ান স্টেপ অবরোধের ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।

 

ফার্মগেট ছাড়াও রাজধানীর সাইন্সল্যাব মোড়ে শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করেছেন। এর ফলে মিরপুর রোড, নীলক্ষেত এবং শাহবাগ থেকে সাইন্সল্যাব এলাকার যানচলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। ধানমন্ডি থানা পুলিশ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

 

 

 

এছাড়া মিরপুর-১ নম্বর সড়ক অবরোধ করেছেন কমার্স কলেজের শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা দুইটি বাসে ইটপাটকেল ছুড়ে ভাঙচুর চালায়। মিরপুর-১০ নম্বর চত্বরেও বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করেছেন।

 

গত রোববার (২৯ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে এমইএস বাস স্ট্যান্ডে জাবালে নূর পরিবহনের বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হন। একই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১০/১৫ জন শিক্ষার্থী।

 

চাকার নিচে পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যাওয়া দুই শিক্ষার্থী হলেন- শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী দিয়া খানম মিম ও বিজ্ঞান বিভাগের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আব্দুল করিম রাজিব।

 

ওই ঘটনায় জাবালে নূরের তিন গাড়ির দুই চালক ও দুই হেলপারকে গ্রেফতার করেছে র্যাব-১। এর আগে নিহত মিমের বাবা ক্যান্টনমেন্ট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.