পাকিস্তানের মানবাধিকার কর্মী আসমা জাহাঙ্গীরের জীবনাবসান

পাকিস্তানের প্রখ্যাত আইনজীবী ও মানবাধিকারকর্মী আসমা জাহাঙ্গীর মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রোববার পাকিস্তানের লাহারে তার মৃত্যু হয়। তিনি দুই মেয়ে ও এক ছেলে রেখে গেছেন।

 

আসমা জাহাঙ্গীরের পরিবার দেশটির জাতীয় দৈনিক ডননিউজকে বলেছে, তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন। পরে তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানেই মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর।

 

তবে তার শেষকৃত্যের ব্যাপারে এখনো অানুষ্ঠানিকভাবে কোনো তথ্য জানানো হয়নি। মানবাধিকার ইস্যুতে অত্যন্ত স্পষ্টভাষী হিসেবে পরিচিত ছিলেন আসমা জাহাঙ্গীর। দেশটির ইতিহাসে গণতান্ত্রিক পাকিস্তান গড়তে তার অবদান চির-স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

 

 

 

১৯৫২ সালের জানুয়ারিতে লাহোরে আসমা জাহাঙ্গীরের জন্ম। কিনাইআর্ড কলেজ থেকে স্নাতক ও পাঞ্জাব ইউনিভার্সিটি থেকে এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি। পরে লাহোর হাইকোর্টে আইনজীবী হিসেবে যোগ দেন। দেশটির সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট ছিলেন আসমা জাহাঙ্গীর।

 

আসমা জাহাঙ্গীরের বাবা মালিক গোলাম জিলানী পশ্চিম পাকিস্তান আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ছিলেন। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গ্রেফতারের পর তার মুক্তির দাবিতে জেনারেল ইয়াহিয়া খানের কাছে একটি খোলা চিঠি লেখেন তিনি। আর এই চিঠি লেখার কারণে সে সময় তাকে কারাবরণ করতে হয়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.