পাটরে দাম বশেি পাওয়ায় কৃষকরে মুখে হাসি

প্রকাশিত:শুক্রবার, ১৬ অক্টো ২০২০ ০৮:১০

পাটরে দাম বশেি পাওয়ায় কৃষকরে মুখে হাসি

 

বনোপোল প্রতনিধিি :
মৌসুমরে শুরুতইে ‘সোনালি আঁশ’ পাটরে ভালো দাম পাওয়ায় কৃষকরে মুখে হাস।ি খুশতিে আত্মহারা পাট চাষরিা। এতে যশোররে র্শাশার কৃষক পরবিারে বইছে আনন্দ। সব শঙ্কা কাটয়িে এবার হাসি ফুটছেে পাট চাষদিরে মুখ।ে

কৃষকরা বলছনে, র্বতমানে বাজারে প্রতি মণ পাট বক্রিি হচ্ছে দুই হাজার ৫০০ থকেে দুই হাজার ৭০০ টাকায়। এতে প্রতি বঘিায় শুধু পাট বক্রিি করইে কৃষক লাভবান হচ্ছনে ১৬ থকেে ১৮ হাজার টাকা। সইে সঙ্গে পাটখড়রি দাম যুক্ত করলে প্রতি বঘিায় এখন কৃষকরে লাভ হচ্ছে ১৮ থকেে ২২ হাজার টাকা।

বসেরকারি পাটকলগুলো এ অঞ্চলরে পাটরে একমাত্র ক্রতো। কৃষকরা বলনে, সরকারি পাটকল চালু থাকলে দাম আরও বাড়তো।

র্শাশা উপজলো কৃষি র্কমর্কতা সৌতম কুমার শীল বলনে, এবার উপজলোয় লক্ষ্যমাত্রার চয়েে বশেি জমতিে পাট চাষ হয়ছে।ে র্শাশায় পাট চাষরে জন্য নর্ধিারতি লক্ষ্যমাত্রা দুই হাজার ৬০০ হক্টের জমরি বপিরীতে চাষ হয়ছেে ৫ হাজার ৬০০ হক্টের,ে যা থকেে পাট উৎপাদন হয়ছেে ১২ হাজার ৮৮০ মট্রেকি টন। গত বছর পাটরে উপযুক্ত দাম পাওয়ায় এ মৌসুমে কৃষকরা পাটরে আবাদ বশেি করছেনে। গত কয়কে বছর পাটরে দাম না পাওয়ায় কৃষকরা আগ্রহ হারয়িে ফলোয় সে সময় লক্ষ্যমাত্রা র্অজতি হয়নি বলে মনে করনে তনি।ি

উপজলোর শ্যামলাগাছি গ্রামরে পাটচাষি মোহাম্মদ আলী মলিন বলনে, গত বছররে চয়েে এবার ভালো দামে পাট বক্রিি করছে।ি মোটামুটি ভালো পাট দুই হাজার থকেে দুই হাজার ৩০০ টাকায় বক্রিি হচ্ছ,ে যা গতবাররে তুলনায় ৫০০-৬০০ টাকা বশে।ি এ বছর ভালো দাম পাচ্ছি তার জন্য ভালো লাগছ।ে পাটরে সুদনি ফরিে এসছে।ে

নাভারন বাজাররে পাট ব্যবসায়ী আবুজার বলনে, নতুন ওঠা পাট আমরা বভিন্নি দামে কনিছে।ি ধূসর-কালো রঙরে পাট ১ হাজার ৮০০ থকেে ২ হাজার টাকা, সোনালি রঙরে পাট ২ হাজার ১০০ থকেে ২ হাজার ৩০০ টাকা র্পযন্ত কৃষকরে কাছ থকেে আমরা কনিছ।ি এবার পাটরে দাম ভালো জানয়িে তনিি জানান, গতবাররে তুলনায় এবার পাটরে দাম ভালো হওয়ায় কৃষকও খুশ।ি তবে কছিুদনিরে মধ্যে পাটরে দাম আরও বাড়তে পার।ে

বারোপোতা গ্রামরে পাটচাষি আব্দুল মোমনি বলনে, পাটরে পাশাপাশি পাটকাঠরিও দাম ভালো। দড়ে বঘিা জমতিে আবাদ করে ১২ মণ পাট পয়েছে।ি সব মলিয়িে খরচ হয়ছেে ১০ হাজার টাকার। শুধু পাটকাঠি বক্রিি করছেি ৯ হাজার টাকা। খরচ কম হয়ছে।ে দাম ভালো পাচ্ছ।ি এবাররে পাটরে দামে আমরা খুশ।ি

বাগআঁচড়া বাজারে পাট বক্রিি করতে আসা কৃষক মোজাম গাজি বলনে, এবার দুই বঘিা জমতিে পাটরে আবাদ করে ২৫ মণ পাট পয়েছে।ি প্রতি মণ পাট বক্রিি করছেি ২ হাজার ২৬০০ টাকায়। এতে বশে ভালো লাভ হয়ছে।ে সরকারি পাটগুলো বন্ধ হওয়ায় কছিুটা হতাশ হয়ছেলিাম। কন্তিু বাজারে পাটরে ভালো দাম পয়েে সইে হতাশা কটেে গছে।ে

উপজলোর লক্ষনপুর গ্রামরে আতাউর রহমান এবার তনি বঘিা জমতিে পাটরে আবাদ করছেলিনে। ফলন পয়েছেনে বঘিায় ১০-১১ মণ কর।ে এক সপ্তাহ আগে পাট বক্রিি করলাম ২ হাজার ৫৫০ টাকা মণ। গত শুক্রবার বক্রিি করলাম ২ হাজার ৭০০ টাকা মণ।

জামতলা বাজাররে আড়তদার লাল্টু গাজী বলনে, বাজারে গত এক মাসরে ব্যবধানে পাটরে দাম মণে এক হাজার টাকা বড়েছে।ে আগে ১৮-১৯শ টাকা মণ বক্রিি হলওে এখন বক্রিি হচ্ছে মানভদেে ২ হাজার ৫০০ টাকা মণ। বসেরকারি পাটকলগুলোতে আমরা পাট বক্রিি কর।ি অনকে সময় তারা টাকা আটকে রাখ,ে এতে নগদ টাকা সংকটে পড়তে হয় তাদরে।

আকজি পাটকল, আহাদ পাটকল, আফলি উইভংি জুটমলিসহ খুলনাঞ্চলরে বসেরকারি জুটমলিগুলো স্থানীয় বাজার থকেে ফড়য়িা এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদরে মাধ্যমে সারা বছররে পাট সংগ্রহ করনে। আফলি গ্রুপরে যশোরে আফলি উইভংি জুট মলিরে চারটি ইউনটি রয়ছে।ে

গ্রুপরে পরচিালক মাহবুব আলম লাভলু বলনে, আমরা প্রতি বছর যশোর ও ফরদিপুর জলো থকেে পাট সংগ্রহ কর।ি এখানকার উৎপাদতি পাটরে মান ভালো। এবারও আমরা বপিুল পরমিাণ পাট কনিছে।ি

যশোর আঞ্চলকি কৃষি অফসিরে উপ-পরচিালক (ভারপ্রাপ্ত) বীরন্দ্রে নাথ মজুমদার বলনে, যশোরে এবার পাটরে ভালো ফলন হয়ছে।ে কৃষক তার ক্ষতেরে পাট বক্রিি করা শুরু করছেনে। দাম ভালো পাওয়ায় তারা খুশ।ি আশা করছি আগামীতে আবাদ আরও বাড়ব।ে

এই সংবাদটি 1,231 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •