প্রাক্তন রয়েল লন্ডন হসপিটালে গড়ে তোলা হবে টাওয়ার হ্যামলেটস সিভিক সেন্টার

লন্ডন বারা অব টাওয়ার হ্যামলেটসের নতুন সিভিক সেন্টার হোয়াইটচ্যাপলে নির্মান করা হচ্ছে। সাবেক রয়েল লন্ডন হসপিটালের ঐতিহাসিক বিল্ডিংয়ে অত্যাধুনিক এই সিভিক সেন্টার নির্মান করতে যুক্তরাজ্যের শীর্ষস্থানীয় নির্মান প্রতিষ্ঠান বুইগসকে ইউকে লিমিটেডকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ইউকের নির্মান জগতে বুইগস এর রয়েছে বিপুল সুনাম ও সাফল্যের অনন্য রেকর্ড। নগর উন্নয়নে তাদের বিভিন্ন উদ্ভাবনী প্রজেক্ট আলোচিত হয়েছে। হোয়াইটচ্যাপল রোডে প্রাক্তন রয়েল লন্ডন হসপিটাল বিহ্বিংয়ে নির্মিত হবে টাওয়ার হ্যামলেটস’ কাউন্সিলের নতুন টাউন হল। এজন্য হসপিটাল সাইটটি কাউন্সিল বার্টস হেলথ এনএইচএস ট্রাস্টের কাছ থেকে ২০১২ সালে কিনে নেয়। বর্তমান হসপিটাল ভবনটি হচ্চেছ গ্রেড টু লিস্টেড বিল্ডিং। এটিকে পূণসংস্কার করে এবং হসপিটাল সাইটে নতুন ভবন নির্মান করা হলে সর্বমোট ২৬ হাজার ৭০০ বর্গমিটার অফিস স্পেস হবে নতুন এই সিভিক সেন্টারের, যার উপরের ফ্লোরগুলোতে থাকবে ওপেন-প্ল্যান অফিস স্পেস। পুরো গ্রাউন্ড ফ্লোর জনসাধারণের ব্যবহারের জন্য নির্ধারিত থাকবে, যা স্থানীয় বাসিন্দাদের একত্রিত করতে এবং তারা যাতে সহজেই কাউন্সিলের সব ধরনের সার্ভিস লাভ করতে পারেন, তেমন সুবিধা নিশ্চিত করা হবে। বিল্ডিংয়ের গ্রাউন্ড ফ্লোরটি স্থানীয় বাসিন্দারা তাদের মিটিংয়ের জন্য যেমন ব্যবহার করতে পারবেন, তেমনি থাকবে ক্যাফে ও কাউন্সিল চেম্বার। চলতি বছরেই এই প্রকল্পের নির্মান কাজ শুরু হবে, যা ২০২১ সালের বসন্তকালে সমাপ্ত হবে বলে আশা করা হচ্ছে। প্রাথমিক পর্যায় থেকে পূর্ণাঙ্গ প্ল্যান, নির্মান ব্যয়, সংস্কার এবং নতুন নির্মান পরিকল্পনা চূড়ান্ত করতে বুইগস কাউন্সিলের সাথে অত্যন্ত ঘনিষ্টভাবে কাজ করবে।

 

এই প্রকল্প সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে নির্বাহী মেয়র জন বিগস বলেন, বারার বাসিন্দাদের জন্য নতুন টাউন হল নির্মান করতে বুইগস ইউকে লিমিটেডকে নিয়োগ দিতে পেরে আমরা খুবই সন্তুষ্ট। আমাদের পরিকল্পনা চূড়ান্ত করতে আমরা এখন এই কোম্পানীর সাথে ঘনিষ্টভাবে কাজ করতে আগ্রহের সাথে অপেক্ষা করছি।

 

বুইগস ইউকে এর চেয়ারম্যান ফাবিনি ভিয়ালা বলেন, বারার বিভিন্ন এলাকায় অনেকগুলো স্কুল ভবন নির্মানের মাধ্যমে লন্ডন বারা অব টাওয়ার হ্যামলেটসের সাথে আমাদের চম্কার সম্পর্ক গড়ে ওঠেছে। এখন নতুন টাউন হল নির্মানের মাধ্যমে এই সম্পর্কে আরো সুসংহত করার সুযোগ এলো আমাদের জন্য। নতুন টাউন হলে কাউন্সিল স্টাফদের জন্য কাজের উন্নতমানের পরিবেশ নিশ্চিত করার করার পাশাপাশি স্থানীয় কমিউনিটির জন্যও আধুনিক সুবিধাদি গড়ে তোলা হবে। লন্ডনের সর্ববৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্প হোয়াইটচ্যাপল ভিশন মাস্টারপ্ল্যানের অংশ হিসেবে নির্মিতব্য নতুন এই টাউন হল ২০২২ সালে চালু করা হবে। এই মাস্টারপ্ল্যানের মধ্যে রয়েছে ২০১৮ সালে হোয়াইটচ্যাপল স্টেশনে ক্রসরেল চালু, বার্টস হেলথ এনএইচএস ট্রাস্ট এবং কুইন মেরী ইউনিভার্সিটি অব লন্ডনের উদ্যোগে নতুন লাইফ সায়েন্স ক্যাম্পাস এবং নতুন ৭টি পাবলিক স্পেস গড়ে তোলা, যার ফলে এই এলাকায় ৫ হাজার নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *