ফ্রান্সে প্রথম স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণের প্রতিশ্রুতি

ফ্রান্সের ওবারভিলিয়ে শহরে প্রথম স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণের কাজ শুরু করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ওবারভিলিয়ের প্রথম সহকারী মেয়র এন্টনি দাগে।

 

স্থানীয় সময় বুধবার ফ্রান্সের ওবারভিলিয়ে শহরের স্কয়ার এমে সেজারে প্রস্তাবিত শহীদ মিনারের জন্য নির্ধারিত স্থানে শহীদ দিবসের কার্যক্রম চলাকালে এ প্রতিশ্রুতি দেন মেয়র।

 

শহীদ দিবস উপলক্ষে ‘উদীচী ফ্রান্স সংসদ’ ও ওবারভিলিয়ে শহরের মেরির যৌথ ব্যবস্থাপনায় অস্থায়ীভাবে নির্মিত শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর মধ্য দিয়ে শহীদ দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়।

 

উদীচী ফ্রান্স সংসদের আয়োজনে একুশ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের দ্বিতীয় দিনে ওবারভিলিয়ের প্রথম সহকারী মেয়র এন্টনি দাগে বলেন, “ঢাকা শহরে ১৯৫২ সালে বাংলা ভাষার আন্দোলন সমগ্র পৃথিবীর সকল মাতৃভাষার সংগ্রামের প্রতীক। ভাষা শহীদদের স্মরণে স্থায়ীভাবে শহীদ মিনার নির্মাণের কাজ চলতি বছরেই আমরা শুরু করবো।”

 

তিনি আরও বলেন, “এই নির্মাণের মধ্য দিয়ে ফ্রান্স উদীচীর দীর্ঘদিনের সংগ্রামের বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে যা বসবাসরত সকল বাঙালি সমাজের এবং ওবারভিলিয়ে শহরে বসবাসরত ১০৮টি ভিন্ন ভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর সকলের মাতৃভাষা ও সংস্কৃতির প্রতি সম্মান প্রদর্শনের এক স্থায়ী নিদর্শন হয়ে থাকবে। দ্রুত উদীচী ও বাংলাদেশ দূতাবাসের সাথে পুরো বিষয় নিয়ে আলোচনার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে।”

 

 

উদীচী ফ্রান্স সংসদের সহ সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন হাওলাদারের পরিচালনায় এ সময় আরও বক্তব্য দেন ফ্রান্সে বাংলাদেশ দূতাবাসের দ্বিতীয় সচিব ও ইউনেস্কো বাংলাদেশে স্থায়ী প্রতিনিধি নির্ঝর অধিকারী, উদীচী ফ্রান্স সংসদের সভাপতি কিরন্ময় মণ্ডল, লেখক রবি শংকর মৈত্রী, চারণ ফ্রান্স শাখার আহ্বায়ক নিলয় সুত্রধর ও ইপিএস বাংলা কমিউনিটির পক্ষ থেকে প্রধান সমন্বয়কারী জুয়েল দাস রায় লেনিন।

ফ্রান্সে বাংলাদেশ দূতাবাসের দ্বিতীয় সচিব ও ইউনেস্কো বাংলাদেশে স্থায়ী প্রতিনিধি নির্ঝর অধিকারী তার বক্তব্যে ওবারভিলিয়ে মেরি ও উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীকে স্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করার জন্য সকল প্রকার সহযোগিতা করবে বলে রাষ্ট্রদূতের পক্ষ থেকে ঘোষণা দেন।

 

আলচনায় উদীচী ফ্রান্স সংসদের সভাপতি এবং বাংলা ভাষা ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সমন্বয়ক কিরন্ময় মণ্ডল বলেন, “উদীচীর দীর্ঘদিনের সংগ্রামের বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া শুরু হওয়াতে মেয়রকে ধন্যবাদ। সেই সাথে শহীদ বেদীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানোর জন্য উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ।” আগামী বছর স্থায়ী শহীদ বেদীতে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানোর আকাঙ্ক্ষা ব্যক্ত করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন তিনি।

 

আলোচনার শুরুতেই শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য অস্থায়ী শহীদ মিনারে প্রভাত ফেরী ও শহীদ স্মৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর আয়োজন করা হয়। এসময়  ওভারভিলিয়ে মেরির, ফ্রান্সে বাংলাদেশ দূতাবাস, চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ফ্রান্স, ইপিএস বাংলা, বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী ফ্রান্স সংসদ, কবি ও লেখক রবি শংকর মৈত্রীসহ বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠনের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

 

বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী ফ্রান্স সংসদ ভাষা দিবসের গান পরিবেশন করে।

 

আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি রোববার উদীচী ফ্রান্স সংসদের উদ্যোগে বাংলা ভাষা ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের শিশু-কিশোর এবং উদীচীর শিল্পীদের পরিবেশনায়  তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের শেষ দিনে একুশের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বাংলা ভাষা ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের হলে অনুষ্ঠিত হবে। বিকাল ৫টা থেকে এ অনুষ্ঠান সকলের জন্য উম্মুক্ত থাকবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *