Mon. Jan 27th, 2020

BANGLANEWSUS.COM

-ONLINE PORTAL

বাংলাদেশিদের স্বার্থ রক্ষায় কাজ করার জন্য অংগীকারাবদ্ধ বাপা

1 min read

বাংলাদেশী আমেরিকান পুলিশ এসোসিয়েশন(বাপা) সংবাদ সম্মেলন করেছে । তাদের সবাই বাংলাদেশী। জন্মেছেন বাংলাদেশে। অনেকেই স্কুল জীবন শেষ করেছেন বাংলাদেশ থেকে। কেউ কেউ মা-বাবার হাত ধরে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমিয়েছেন খুব অল্প বয়সে। এখন তারা সবাই বিশ্বের সেরা পুলিশ বাহিনীর (নিউইয়র্ক সিটি পুলিশ) অফিসার। কিন্তু শেকড় ভুলে যাননি। তাই পেশাগত জীবনের শত ব্যস্ততাকে উপেক্ষা করে তারা নিউইয়র্ক প্রবাসী বাংলাদেশীদের পাশে থাকতে চান। তাদের সেবা করতে চান। কম্যুউনিটির ভাগ্য উন্নয়নের অংশীদার হতে চান। এজন্য তারা বেশ কয়েক বছর আগে গড়েছেন বাংলাদেশী আমেরিকান পুলিশ এসোসিয়েশন (বাপা)। স্থানীয় সময় শুক্রবার ( ১০ জানুয়ারি ) বাপার (২০২০-২১) নব নির্বাচিত কার্যকরি কমিটির নেতারা শপথ নেন। ওইদিন সন্ধ্যায় তারা মিলিত হন নিউইয়র্কে কর্মরত সাংবাদিকদের সঙ্গে। নিউইয়র্কের বাংলাদেশী অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসের পালকি পার্টি সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বাপা আগামী দুই বছর নিউইয়র্ক সিটি পুলিশে কর্মরত ৩০০ বাংলাদেশী বংশদ্ভূত পুলিশ অফিসার, ৭০০ ট্রাফিক অফিসার, তাদের পরিবারসহ বাংলাদেশী কম্যুউনিটির জন্য কি কি সহায়তা এবং উন্নয়নকাজ পরিচালনা করবেন তার বর্ণনা সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরে।সংগঠনটির সভাপতি কারাম চৌধুরী বলেন, আমরা আমেরিকান পুলিশ হিসেবে অত্যন্ত মর্যাদার সঙ্গে এখানে কাজ করছি। কিন্তু আমাদের শেকড় রয়েছে বাংলাদেশে। আমরা বাংলাদেশকে ভালোবাসি। তাই বাংলাদেশ এবং দেশের মানুষের জন্য কিছু করতে চাই। তাদের সেবা করতে চাই। বাপার প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি সার্জেন্ট সুমন সাঈদের সঞ্চালনায় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সাধারণ সম্পাদক একে এম আলম, কম্যুউনিটি লিয়াজো ডিটেকটিভ মাসুদ রহমান, প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট এরশাদুর সিদ্দিক এবং ইভেন্ট কো-অর্ডিনেটর সরদার মামুন। উপস্থিত ছিলেন, বাপার দ্বিতীয় সহ-সভাপতি ট্রাফিক ম্যানেজার মহিউদ্দিন আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ অফিসার রাসেক মালিক, সহ-কোষাধ্যক্ষ অফিসার মেহেদী মামুন, ইভেন্ট কো-অর্ডিনেটর অফিসান সরদার মামুন, সার্জেন্ট অ্যাট আর্মস অফিসার মাহবুবুর জুয়েল এবং করেসপন্ডিং সেক্রেটারি অক্সিলারি সার্জেন্ট সৈয়দ এনায়েত আলী। এ ছাড়া মিডিয়া লিয়াজো ডিটেকটিভ জামিল সারোয়ার জনি বর্তমানে বাংলাদেশ সফরে রয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে নবনির্বাচিত সভাপতি কারাম চৌধুরী বাপার ভবিষ্যত পরিকল্পনা উপস্থাপন করেন। এসবের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগে আরো বেশি বাংলাদেশিদের অন্তর্ভুক্তিতে সহযোগিতা করা, রক্তদান কর্মসূচি, অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাস দমনে কমিউনিটির ভূমিকা, টাউন হল মিটিংয়ের আয়োজনের মাধ্যমে তথ্য আদান প্রদান, ফেডারেল, স্টেট ও সিটি প্রশাসনে চাকুরী পেতে সহায়তা প্রদান ইত্যাদি। তারা বাংলাদেশকে আমেরিকানদের কাছে যথাযোগ্য মর্যাদায় তুলে ধরার জন্য নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে একটি বাংলাদেশী প্যারেড আয়োজনের আগ্রহ প্রকাশ করেন।তারা এফবিআই পরিচালিত স্ট্রিং অপারেশন (সন্ত্রাসবাদী বা জঙ্গিবাদ) নিয়েও সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন। তারা বলেন, এফবিআই হঠাৎ করেই কাউকে ধরে ফেলে না। খারাপ কিছু নেই এমন কাউকে আটক করা এফবিআইর কাজ নয়। মনে মনে সন্ত্রাসবাদ পোষণ করেন এবং যে কোন সময় তারা এতে জড়িয়ে গিয়ে মানুষের ক্ষতি করতে পারেন এমন মানুষকেই গ্রেপ্তার করে সংস্থাটি ।

Copyright © Banglanewsus.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.