বৃহত্তর জালালাবাদ এসোসিয়েশন সুইডেন এর ঈদ পূর্নর্মিলনী ও বনভোজন সম্পন্ন ।

গত ২৩ শে জুন শনিবার বৃহত্তর জালালাবাদ এসোসিয়েশন সুইডেন এর এক আড়ম্বরপূর্ণ  ঈদ  পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান ও বনভোজন মনোরম পরিবেশে সাগরের পাড়ে  স্টকহোল্ম  কুংসাঙ্গেন এ অনুষ্ঠিত হয় ।

সংগঠনের সভাপতি জনাব খালেদ আহমেদ চৌধুরীর নেতৃত্বে সম্পূর্ণ অনুষ্ঠান পরিচালিত হয় ।

স্টকহলম সুইডেনের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সিলেটি প্রবাসী পরিবার ছেলে মেয়ে সহ এতে অংশগ্রহণ করেন ।

ঈদ পূণর্মিলনী ও  বনভোজন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন সুইডেন প্রবাসী বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী ইন্ডিয়ান গার্ডেন এর স্বত্বাধিকারী জনাব রেজাউল করিম শিশির।তিনি সবাইকে ঈদ শুভেচ্ছা এবং সুইডেনের সকল সিলেটি প্রবাসীদের একত্র হয়ে কাজ করার আহবান জানান ।বৃহত্তর জালালাবাদ সংগঠনকে এগিয়ে নিতে সর্বাত্মক সহযোগিতার  আশ্বাস দেন ।

 

সিলেটি ছাড়াও আমন্ত্রিত অতিথী হিসেবে অংশ গ্রহণ করেন অনলাইন সেন্ট্রাল বাংলা ডট কম এর পরিচালক ,সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন “আমরা ক জনা “এর সম্মানিত সাধারণ সম্পাদক সবার পরিচিত জনাব গাজী সাইফুল ইসলাম মিথুন ও তার পরিবার ,রায়হান আহমেদ ও পরিবার এবং আরো কয়েকজন ।

সকাল ১০ ঘটিকা হইতে একে একে নিজ গাড়ি ও জালালাবাদ কর্তৃক গাড়ি দিয়ে সকলে বনভোজন

স্থলে  উপস্থিত হতে থাকেন এবং বিরিয়ানী ভোজন করেন ।এর পরেই চলতে থাকে আনন্দঘন বিভিন্ন খেলা

শিশুদের দৌড়,বল নিক্ষেপ,মহিলাদের জনপ্রিয় বালিশ খেলা প্রতিযোগিতা ও বল নিক্ষেপ,পুরুষদের ফুটবল ও ভলিবল খেলা ।আর সবগুলো খেলায় ছিল আকর্ষণীয় পুরুস্কার। খেলা পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন সৈয়দ আবিদুর রহমান সুমন এবং সহযোগিতায় সুমন পুরকায়স্থ ।বিরিয়ানী সহ রান্নার দায়িত্বে ছিলেন আনোয়ার কাদেরচৌধুরী ,সৈয়দ ফুজেল এবং সুহেল আহমেদ স্বপন ।সার্বক্ষণিক গ্রীলে থেকে সহযোগিতা করেন অদুদ আহমেদ ও করিম খান ।সবশেষে ছিল আকর্ষণীয় লটারি ড্র ।এর পুরস্কার ছিল সুইডেন থেকে লন্ডন যাওয়া আসা বিমান টিকেট।

মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সংগঠনের সাংকৃতিক সম্পাদক শেখর দাদা এবং সুপ্রিম চৌধুরী ।উল্লেখ্য যে সভাপতি খালেদ আহমেদ চৌধুরী এবং রেজাউল করিম শিশির ভাইয়ের সংগীত এবং নৃত্য পরিবেশন সবাইকে আনন্দে ভরিয়ে তুলে । আয়োজনে আরো সহযোগিতায় ছিলেন বাসিত চৌধুরী, জামাল মিয়া ,তনয়া চৌধুরী রিনি,সৌমিতা দেব, মিসেস শেখর, পিঙ্কু ,শ্যামল সহ আরো অনেকে ।

বৃহত্তর জালালাবাদ এসোসিয়েশনের নির্বাচিত সভাপতি খালেদ আহমেদ চৌধুরী তার বিচার বুদ্ধি বিবেচনা মেধা  শ্রম এবং আর্থিক ভাবে সহ সর্বপ্রকার সৎ নেতৃত্বে এই সংগঠনকে আরো শক্তিশালী করে এগিয়ে নিতে বদ্ধ পরিকর ।

সিলেটি সহ সকলের সহযোগিতা কামনা করে এবং সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.