ভালেন্সিয়াকে হারিয়ে ফাইনালে বার্সা

ঘরের মাঠে সুয়ারেজের দেওয়া গোলে জিতে আগেই কোপার ফাইনালে এক পা দিয়ে রেখেছিল বার্সা। এবার ভালেন্সিয়ার মাঠ থেকেও জয় নিয়ে ফিরেছে দলটি। বৃহস্পতিবার সেমি-ফাইনালের দ্বিতীয় লেগে কুতিনহো ও রাকিটিকের দেওয়া গোলে ২-০ গোলে জেতে বার্সেলোনা। দুই লেগ মিলে ৩-০ গোলের জয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে দলটি।

 

প্রতিপক্ষের মাঠে ম্যাচের নবম মিনিটেই গোলের সুযোগ পায় মেসি। ডি বক্সের বাইরে থেকে তার নেওয়া ফ্রি কিক বাঁদিকে ঝাপিয়ে পড়ে ঠেকিয়ে দেন স্বাগতিক দলের গোলরক্ষক। পাল্টা এক আক্রমণে ম্যাচের ১৪ মিনিটে গোলের সুযোগ পেয়েছিল স্বাগতিকরাও। তবে রদ্রিগো মরেনোর হেড পোস্টে ফিরে।

 

পরের মিনিটেই গোলের সুযোগ নষ্ট করে সুয়ারেজ। ইনিস্তার বাড়ানো বল ডি বক্সে পেয়েও জালে জড়াতে ব্যর্থ হন উরুগুয়ের এই তারকা। এদিকে ম্যাচের ২৭ মিনিটে রদ্রিগওর আরেকটি প্রচেষ্টা রুখে দেন বার্সা গোলরক্ষক। ফলে প্রথমার্ধে গোল শূন্য অবস্থায় বিরতিতে যায় দুই দল।

 

 

 

বিরতি থেকে ফিরে গোমেজের পরিবর্তে মাঠে নামেন কুতিনহো। মাঠে নামার ৪ মিনিট পরই বার্সাকে লিড এনে দেন ব্রাজিলিয়ান এই তারকা। বাঁ-দিক দিয়ে আক্রমণে ওঠা সুয়ারেজের বাড়ানো ক্রসে স্লাইড করে নেওয়া শটে বল জালে জড়ান এই মিডফিল্ডার। ম্যাচের ৮২ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রাকিটিক। সুয়ারেজের বাড়ানো বল জালে জড়ান ক্রোয়েশিয়ার এই তারকা।

 

বাকি সময় আর গোল না হলে জয়ের আনন্দ নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সা। ফাইনালে প্রতিযোগিতার পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন সেভিয়ার মুখোমুখি হবে ভালভারদের দল।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *