মতলব-কচুয়া সড়ক যেন মরণ ফাঁদ

রহিম বাদশা, চাঁদপুর ॥
চাঁদপুর জেলার মতলব-কচুয়া সড়কটি ক্ষত-বিক্ষত হয়ে মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। দীর্ঘ ৪ বছর ধরে সড়কটির এ করুণ দশায় যানবাহনসহ হাজার হাজার জনগণের চলাচলে নিদারুণ সমস্যা হচ্ছে। বিশেষ করে কলেরা ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত কচুয়া, হাজীগঞ্জ ও কুমিল্লা জেলার মানুষকে এই পথেই মতলব আইসিডিডিআরবি হাসপাতালে যেতে হয়।
স্থানীয়রা জানান, ওই সড়কে বাস, সিএনজি অটোরিক্সা, মাইক্রোবাসসহ মালবাহী ট্রাক চলাচলের ক্ষেত্রে চরম ঝুঁকি নিয়ে চলতে হয়। এসব যানবাহন প্রায়’ই দুর্ঘটনার শিকার হয়। বিকল্প সহজসাধ্য কোনো সড়ক না থাকায় বাধ্য হয়েই লোকজন সড়কটি ব্যবহার করছে।
মতলব দক্ষিণ উপজেলার দগরপুর, নওগাও, ডুলিয়াপাড়া, দেলদিয়া, চড়পয়ালি, পয়ালি, চাপাতিয়া, জোড়পুল, কাশিমপুর এবং কচুয়ার চৌমুহনি বাজার, দোগর মোড়, গুলবাহার, বাতাবাড়িয়া হয়ে কচুয়া বাজার পর্যন্ত এলাকায় সড়কটির অবস্থা অত্যন্ত করুণ। যানবাহন তো দূরের কথা, ওইসব এলাকায় সড়কটি দিয়ে পায়ে হাঁটাও কষ্টসাধ্য। দীর্র্ঘদিন ধরে এই বেহাল দশা বিরাজ করছে।
এ বিষয়ে মতলব দক্ষিণ উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ শাহ আলম বলেন, সড়কটির জন্য গতবছর আমাদের উপজেলা এলজিইডি বিভাগ থেকে ১ কোটি ১৪ লাখ টাকার টেন্ডার হয়েছিল কিন্তু জেলা সড়ক ও জনপথ বিভাগ বলছে এ সড়কটি তাদের আওতায় নিয়েছে। আশা করি শীঘ্রই কাজ শুরু হবে।
মতলব দক্ষিণ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক সিরাজুল মোস্তফা তালুকদার বলেন, এ সড়কটি দিয়ে আমার বাড়িতে যেতে খারাপ লাগে। আমি এই সড়কটির ব্যাপারে মন্ত্রী মহোদয়কে জানিয়েছি। খুব শীঘ্রই সড়ক ও জনপথ বিভাগ কাজ শুরু করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.