মধ্য খাড়িকাটা বৌদ্ধ বিহারে অনুষ্ঠিত হলো ১ম কঠিন চীবর দান

প্রকাশিত:শনিবার, ০৭ নভে ২০২০ ১১:১১

মধ্য খাড়িকাটা বৌদ্ধ বিহারে অনুষ্ঠিত হলো ১ম কঠিন চীবর দান

 

সুপ্রিয় চাকমা শুভরাঙ্গামাটি

পার্বত্য চট্টগ্রামে ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত বন্ধ প্রার্থনা ও বিশ্বের সকল প্রাণীর সুখ শান্তি কামনায় প্রথমবারের মত লংগদু উপজেলার সদর ইউনিয়নের মধ্য খাড়িকাটা বৌদ্ধ বিহারে দু’দিনব্যাপী  দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

দু’দিনব্যাপী কর্মসূচিতে শুক্রবার রাতে চীবর বুননের মধ্য দিয়ে শনিবারে বুদ্ধপূজা, বুদ্ধ মুর্তিদান, সংঘদান,অষ্টপরিষ্কার দান, কঠিন চীবর দান, হাজার বাতি দান, আকাশ প্রদীপ ও নানাবিধ দানের উৎসর্গ করা হয়।  অনুষ্ঠানে দূর-দূরান্ত থেকে হাজারো পুণ্যার্থীর সমাগম ঘটে। উৎসব মূখর পরিবেশে উদযাপিত হয়েছে বৌদ্ধদের দানোত্তম কঠিন চীবর দান।

দুপুরে কঠিন চীবর ও কল্পতরুকে প্রদক্ষিণ করে কাপ্তাই হ্রদে ইঞ্জিন চালিত নৌকায় আনন্দ শোভা যাত্রা করা হয়। কঠিন চীবর ও কল্পতরুকে প্রদক্ষিণ করা হয় পুরো গ্রামে। সাধু সাধু ধ্বনিতে মূখর হয়ে উঠে দানোৎসব।

পরে ভগবান  বুদ্ধের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য প্রদানসহ ও ভিক্ষু সংঘকে ফুলের তোরা দিয়ে বরণ করে নেন পুর্ণ্যার্থীরা । অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন  তন্দ্রা চাকমা। পঞ্চশীল প্রার্থনা পাঠ করেন  সুচমা চাকমা (পুতলী) ও  গনেশচন্দ্র চাকমা।  স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উদযাপন কমিটির সাধারন সম্পাদক সনি চাকমা। পাবর্ত্য চট্টগ্রামে ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত বন্ধে ভিক্ষু সংঘের নিকট বিশেষ প্রার্থনা পাঠ করেন তরুণা চাকমা।

অনুষ্ঠানে ধর্ম দেশনা দেন , সাধনাগিরি বন কুটিরের অধ্যক্ষ ভদন্ত শ্রীমৎ সুধর্মা লংকার স্থবির,  টিনটিলা বনবিহারের বিহার অধ্যক্ষ ভদন্ত শ্রীমৎ ধর্মলোক স্থবির, প্রশান্তি অরণ্য কুটির অধ্যক্ষ ভদন্ত শ্রীমৎ শুভপ্রিয় স্থবির,  মধ্য খাড়িকাটা ত্রিরত্ন বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত শ্রীমৎ ধর্মজ্ঞান ভিক্ষুসহ অন্যান্য প্রমূখ ভিক্ষু।

এসময় ভান্তে সংঘ ধর্মদেশনায় বলেন, ভগবান বুদ্ধ সময়কালীন তিনি বলেছেন, হিংসা মারামারি দিয়ে কখনো সুখ শান্তি ফিরে আসে না। ভগবান বুদ্ধ কিংবা কোনো বৌদ্ধ ভিক্ষু বলেননি ভাইয়ে ভাইয়ে হানাহানি-মারামারি করার জন্য। তিনি কখনো বলেননি একে-অপরের প্রতি হিংসায় লিপ্ত হতে। হিংসাকে ত্যাগ করে সকলের জীবের প্রতি মৈত্রী দেওয়ার কথা তিনি বলেছেন।

 

এই সংবাদটি 1,233 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •