মার্কিন কংগ্রেসের শুনানিতে কোণঠাসা অ্যামাজন, অ্যাপল, গুগল ও ফেসবুক

প্রকাশিত:শুক্রবার, ৩১ জুলা ২০২০ ০৯:০৭

মার্কিন কংগ্রেসের শুনানিতে কোণঠাসা অ্যামাজন, অ্যাপল, গুগল ও ফেসবুক

অ্যামাজন, অ্যাপল, গুগল এবং ফেসবুকের বিরুদ্ধে মার্কিন কংগ্রেসের অ্যান্টিট্রাস্ট শুনানিতে প্রতিষ্ঠানপ্রধানদের প্রশ্নবাণে কোণঠাসা করেছেন নীতিনির্ধারকরা। বাজারে নিজেদের ক্ষমতার অপব্যবহার করেছে গুগল এবং ফেসবুক, বিশেষভাবে এই প্রতিষ্ঠান দুইটির বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করেছেন ডেমোক্রেট এবং রিপাবলিকান প্রতিনিধিরা। চার প্রযুক্তি জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানের প্রধানই এমন আচরণের কথা স্বীকার করেছেন বলে দাবি করেছেন মার্কিন হাউজ অফ রিপ্রেজেনটেটিভসের চেয়ারম্যান।

ফেসবুক, অ্যামাজন, অ্যালফাবেট এবং অ্যাপলের সম্মিলিত বাজার মূল্য প্রায় পাঁচ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার। বাজারের দখল বাড়াতে এই প্রতিষ্ঠানগুলো একই ধরনের ছোট প্রতিষ্ঠানগুলোকে দমিয়ে রেখেছে বলে অভিযোগ দীর্ঘদিনের। মার্কিন কংগ্রেসে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে এই শুনানির মাধ্যমে প্রথমবারের মতো নীতিনির্ধারকদের সামনে একসঙ্গে হাজির হয়েছেন এই চার প্রযুক্তি জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী। এবারই প্রথম কংগ্রেসের মুখোমুখি হয়েছেন অ্যামাজনপ্রধান জেফ বেজোস। বেজোসের চেয়েও কম প্রশ্নবাণ এসেছে অ্যাপলপ্রধান টিম কুকের দিকে এবং সেগুলোর কার্যকর জবাবও দিয়েছেন তিনি। নীতিনির্ধারকদের প্রশ্নে তুলনামূলক বেশি কোণঠাসা হয়েছেন ফেসবুকপ্রধান মার্ক জাকারবার্গ। অভ্যন্তরীণ ইমেইল নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের সময় হোঁচট খেয়েছেন তিনি।

সবচেয়ে বেশি প্রশ্নের তির এসেছে অ্যালফাবেট এবং গুগলপ্রধান সুন্দার পিচাইকে লক্ষ্য করে। প্রশ্নের জবাব দিতেও সবচেয়ে অপ্রস্তুত মনে হয়েছে পিচাইকে। বারবারই নীতিনির্ধারকদের পিচাই বলেন, ‘আমি এই বিষয়টি খতিয়ে দেখব এবং আপনাদের এটি জানাব।’ শুনানির এক পর্যায়ে একে অপরের দিকে চিত্কারও করেছে নীতিনির্ধারকরা। মহামারির প্রসঙ্গ তুলে এক জন চিত্কার করে বলেন, ‘আপনার মাস্ক পরুন!’ গুগলের বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ এনে অ্যান্টিট্রাস্ট শুনানির সুর বেঁধেছেন প্যানেল চেয়ারম্যান ডেভিড সিসিলিন।

 

ইয়েপ ইনকরপোরেটেড থেকে পর্যালোচনা চুরি এবং বিরোধিতা করলে অনুসন্ধান ফলাফল থেকে ইয়েপকে বাদ দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে, গুগলের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এনে সিসিলিন বলেন, ‘সত্ ব্যবসা থেকে গুগল কনটেন্ট চুরি করছে কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে পিচাই বলেন, এই অভিযোগের বিষয়ে নির্দিষ্ট কিছু তথ্য জানতে চান তিনি। অভিযোগের বিরোধিতা করে গুগল এবং অ্যালফাবেটপ্রধান বলেন, ‘আমরা আমাদের উচ্চমান হিসেবে বিবেচনা করি।’

২০১২ সালে ইনস্টাগ্রাম অধিগ্রহণ বিষয়ে বেশ কিছু প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছেন ফেসবুকপ্রধান মার্ক জাকারবার্গ। ইনস্টাগ্রাম ফেসবুকের জন্য হুমকি হতে পারে, এ কারণেই ফেসবুক এই অধিগ্রহণ করেছে কি না, তাও জানতে চেয়েছেন নীতিনির্ধারক প্যানেল। জবাবে জাকারবার্গ বলেন, অধিগ্রহণের সময় ছোট একটি ছবি শেয়ারিং অ্যাপ ছিল ইনস্টাগ্রাম, সামাজিক মাধ্যমের কোনো বিস্ময় নয়। প্রযুক্তি জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে অ্যান্টিট্রাস্ট অভিযোগ এবং কী কী পরিবর্তন আনা দরকার সে বিষয়ে গ্রীষ্মের শেষে বা বসন্তের শুরুতে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করতে পারে কমিটি।

 

 

 

এই সংবাদটি 1,228 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •