মালয়েশিয়ার প্রাতিষ্ঠানিক পরিবর্তনে মাহাথিরের প্রয়োজন : ইব্রাহিম

মালয়েশিয়ার প্রাতিষ্ঠানিক পরিবর্তনে মাহাথিরের প্রয়োজন বলে মনে করছেন আনোয়ার ইব্রাহিম। শনিবার রাতে দেশটির ‘সেবেরাং জায়া’তে দেয়া ভাষণে তিনি এ কথা বলেন। ক্ষমতার ভাগাভাগি নিয়ে মাহাথিরের সঙ্গে তার দুটি দীর্ঘ বৈঠক হয়েছিল।

 

মালয়েশিয়ার গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোর সমাধানের জন্য নতুন প্রধানমন্ত্রীকে সময় দিতে সরকারের পদ নিতে মাহাথিরের প্রস্তাব গ্রহণ করেননি বলে জানিয়েছেন পিপলস জাস্টিজ পার্টির (পিকেআর) নেতা আনোয়ার ইব্রাহিম।

 

 

 

ইব্রাহিম বলেন, ‘আমার সঙ্গে মাহাথির প্রথম বৈঠকটি করেন হাসপাতালে এবং তারপর গত সপ্তাহে তার অফিসে দ্বিতীয় বৈঠকটি হয়েছে। বৈঠকে তিনি আমাকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, আমি কোনো পদ চাই কিনা’। আমি তাকে ‘না’ বলেছিলাম, কারণ দেশের প্রাতিষ্ঠানিক পরিবর্তন করতে আমি তাকে সময় দিতে চেয়েছি।’

 

তিনি আরও বলেন, ‘আমি দেখতে পাচ্ছি যে জনগণও তার নেতৃত্বকে ভালোভাবে গ্রহণ করেছে। তিন বছর কারাভোগের পর ১৫ মে মুক্তি পান আনোয়ার ইব্রাহিম। দেশটির জনপ্রিয় এই নেতা জানান, নির্বাচনে তাদের সমর্থনের জন্য ভোটারদের ধন্যবাদ জানাতে তিনি কিছু সময়ের জন্য পুরো দেশ সফর করতে চান।

 

 

 

 

 

আনোয়ার বলেন, ‘এখন অন্তত আমার পরিবারের সঙ্গে থাকতে ও কিছু লেখালেখি করার জন্য সময় আছে।’ এছাড়াও, মাহাথিরের অতীত অন্যায় কর্মের জন্য তাকে ক্ষমা করে দেয়ার জন্য আনোয়ার তার সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানান। একইসঙ্গে দেশ পুনর্গঠনে ‘পাকাতান হারাপান’ প্রধানের প্রতি বিশ্বাস রাখতেও তিনি অনুরোধ জানান।

 

তিনি বলেন, মালয়েশিয়াকে সংস্কার করার এবং দুর্নীতি থেকে মুক্তির জন্য মাহাথিরের আন্তরিকতার কারণে তিনি নিজে তাকে (মাহাথিরকে) ক্ষমা করেছেন।

 

যিনি একটা সময় তাকে কারাগারে পাঠিয়েছিলেন, সেই ব্যক্তিকে ক্ষমা করা খুব সহজ ছিল না বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, ‘আমি তাকে ক্ষমা করেছি। আমি আন্তরিকভাবে তাকে ক্ষমা করেছি। তিনি নিজেই স্বীকার করেছেন যে আমাকে বরখাস্ত করা তার অনেক বড় ভুল ছিল। কেউ যদি নিজের ভুল স্বীকার করে নেয়, তখন আর কি বলার থাকতে পারে? আমি মনে করি ক্ষমার জন্য এটি যথেষ্ট।’

 

তিনি বলেন, ‘জবাবে আমি তাদের এই কথা বলেছি, আমি তার কারণে কারাভোগ করেছি ঠিক আছে, তারপরেও আমি তাকে ক্ষমা করেছি। দ্বন্দ্ব ভুলে আমরা কি এগিয়ে যেতে পারি না?’

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *