যুক্তরাষ্ট্রের নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও

সিআইএর সাবেক পরিচালক মাইক পম্পেও যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার সিনেটে ৫৭-৪২ ভোটে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ কূটনীতিক নির্বাচিত হন তিনি।

 

গত মার্চে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পদ থেকে রেক্স টিলারসনকে সরিয়ে দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওই সময় তিনি টিলারসনের জায়গায় পম্পেওকে পররাষ্ট্র দপ্তরের দায়িত্ব দেওয়ার কথা জানিয়েছেন। কিন্তু এজন্য সিনেটের অনুমোদনের প্রয়োজন ছিল।

 

মার্কিন সিনেট রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত। বৃহস্পতিবারের ভোটে রিপাবলিকান সিনেটররা সবাই পম্পেওর পক্ষে ভোট দিয়েছেন বলে জানায় বিবিসি। ছয় ডেমক্রেট সিনেটর তাদের সঙ্গে যোগ দেন।

 

যদিও ডেমক্রেট নেতাদের অভিযোগ, পম্পেও যুদ্ধবাজ এবং মুসলিম বিরোধীদের আশ্রয়দাতা।

 

নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী পম্পেওর প্রশংসা করে এক বিবৃতিতে ট্রাম্প বলেন, “তিনি এমন একজন যিনি সব সময় আমেরিকানদের সর্বাগ্রে রাখবেন।

 

“মাইকের মত একজন দেশভক্ত আমাদের দেশের জন্য দারুণ সম্পদ হয়ে উঠবেন, বিশেষ করে ঐতিহাসিক এ সময়ে। তিনি তার অপার মেধা, শক্তি ও বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে পররাষ্ট্র দপ্তর পরিচালনা করবেন।”

 

এরই মধ্যে পম্পেও উত্তর কোরিয়া সফর করে এসেছেন। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে ট্রাম্পের সম্ভাব্য বৈঠকের বিষয়ে আলোচনার জন্যই তিনি সেখানে গেছেন।

 

পম্পেও ওই সফরে কিমের সঙ্গে ‘সুসম্পর্ক গঠন করতে সক্ষম’ হয়েছেন বলে দাবি ট্রাম্পের।

 

আগামী জুনে ট্রাম্প ও কিমের বৈঠক হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.