রাজনীতিতে নারীদের পিছনে রেখে টেকসই উন্নয়ন হবে না

রাজনীতিতে নারীদের একটি অংশকে পিছনে রেখে কখনোই টেকসই উন্নয়ন হবে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ।

 

নির্বাচনের বিধান না রেখে মনোনয়নের মাধ্যমে জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসন আরও ২৫ বছর বহাল রাখার প্রতিবাদে আয়োজিত সমাবেশে বক্তারা এ কথা বলেন। মঙ্গলবার (১৭ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

 

 

 

সমাবেশে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আয়শা খানম বলেন, বাংলাদেশ বিভিন্ন সূচকে অনেক দূর এগিয়েছে। দেশের নারীরা যেমন হিমালয়ের চূড়ায় উঠেছে তেমনি সবক্ষেত্রে তাদের দক্ষতা ও আন্তরিকতার স্বাক্ষর রেখেছে। কিন্তু সেই নারীরাই আজ রাজনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়ছে। রাজনীতিতে নারীদের একটি অংশকে পিছনে রেখে কখনোই টেকসই উন্নয়ন হবে না।

 

তিনি আরও বলেন, যে নারী দেশের অর্থনীতিকে সচল রেখেছে, একটি দেশকে অনুন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশের দিকে পৌঁছাতে ক্রমাগত প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে সাহায্য করে যাচ্ছে সেই নারীদের কেন জাতীয় সংসদে দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হিসেবে রাখা হবে। ২০০৭ সালে নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষণা দিয়েছিল তারা যদি দুই তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসাবে নির্বাচিত হয় তাহলে সংসদে নারীদের সরাসরি নির্বাচনের বিষয়টি সংশোধন করবেন। ওই সংসদে ২০১৮ সালে তারা জাতীয় সংদের সংরক্ষিত আসনের মেয়াদ বৃদ্ধির ঘোষণা দিলেন?

 

সমাবেশে বক্তারা বলেন, স্থানীয় সরকারে নারী জনপ্রতিনিধিরা যদি সরাসরি নির্বাচিত হতে পারেন তাহলে জাতীয় সংসদেও নারীরা পারবেন। কাজেই জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে সরাসরি নির্বাচনের ব্যবস্থার বিষয়টি যেন সরকার আবারো পুনর্বিবেচনা করেন সেই দাবি জানায়।

 

 

 

সমাবেশের পর বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের নেত্রী ও সংগঠকদের নেতৃত্বে একটি মিছিল বের হয়ে জিরো পয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়। সমাবেশ পরিচালনা করেন সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত আন্দোলন সম্পাদক রেখা চৌধুরী।

 

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সহ সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম, সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, রাখী দাশ পুরকায়স্থ, সীমা মোসলেম, সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাসুদা রেহানা বেগম, উম্মে সালমা বেগম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *