রায়হান হত্যার প্রতিবাদে উলামা পরিষদ বাংলাদেশের সমাবেশ অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:শুক্রবার, ১৬ অক্টো ২০২০ ০৯:১০

রায়হান হত্যার প্রতিবাদে উলামা পরিষদ বাংলাদেশের সমাবেশ অনুষ্ঠিত

উলামা পরিষদ বাংলাদেশ গুম, খুন, ধর্ষণ ও সিলেট বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে রায়হান হত্যার প্রতিবাদে উলামা পরিষদ বাংলাদেশের উদ্যোগে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার বাদ জুম্মা সিলেট সিটি পয়েন্টে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

 

উলামা পরিষদ বাংলাদেশের সভাপতি দরগাহ মাদ্রাসার মুহতামিম ও শায়খুল হাদিস মাওঃ মুফতি মুহিব্বুল হক গাছবারীর সভাপতিত্বে ও সংগঠনের সেক্রেটারী মাওঃ আবুল হাসান ফয়সল, মাওঃ মুহিবুর রহমান মিটিপুরী, মাওঃ সিরাজুল ইসলাম এবং মুফতি রশীদ আহমদের যৌথ পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

এসময় মেয়র আরিফুল হক বলেন, আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে রায়হান হত্যার আসামীদের গ্রেফতার করতে প্রশাসন ব্যর্থ হলে সিলেটের সকল রাজনৈতিক, সামাজিক, সংগঠন ও উলামা পরিষদের নেতৃবৃন্দকে নিয়ে সিলেটের নিরপত্তার স্বার্থে আমরা কঠোর কর্মসূচী দিতে বাধ্য হবো।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বলেন, সরকার ইতোমধ্যে ধর্ষকদের মৃত্যুদন্ডের আইন পাশ করেছেন এবং দেশের উন্নয়নের কাজ করে যাচ্ছে, কিন্তু কিছু দুস্কৃতিকারী পুলিশ সদস্য ও ব্যক্তিদের কারনে সরকারের সফলতাকে বিনষ্ট করা যাবে না। রায়হান হত্যার খুনীরা কিভাবে পালালো তা তিনি প্রশাসনের প্রতি জানতে চান।

তিনি আরো বলেন, অপরাধীদের কোন দল, জাত ও পেশা নেই। তার পরিচয় সে অপরাধী।

সভাপতির বক্তব্যে উলামা পরিষদ বাংলাদেশের সভাপতি দরগাহ মাদ্রাসার মুহতামিম ও শায়খুল হাদিস মাওঃ মুফতি মুহিব্বুল হক গাছবারী বলেন, আমরা সরকারের কাছে আজ ১৩ দফা দাবী উপস্থাপন করলাম। তার বাস্তবায়ন আমরা দেখতে চাই এবং উলামাকেরাম যখন যে আন্দোলন শুরু করেন তার শেষ দেখেই ঘরে ফিরেন। অতএব আমরা দেশের শান্তির স্বার্থে এই ১৩ দফার বাস্তবায়ন চাই।

বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, উলামা পরিষদ বাংলাদেশের সহসভাপতি মাওঃ  রেজাউল করিম জালালী, মাওঃ মোস্তাক আহমদ খান, এডভোকেট আব্দুর রকিব, কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েছ লোদী, হুমায়ুন আহমদ মাসুক, মাওঃ খলিলুর রহমান, মাওঃ গাজী রহমত উল্লাহ, মাওঃ সৈয়দ শামীম আহমদ, মাওঃ ইকবাল আহমদ, মাওঃ জাহিদ উদ্দিন চৌধুরী, মাওঃ নাসির উদ্দিন, মাওঃ  হাবিব আহমদ শিহাব, মাওঃ হারুনুর রশীদ আল আজাদ, মাওঃ নিয়ামত উল্লাহ খাসদবিরী, মাওঃ আহমদ ছগির, মাওঃ মাসুক আহমদ সালামী, মাওঃ শরীফ উদ্দিন, মাওঃ হাফিজ জাবেদুল ইসলাম,  মাওঃ মুহি উদ্দিন,

উলামা পরিষদ বাংলাদেশ ১৩ দফার দাবীগুলোর মধ্যে রয়েছে- (১) ইসলামী বিধানের আলোকে দ্রুত সময়ের মধ্যে ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা, (২) সিলেট বন্দরবাজার পুলিশ ফাড়িতে রায়হান হত্যার, বিচার বিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করা (৩)  সিলেটের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ এম.সি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষর্নের মত ন্যাক্কারজনক ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি অবিলম্বে কার্যকর করা, (৪) গুম-খুনসহ সারাদেশে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হেফাজতে বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড বন্ধ করা, (৫) শাহবাগসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ধর্ষকদের বিচারের দাবির অন্তরালে ইসলাম বিরোধী বক্তব্য ও নাস্তিকতার আস্ফালন বন্ধ করা, (৬) আধ্যাত্মিক রাজধানী সিলেটসহ দেশের আবাসিক হোটেল সমূহে ও বিভিন্ন স্থানে অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধ করা, (৭) বাল্য বিবাহের আইনকে ইসলামী শরীয়ার বিধান মতে সংশোধন করা, (৮) অশ্লীল ছায়াছবি, সিনেমা, নাটক, টেলিফিল্ম ও পর্ণগ্রাফিসহ বিভিন্ন প্রকার বিজ্ঞাপনে নারীদের ছবি প্রদর্শন বন্ধ করা, (৯) ধর্মীয় শিক্ষাকে গুরুত্ব দিয়ে ছেলে মেয়েদের পৃথক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালু করা, (১০) নিত্য প্রয়ােজনীয় দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন উর্ধ্বগতি বন্ধ করা, (১১) দলীয় দৃষ্টিভঙ্গির উর্ধ্বে উঠে সকল অপরাধের ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা, (১২) দেশের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষা সিলেবাসে ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক চালু করা ও সমগ্র বিশ্বে চলমান করোনা মহামারি থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনসহ দেশের সকল জনসাধারণকে পাপাচার বাদ দিয়ে বেশি বেশি নেক আমল সহ মহান আল্লাহ তায়ালার দরবারে তাওবা ও ইস্তিগফার করার জন্য আহবান জানানো হয়।

 

 

 

এই সংবাদটি 1,228 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •