লন্ডনে বাংলাদেশি ওয়ার্কার্স কাউন্সিলের মে দিবসের কর্মসূচি

লন্ডনে গণসমাবেশ ও গণসঙ্গীত দিয়ে মহান মে দিবস পালন করেছে ‘বাংলাদেশি ওয়ার্কার্স কাউন্সিল’ যুক্তরাজ্য শাখা।

 

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকেলে পূর্ব লন্ডনের ইস্টহাম ওয়ার্কিংম্যান ক্লাবের মিলনায়তনে এ সমাবেশ হয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

 

আয়োজক সংগঠনের সদস্য সচিব শাহরিয়ার বিন আলীর সঞ্চালনায় এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির আহ্বায়ক আবেদ আলী আবিদ।

 

‘মহান মে দিবসের চেতনায় সারা বিশ্বের শ্রমজীবী মানুষ উজ্জীবিত হোক এবং শোষণমুক্ত সমতার বিশ্ব গড়ার সংগ্রামে নিয়োজিত পৃথিবীর সব শ্রমজীবী মানুষের প্রতি লড়াকু সংহতি’ এ শ্লোগানে সমাবেশ থেকে বর্ণবাদ বিরোধী আন্দোলনে নিহত বাংলাদেশি পোশাককর্মী শহীদ আলতাব আলীর ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকীতে তাকে স্মরণ করা হয়।

সমাবেশে মে দিবসের ইতিহাস ও তাৎপর্য ব্যাখ্যা করে বক্তব্য দেন- যুক্তরাজ্যের পরিবহন শ্রমিক নেতা ও আরএমটি ইউনিয়নের জ্যেষ্ঠ সহ সাধারণ সম্পাদক স্টিভ হেডলি, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি যুক্তরাজ্যের সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য রফিকুল হাসান জিন্নাহ, যুক্তরাজ্য কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক রবার্ট গ্রিফিথ, নিউহ্যামের লেবার পার্টির মেয়রপ্রার্থী রোকসানা ফায়েজ, ট্রেড ইউনিয়ন নেতা ও বর্ণবাদ বিরোধী আন্দোলনের নেতা কাউন্সিলর স্যাম টেরি, কমিউনিটির প্রগতিশীল আন্দোলনের নেতা মাহমুদ এ রউফ, আলতাব আলী ফাউন্ডেশনের সহ সভাপতি নুরউদ্দিন আহমদ, উদীচী যুক্তরাজ্যের হাসনীন চৌধুরী, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন যুক্তরাজ্যের সভাপতি ইফতেখারুল হক পপলু, স্থানীয় কাউন্সিলর ট্রেড ইউনিয়ন নেতা এনাম ইসলাম, শ্রমিক নেতা বাবলু খন্দকার, বর্ণবাদ বিরোধী আন্দোলনের নেতা ডেভিড রোসেনবারগ ও যুক্তরাজ্যের সংবাদপত্র ‘মরনিং স্টারের’ কেলভিন টাকার।

 

বক্তারা বলেন, শ্রমিকের ভাগ্যের পরিবর্তন করতে হলে পুঁজিবাদী সমাজের মালিক ও শাসক শ্রেণির শোষণ-বঞ্চনার অবসান ঘটাতে হবে। শ্রমিক-মেহনতি মানুষের অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার এ লড়াইয়ে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

সমাবেশের এক ঘোষণায় রানা প্লাজা, তাজরিন ও স্পেকট্রামের ঘটনাসহ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে হতাহত শ্রমিকদের পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণ, দোষীদের অবিলম্বে শাস্তি, শ্রমিকদের নিরাপদ ও স্বাস্থ্যকর কর্মস্থল নিশ্চিত করা, স্বীকৃত দৈনিক কর্মঘণ্টা নিশ্চিত করা ও ন্যায্য মজুরি দেওয়ার দাবি জানানো হয়।

 

সভায় উপস্থিত থেকে এতে সংহতি জানান লেবার পার্টির নেতাকর্মী, বিভিন্ন দেশের শ্রমিক সংগঠনের প্রতিনিধি, যুক্তরাজ্যের মূলধারার ট্রেড ইউনিয়ন ও বামপন্থী রাজনৈতিক দল, বাংলাদেশের প্রগতিশীল বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধি ও প্রবাসী বাঙালি শ্রমিকরা।

সমাবেশে গণসঙ্গীত পরিবেশন করেন বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী যুক্তরাজ্য সংসদের শিল্পীরা। এছাড়া গান শোনায় ব্যান্ড দল ‘স্টিভ হোয়াইট অ্যান্ড প্রটেস্ট ফ্যামিলি’ ও ‘গ্রেট ইডিশ প্যারেড’।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.