Fri. Feb 21st, 2020

BANGLANEWSUS.COM

-ONLINE PORTAL

সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে থাকবে বঙ্গবন্ধু কর্নার

1 min read

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’ করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

‘বঙ্গবন্ধু কর্নারে’ বঙ্গবন্ধু ও দেশের স্বাধীনতার ইতিহাস সমৃদ্ধ বইগুলো স্থান পাবে। তরুণ প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধু, স্বাধীনতা সংগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধসহ দেশের ইতিহাস সম্পর্কে জানতে এই উদ্যোগ নিয়েছে সংগঠনটি।

এরই মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ডাকসুর উদ্যোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮টি হলের গ্রন্থাগার ও কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্কুল পর্যন্ত দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন করা হবে।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘‘আমরা চাইছি বঙ্গবন্ধু ও মহান মুক্তি সংগ্রামের সঠিক ইতিহাস তরুণ প্রজন্ম হৃদয়ে ধারণ করুক। একজন দেশপ্রেমিক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে এই ইতিহাস জানা খুব প্রয়োজন। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে কীভাবে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে দেশ স্বাধীন হলো ইতিহাসের সেই বাঁকে বাঁকে এই প্রজন্মের যাওয়া উচিত।

‘বঙ্গবন্ধু কর্নারে বঙ্গবন্ধুর আত্নজীবনীমূলক বইগুলোসহ মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক বই থাকবে। সেগুলো পড়ে আমাদের তরুণ প্রজন্ম দেশের প্রতি তার ত্যাগ, মানুষের প্রতি ভালোবাসা আর দেশকে স্বাধীন করার সংগ্রামের ইতিহাস জানতে পারবে এবং নিজেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুসরিত হবে।

‘বঙ্গবন্ধু কর্নার থেকে শিক্ষার্থীরাও বঙ্গবন্ধুকে ব্যাপকভাবে জানতে পারবে। বঙ্গবন্ধুর ‘অসামাপ্ত আত্মজীবনী’, ‘কারাগারের রোজনামচা’, ‘আমার দেখা নয়া চীন’; পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার বঙ্গবন্ধুকে দেয়া রিপোর্ট যেগুলো খণ্ড আকারে বই বের হচ্ছে সেসব বই এবং বঙ্গবন্ধু ও দেশের স্বাধীনতার ইতিহাস সমৃদ্ধ বইগুলো আমরা কর্নারে রাখব। আমাদের তরুণ প্রজন্ম যাতে এসব বই পড়ে সমৃদ্ধ হয়ে নিজেকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করতে পারে।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে হলগুলোতে বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপনের জন্য ছাত্রলীগকে ধন্যবাদ জানান আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু আমাদের আবেগের নাম। বঙ্গবন্ধু কর্নারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ, মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে পারবেন।’

শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘আমি আনন্দবোধ করছি। বঙ্গবন্ধুর সৈনিক বললেই তা হওয়া যায় না। বরং তার আদর্শকে ধারণ করতে হয়। আমি আশা করব, তরুণেরা বঙ্গবন্ধুকে অনুসরণ ও অনুকরণ করবে।’

Copyright © Banglanewsus.com All rights reserved. | Newsphere by AF themes.