‘সম্মেলন হবে’

সিঙ্গাপুরে আগামী ১২ জুন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে ঐতিহাসিক সম্মেলনের প্রস্তুতির ব্যাপারে ইঙ্গিত দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত বৃহস্পতিবার সম্মেলন বাতিলের ঘোষণা দিলেও রোববার তিনি বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার কিম জং উনের সঙ্গে বিশেষ সম্মেলনের পরিকল্পনা চমৎকারভাবে এগিয়ে চলছে।

 

এদিকে, শনিবার সীমান্তের যুদ্ধবিরতি গ্রাম পানমুনজমে অাকস্মিক বৈঠক করেছেন কিম জং উন ও দক্ষিণের প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইন। বৈঠকের পর দক্ষিণের এই প্রেসিডেন্ট বলেছেন, কিম জং উন তাকে (মুন) বলেছেন, কয়েক দশকের দ্বন্দের অবসানে এই আলোচনা হবে একটি ঐতিহাসিক সুযোগ।

 

 

 

উত্তরের রাষ্ট্রীয় সংবাদসংস্থা কেসিএনএ এক প্রতিবেদনে বলেছে, ট্রাম্পের সঙ্গে তার বৈঠকের ব্যাপারে কিম আগের অবস্থানে রয়েছেন। হোয়াইট হাউসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে বৈঠক নিয়ে আমরা খুব ভালোভাবে কাজ করছি। এটা চমৎকারভাবে এগোচ্ছে। এজন্য আমরা সিঙ্গাপুরে ১২ জুনের বৈঠকের দিকে তাকিয়ে রয়েছি। আমরা দেখব, কী ঘটতে যাচ্ছে।

 

গত বৃহস্পতিবার পিয়ংইয়ংয়ের ‘প্রকাশ্য শত্রুতা’র অভিযোগ এনে সিঙ্গাপুরে ১২ জুনের অনুষ্ঠেয় বৈঠক ট্রাম্প বাতিলের ঘোষণা দেয়ার পর কোরীয় দ্বীপে আবারো বিশৃঙ্খলা তৈরির শঙ্কা দেখা দেয়। কিন্তু ২৪ ঘণ্টা না পার হতেই ট্রাম্পের সুর নরম হয়ে আসে। এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, উত্তর কোরিয়ার নেতাদের সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে। এখনো বৈঠক হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

রোববার দক্ষিণের প্রেসিডেন্ট মুন জায় ইন বলেছেন, কোরীয় উপদ্বীপকে পুরোপুরি পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছেন কিম জং উন। অসামরিক এলাকা পানমুনজমে শনিবারের আকস্মিক বৈঠকে কিম তার প্রতিশ্রুতির কথা মুনকে জানান।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *