সিলেটে ২০ বছরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড

সকাল হতে না হতেই প্রখর রোদ আর বেলা বাড়ার সাথে সাথে শুরু হয় দাবদাহ। যা সময়ে সময়ে মাত্রা ছাড়িয়ে যায়। গ্রামাঞ্চলে গাছ গাছালীর কারণে এ তাপমাত্রা কিছুটা সহনীয় হলেও নগরবাসীর কাছে সহ্য করাটা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে। এমন গরমে শ্রমজীবী মানুষের যন্ত্রণা তো আছেই, সেই সাথে শান্তি নেই বাসাবাড়িতে থাকা জনসাধারণের।

 

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বৃহস্পতিবার (১৯ জুলাই) সিলেটের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিলো ৩৮.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা গত ২০ বছরে জুলাই মাসের সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড অতিক্রম করেছে বলে জানিয়েছে সিলেট আবহাওয়া অফিস।

 

 

এর আগে ২০১৪ সালের এপ্রিল মাসে একবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৯.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলেও গত বিশ বছরে জুলাই মাসে আজকের তাপমাত্রাই সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বলে সিলেট ভয়েসকে জানিয়েছেন সিলেট আবহাওয়া অফিসের জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ সাইদ আহমদ চৌধুরী।

 

বৃহস্পতিবার তাপমাত্রা যখন রেকর্ড করছে তখন নগরীর জিন্দাবাজারস্থ এয়ার কন্ডিশনযুক্ত বিভিন্ন বিপণিবিতানের সামনে সামান্য ঠাণ্ডা বাতাসের জন্য মানুষের ভিড় থাকতে দেখা গেছে। রিকশা চালকরা নগরীর বিভিন্ন জায়গায় গাছের ছায়ায় রিকশা থামিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা বিশ্রাম করছেন। বিভিন্ন বিল্ডিং কন্সট্রাকশনের কাজে নিয়োজিত শ্রমিকরা গরমের যন্ত্রণায় অনেকটা অসহ্য হয়ে অলস বসে থাকতেও দেখা গেছে। এমনকি অসহনীয় গরমে নিম্ন আয়ের মানুষরা লেবু, আখসহ বিভিন্ন রকম সরবত পান করে তৃষ্ণা নিবারণের চেষ্টা করছেন।

 

নগরীর আলীয়া মাদ্রাসার পাশে গাছের নিছে বসে আছেন রিকশা চালক কয়সর মিয়া। তিনি সিলেট ভয়েসকে বলেন, ‘গরম সহ্য করার মতো না। এক ট্রিপ মারার পর আর সাহস হচ্ছে না। তাই গাছের নিছে বসে বাঁচি। কিছুক্ষণ পর আরো এক ট্রিপ দিবো ভাবছি।’

 

 

 

তবে চরম গরমে মানুষ যখন অতিষ্ঠ তখন বৃহস্পতিবার রাতে হালকা বৃষ্টি এবং আগামীকাল (শুক্রবার) রাত ৯ টার পর থেকে টানা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

 

আবহাওয়াবিদ সাইদ আহমদ চৌধুরী বলেন, ‘জুন, জুলাই এই দুই মাসে সাধারণত বৃষ্টিপাত হওয়ার কারণে অন্যান্য মাসের তুলনায় গরম কম অনুভূত হয়। কিন্তু সমুদ্রে নিম্নচাপের কারণে আজকের তাপমাত্রা এতো বেশি। সর্বশেষ ২০০৩ সালের জুলাই মাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড গড়েছিলো ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কিন্তু আজকের তাপমাত্রা গত ২০ বছরে জুলাই মাসের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। তবে রাতে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। এমনকি শুক্রবার রাত থেকে টানা বৃষ্টি হতে পারে।’

 

তিনি আরো বলেন, ‘নিম্নচাপ যখন সমুদ্র থেকে ভূমিতে চলে আসে তখন অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত হয় বা ঠাণ্ডা আবহাওয়া থাকে। কিন্তু নিম্নচাপ যখন সমুদ্রে দেখা দেয় তখন গরমের তাপমাত্রা বেড়ে যায়। তাই আজকের তাপমাত্রার কারণ হলো সমুদ্রে নিম্নচাপ। তবে এ তাপমাত্রা দীর্ঘ সময় স্থায়ী হবে না বলেও জানান তিনি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *