সুস্থ থাকতে কোন সময় পানি খাওয়া উচিত?

পানিকে জীবন বলা হলেও কোনও কোনও সময় পানি পান করা একেবারেই ভাল নয়। আসলে ভুল সময় পানি পান করলে দেহের ভেতরে এমন কিছু পরিবর্তন হয়, যার প্রভাবে শরীর খারাপ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

 

পানি শুধু আমাদের তেষ্টা মেটায় না, সেই সঙ্গে শরীরে পানির মাত্রা ঠিক রাখে, খিদে কমায় এবং অতিরিক্ত ক্যালরি বার্ন করে ফেলতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তবে কিছু কিছু সময় পানি খাওয়া মাত্র একেবারে উল্টো ঘটনা ঘটে। যেমন ধরুন খাওয়ার সময় পানি পান একেবারেই স্বাস্থ্যকর অভ্যাস নয়। এমনটা করলে হজমে সহায়ক এনজাইম এবং অ্যাসিডগুলোর কর্মক্ষমতা কমে যায়। ফলে খাবার হজম হতে সমস্যা হয়। দেখা দেয় বদহজমের মতো সমস্যা।

 

 

 

এখানেই শেষ নয়, ভুল সময় পানি খেলে শরীরের আরও নানা ধরনের ক্ষতি হতে পারে। জেনে নিন কোন কোন সময় পানি পান করা উচিত, আর কোন কোন সময় নয়। সাধারণত এমন পরিস্থিতিতে পানি পান করা উচিত নয়, যেমন ধরুন…

 

 

 

১. ভারি খাবার খাওয়া পরে পানি নয়: ভারি খাবার, যেমন ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ অথবা ডিনারের আগে পানি খেতে পারেন, কিন্তু পরে একবারেই নয়। আর খেতে খেতে পানি খাওয়া তো একবারেই চলবে না। প্রসঙ্গত, খাবার খাওয়ার আগে অল্প করে পানি পান চলতে পারে,বেশি করে খেলে কিন্তু খাবার খেতে পারবেন না। সেই সঙ্গে শরীর অস্বস্তি করার মতো লক্ষণও দেখা যেতে পারে।

 

 

 

২. তৃষ্ণা না পেলে পানি পান নয়: শরীর ঠিক রাখতে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি খাওয়া একান্ত প্রয়োজন। কিন্তু মাত্রতিরিক্ত পরিমাণে পানি খেলে শরীরে লবনের ভারসাম্য বিগড়ে গিয়ে নানা ধরনের রোগ হওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়।

 

 

 

৩. ফ্লেবার পানীয় নয়: বিভিন্ন ফ্লেবারের পানি খাওয়া একেবারেই উচিত নয়। এমনটা করলে তেষ্টা মেটার সঙ্গে সঙ্গে খিদেও বেড়ে যায়। তাই তো সব সময় সাধারণ পানি পান করাই ভাল। প্রসঙ্গত, এইসব ফ্লেবার পানি ক্যালরির মাত্রা খুব বেশি থাকে। আর বেশি মাত্রায় ক্যালরি যে শরীরের পক্ষে ভাল নয়, তা তো সবাই জানা। তাই না!

 

৪. প্রস্রাব পরিষ্কার হলে: যখন দেখবেন প্রস্রাব হলুদ হচ্ছে না, তখন বুঝবেন আপনার শরীরের পানির প্রয়োজন নেই। আসলে প্রস্রাব হলুদ হওয়া মানেই শরীরে পানির ঘাটতি দেখা দিয়েছে। কিন্তু পানির ভারসাম্য টিক থাকাকালীন যদি আপনি অনবরত পানি পান করে যান তাহলে উলটো ফল হতে পারে কিন্তু!

Leave a Reply

Your email address will not be published.