সোমবার গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার, ১৩ আগ ২০১৬ ০৮:০৮

সোমবার গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়া যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি:
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪১ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে আগামী সোমবার গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার আগমন উপলক্ষ্যে জেলায় নেওয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ইতিমধ্যে টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধী সৌধ কমপ্লেক্সে শেষ হয়েছে সকল প্রস্তুতি। এ উপলক্ষ্যে ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক কালো তোরনের সড়কে পরিনত হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার-২ এসএম খুরশিদ-উল-আলম স্বাক্ষরিত জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো এক ফ্যাক্স বার্তায় জানাগেছে, ১৫ আগষ্ট সোমবার সকাল ৯টা ১০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকার তেজগাঁও বিমান বন্দর থেকে হেলিকপ্টার যোগে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশ্যে যাত্রা করবেন।
তিনি ৯ টা ৫০ মিনিটে তিনি টুঙ্গিপাড়া উপজেলা কমপ্লেক্স মাঠে নির্মিত হেলিপ্যাডে অবতরণ করবেন। পরে সকাল ১০টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় সেনা-নৌ ও বিমান বাহিনীর একটি চৌকস দল প্রধানমন্ত্রীকে অনার গার্ড প্রদান করবেন। এরপর তিনি ফাতেহাপাঠ এবং বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেবেন।
বেলা ১১ টায় তিনি সমাধী সৌধ মসজিদ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত মিলাদ মাহফিলে অংশ নিবেন। সকল কর্মসূচী শেষে বেলা ১১টা ৪০মিনিটে টুঙ্গিপাড়া হেলিপ্যাড থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করবেন।
সমাধী সৌধ কমপ্লেক্সে শেষ হয়েছে পরিস্কার পরিছন্ন ও উন্নয়নমূলক কাজ :
এদিকে, প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষ্যে টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধী সৌধ কমপ্লেক্সে শেষ হয়েছে পরিস্কার পরিছন্ন ও উন্নয়নমূলক কাজ। সমাধী সৌধের মূল স্তম্ভ, বঙ্গবন্ধু ভবন, মুক্তমঞ্চ, লাইব্রেরী, সংগ্রহ-শালা, ক্যাফেটরিয়া, মসজিদ, বকুলতলা চত্ত্বর এলাকায় চলছে এসব উন্নয়নমূলক কাজ। বিভিন্ন অবকাঠামোতে রংয়ের কাজ ও ফুল গাছের চারা লাগানোর হয়েছে। জেলা প্রশাসন মিলাদ মাহফিলের জন্য তৈরী করেছে বিশালাকৃতির প্যান্ডেল। এখানে কয়েক হাজার লোকের উপস্থিতিতে মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।
তোরণের সড়ক :
প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের গোপালগঞ্জ জেলার বিভিন্ন অংশে এবং অভ্যন্তরীন সড়ক গুলোতে কালো কাপড় দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে তোরণ। এসব সড়কে কয়েক হাজার তোরন নির্মানের ফলে গোটা জেলা সৃষ্টি হয়েছে শোকের আবহ। এছাড়া জেলার বিভিন্ন দোকার ও বাসা-বাড়ীতে টানানো হয়েছে কালো পতাকা ও কালো ব্যানার। বিভিন্ন গাছে ও দেওয়ালেও লাগালো হয়েছে কালো ব্যানার ও ফেস্টুন।
জেলা আওয়ামীলীগ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাসব্যাপী কর্মসূচী :
জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলী খান জানান, টুঙ্গিপাড়ায় রাষ্ট্রীয় কর্মসূচীর পশাপাশি মাসব্যাপী কর্মসূচী হতে নেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে আলোচনা সভা, শ্রদ্ধা নিবেদন, মিলাদ মহফিল। এছাড়া গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় মাসব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে মাসব্যাপী কালো ব্যাচ ধারন, ১৫ আগস্ট কালো পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা এবং ওই দিনই বাদ আসর ক্যাম্পাসের কেন্দ্রীয় মসজিদে মিলাদ মাহফিল, ১৭ আগস্ট আলোচনা সভা। এছাড়া ৩১ আগস্ট টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনকের সমাধী সৌধে পুষ্পমাল্য অর্পণ, ফাতেহাপাঠ ও বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে মাসব্যাপী কর্মসূচি শেষ হবে। এসব কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিনসহ শিক্ষক শিক্ষার্থী অংশ নিবেন।
গোপালগঞ্জ পুলিশ সুপার এসএম এমরান হোসেন জানান, প্রধানমন্ত্রীর টুঙ্গিপাড়া সফরকে কেন্দ্র করে পুরো জেলায় নেওয়া হয়েছে তিন স্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সাদা পোশাকের পুলিশের পাশাপশি গোয়েন্দা পুলিশসহ অন্যান্য আইন শৃংখলারক্ষাকারী বাহিনী নিয়োজিত থাকবে। মহাসড়কসহ বিভিন্ন স্থানে চেক পোষ্ট বসিয়ে বাসসহ সন্দেহভাজনদের করা হচ্ছে তল্লাশী।
জেলা প্রশাসক মো: খলিলুর রহমান জানান, বঙ্গবন্ধুর ৪১তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও শোক দিবসে প্রধানমন্ত্রী টুঙ্গিপাড়ায় শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এজন্য সকল প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু সমাধি সৌধ মসজিদ চত্ত্বরে মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

এই সংবাদটি 1,225 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ