স্পুটনিক–ভি ট্রায়াল শুরু হবে পিয়ারলেসে

প্রকাশিত:শুক্রবার, ১৮ ডিসে ২০২০ ০১:১২

স্পুটনিক–ভি ট্রায়াল শুরু হবে পিয়ারলেসে

নিউজ ডেস্ক, নিউইয়র্ক : রাজ্যে করোনায় সুস্থতার হার ৯৪.‌৫৬ শতাংশ। রাজ্যে একদিনেই করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৭৪৭ জন। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট সুস্থ হওয়ার সংখ্যা ৫ লক্ষ ১ হাজার ৬২৪।
এদিকে পিয়ারলেস হাসপাতালে শুরু হতে চলেছে করোনার ভ্যাকসিন স্পুটনিক–ভি–এর ট্রায়াল। বৃহস্পতিবার তৃতীয় পর্যায়ের এই ট্রায়ালের জন্য ছাড়পত্র দিল হাসপাতালের এথিক্স কমিটি। জানুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে এই ট্রায়াল শুরু হওয়ার কথা বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের ক্লিনিক্যাল রিসার্চ বিভাগের অধিকর্তা ও স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রিন্সিপাল ইনভেস্টিগেটর ডাঃ শুভ্রজ্যোতি ভৌমিক। তিনি বলেন, ‘‌১০০ জন স্বেচ্ছাসেবকের ওপর এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করার পর ৬ মাস নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। শরীরে কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হল কিনা, কিংবা ভ্যাকসিন নেওয়ার পর কতটা কার্যকরী হল, তার ওপর স্টাডি করা হবে। পিয়ারলেস হাসপাতাল, ক্লিনিমেড লাইফ সায়েন্সেস কলকাতা এবং ডাঃ রেড্ডি’‌স ল্যাবরেটরির যৌথ–উদ্যোগে এই ট্রায়াল পর্বর সূচনা হতে চলেছে। স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিনের তৃতীয় পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল পশ্চিমবঙ্গে প্রথম শুরু হতে চলেছে। যা আমাদের কাছে অত্যন্ত গর্বের বিষয়।’‌
এদিকে এদিন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বাঁকুড়ার সাংসদ সুভাষ সরকার। গত দু’‌দিন ধরে তাঁর হালকা জ্বর ছিল। বুধবার তিনি করোনার পরীক্ষা করান। এদিন রিপোর্টে তাঁর করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। আপাতত তিনি বাড়িতেই হোম আইসোলেশনে রয়েছেন। চিকিৎসকদের পরামর্শ মেনে চলছেন। দলীয় কর্মীদের উদ্দেশে তিনি জানিয়েছেন, গত দু’‌দিন যাঁরা তাঁর সংস্পর্শে এসেছিলেন, তাঁরা যেন করোনা পরীক্ষা করিয়ে নেন। করোনা মুক্ত হলেই তিনি ফের দলীয় কাজে নেমে পড়বেন বলে জানিয়েছেন সুভাষবাবু।
অন্যদিকে জলপাইগুড়ির বিশিষ্ট ডেন্টাল সার্জেন ডাঃ অনন্ত রায়ের মৃত্যু হল এদিন। তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। তঁর মৃত্যুতে সমবেদনা জানান চিকিৎসকরা। ইন্ডিয়ান ডেন্টাল অ্যাসোসিয়েশনের উত্তরবঙ্গ শাখার প্রাক্তন সভাপতিও ছিলেন অনন্তবাবু।  এদিন স্বাস্থ্য দপ্তরের বুলেটিনে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ২৪৫ জন। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লক্ষ ৩০ হাজার ৪৫৬। এদিন মৃত্যু হয়েছে ৪৪ জনের। মোট মৃতের সংখ্যা ৯ হাজার ২৩৫। সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যাও অনেক কমে এসেছে। এদিন সংখ্যাটি ছিল ১৯ হাজার ৫৯৭ জন। এদিন কলকাতায় ৫২৪ ও উত্তর ২৪ পরগনায় ৫০৫ জন নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন। যা বিগত কয়েক দিনের তুলনায় অনেকটাই কম।

এই সংবাদটি 1,233 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •