স্পেনে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ০৬ আগ ২০২০ ০২:০৮

স্পেনে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালন

স্পেনে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র শেখ কামাল এর ৭১তম জন্মবার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

দূতাবাসের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, স্থানীয় সময় বুধবার বিকাল ৫টায় মাদ্রিদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের হলরুমে এ অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়।

কোভিড-১৯ এর বর্তমান পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ও যথাযথ স্বাস্থ্য সতর্কতা গ্রহণ করে অনুষ্ঠিত শেখ কামাল এর জন্মবার্ষিকী পালন অনুষ্ঠানে দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার ও দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

দূতাবাসের দ্বিতীয় সচিব তাহসিনা আফরিন শারমিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করা হয়। পরে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ, জাতীয় চার নেতা ও ১৫ আগস্টের ভয়াল কালোরাতে শহীদ বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

শেখ কামালের জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা করেন রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার, মিশন উপপ্রধান হারুণ আল রাশিদ, প্রথম সচিব (শ্রম) মুতাসিমুল ইসলাম। দূতাবাসের কমার্শিয়াল কাউন্সেলর রেদোয়ান আহমেদ শেখ কামাল এর জীবনী নিয়ে ‘শেখ কামাল: স্বাধীন বাংলার সমাজ পরিবর্তনের হারিয়ে যাওয়া নায়ক’ শীর্ষক সংকলন পাঠ করে শোনান।

রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার তার বক্তব্যে বাংলাদেশ সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়ে আরও বলেন, শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালনের মাধ্যমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র, ক্ষণজন্মা তরুণ শেখ কামাল সম্পর্কে আমরা অনেক কিছু জানতে পেরেছি।

রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশে আধুনিক ফুটবলের জনক শেখ কামাল দেশের ফুটবলে রীতিমত বিপ্লব সৃষ্টি করেছিলেন। দূরদর্শিতা আর আধুনিকতার অপূর্ব সমন্বয়ে ফুটবলে তিনি রীতিমত তোলপাড় সৃষ্টি করেছিলেন গোটা উপমহাদেশে।

শেখ কামালকে বাংলাদেশের তরুণ সমাজের একজন আইকন হিসেবে উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার আরো বলেন, সদ্য স্বাধীন একটা দেশের তরুণদের সঠিক পথে পরিচালনার জন্য যা যা করার দরকার, শেখ কামাল তার সবই করার চেষ্টা করেছেন। তিনি ‘স্পন্দন’ নামে স্বাধীন বাংলাদেশে একটি ব্যান্ডদল গঠন করেছিলেন। বাংলাদেশে আধুনিক সংগীতের সূচনাও তিনি করেছিলেন। তিনি ছিলেন সৃজনশীল, সৃষ্টিশীল আসাধারণ মানুষ। বিনয় দিয়ে যে কোন বৈরী পরিবেশকে যে স্বাভাবিক করা যায়, সেটা শেখ কামাল সবসময় দেখিয়েছেন।

আলোচনা শেষে শহীদ শেখ কামাল এর কর্ম ও জীবনী নিয়ে নির্মিত একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদ ও ১৫ আগস্টের ভয়াল কালোরাতে শহীদ বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিশেষ দোয়া করা হয়।

এই সংবাদটি 1,232 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ