হবিগঞ্জের চুনারুঘাট সীমান্ত এলাকায় চোরাই গরু ব্যবসায়ীরা তৎপর প্রশাসন এর নজরদারী কামনা

প্রকাশিত:সোমবার, ২০ জুলা ২০২০ ১২:০৭

হবিগঞ্জের চুনারুঘাট সীমান্ত এলাকায় চোরাই গরু ব্যবসায়ীরা তৎপর প্রশাসন এর নজরদারী কামনা
.
হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ আসন্ন ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে চুনারুঘাট উপজেলার বাল্লা, চিমটি বিল, গুইবিল ও সাতছড়ি সীমান্তের বিভিন্ন এলাকা দিয়ে চোরাই পথে আসছে ভারতীয় গরু। এতে একটি চক্র যেমন হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের অর্থ, তেমনি সরকার হারাচ্ছে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব। সেই সঙ্গে কাঙ্খিত মুনাফা থেকে বঞ্চিত হওয়ার আশঙ্কায় রয়েছেন দেশীয় খামারিরা। তবে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, অবৈধভাবে যাতে গরু প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য সতর্ক রয়েছে প্রশাসন।
অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের ম্যানেজ করে আনা হচ্ছে এসব চোরাই গরু। একটি চক্র কৌশলে সীমান্তের কাঁটা তার পেরিয়ে রাতের অন্ধকারে এসব গরু দেশে এনে সীমান্ত এলাকার বিভিন্ন গ্রামে রাখে। পরে দালালদের মাধ্যমে সীমান্ত ঘেঁষা বেশ কয়েকটি হাটে পাইকারি ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করা হয় চোরাই পথে আনা গরু। চোরাই পথে আসা গরুর দাম কম হওয়ায় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পাইকাররা এসে একটি চক্রের সহযোগিতায় এসব গরু কিনছেন।
সীমান্ত দিয়ে বৈধ পথে যতগুলো ভারতীয় গরু আসে তার চেয়ে কয়েকগুণ বেশি গরু সীমান্ত কাঁটা তার পেরিয়ে দেশে ঢুকছে। এর পেছনে কাজ করছে কয়েকটি প্রভাবশালী চক্র। তারা গরু প্রতি ৫শ থেকে হাজার টাকা পেয়ে থাকেন। চুনারুঘাট ও মাধবপুর সার্কেল এসপি মোঃ নাজিম উদ্দিন জানান, যারা চোরাই পথে গরু আনছে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।
চিমটিবিলের দায়িত্বে থাকা সুবেদার মোঃ আবু তাহের ভূইয়া বলেন, আমরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছি। চোরাই পথে গরু আনলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বেশ কয়েকজন খামারি অভিযোগ করে বলেন, অবৈধভাবে ভারত থেকে আনা গরুতে বাজার সয়লাব হয়ে যাওয়ার কারণে দেশীয় খামারিরা পুঁজি হারিয়ে পথে বসবে। তারা অবৈধ পথে গরুর প্রবেশ বন্ধে সরকারের প্রতি দাবি জানান।

এই সংবাদটি 1,225 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •