হেফাজতের সঙ্গে সরকারের কোনো সমঝোতা হওযার প্রশ্নই উঠে না :: আলাপচারিতায় তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু

আ.ফ.ম. সাঈদ :: তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু দৃঢ়কন্ঠে বললেন, হেফাজতে ইসলাম বা আল্লামা আহমদ শফির সঙ্গে সরকারের কোনো গোপন সমঝোতা নেই, হয়নি এবং হওয়ার কোনো প্রশ্নই উঠে না। এটা সম্পূর্ণ অমূলক অপপ্রচার। গত শনিবার সিলেট সার্কিট হাউসে এ প্রতিদেকের সঙ্গে আলাপচারিতায় তিনি এ কথা বলেন।
হাসানুল হক ইনু বাংলাদেশের অন্যতম আলোচিত রাজনীতিবিদ। একাত্তরের বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বাধীনতা পরবর্তীকালে ছিলেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)-এর প্রথম সারির অন্যতম সংগঠক। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে অনেক জেল-জুলুমের শিকার হয়েছেন। এখন পর্যন্ত জাসদের হাল ধরে আছেন। আওয়ামী লগী সভানেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় সর্বদলীয় জোট গঠিত হয়। যা পরবর্তীকালে পরিণত হয় মহাজোটে। হাসুনুল হক ইনুর নেতৃত্বাধীন জাসদ মূল থেকেই ১৪ দলীয় জোট ও মহাজোটের সঙ্গে আছে। ২০১৩ সাল থেকে তিনি তথ্য মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন।
তাঁকে প্রশ্ন করলাম, আপনি ছাত্রজীবন থেকে দীর্ঘকাল সরকারবিরোধী রাজনীতি করেছেন। বর্তমানে ক্ষমতাসীন সরকারের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে কীভাবে খাপ খাওয়াচ্ছেন? উত্তরে হাসানুল হক ইনু বললেন, বিরোধী দলে থাকাকালে বিভিন্ন দাবিদাওয়ার জন্য আন্দোলন-সংগ্রাম করেছি। এখন মন্ত্রী হিসেবে মানুষের চাওয়া-পাওয়া ও আকাক্সক্ষা পূরণ করতে পারছি। সাধারণ মানুষের আশা-আকাক্সক্ষা পূরণ করাইতো যে-কোনো রাজনীতিকের সার্থকতা।
জামায়াতে ইসলামীকে সরকারিভাবে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হচ্ছে না কেন? এর উত্তরে তথ্যমন্ত্রী বলেন, জামায়াতকে নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে হাইকোর্টে একটি মামলা রয়েছে। যেহেতু এটি বিচারাধীন, তাই সরকার এ সম্পর্কে কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। আদালতের রায়ের পর যা করার, তা করা হবে।
কানাডার একটি ফেডারেল আদালত বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল বলে রায় দিয়েছে। এ সম্পর্কে মন্তব্য জানতে চাইলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া আগুনসন্ত্রাসসহ সকল সন্ত্রাসের উসকানি ও হুকুমদাতা। বিএনপি যে একটি সন্ত্রাসী দল, তা দেশের মানুষ ভালো করেই জানেন। কানাডার আদালতের রায়ের মাধ্যমে বিএনপি সন্ত্রাসী দল বলে বহির্বিশ্বেও স্বীকৃত হলো।
জাসদ একটি আদর্শিক রাজনৈতিক দল হওয়া সত্ত্বেও বার বার দলে ভাঙন হয় কেন এ প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বললেন, ‘জাসদ কখনো ভাঙেনি; বিভিন্ন সময় কিছু লোক দল থেকে চলে গেছেন। কিন্তু লোক দল ছেড়ে চলে গেলে সেটা ভাঙন নয়। তাঁরা কেন দল ছাড়লেন, এর উত্তর তারাই দিতে পারবেন।’ তাঁর কাছে জানতে চেয়েছিলাম যে, কিছুদিন পূর্বেও জাসদের একটি গ্রুপ সৃষ্টি হয়েছে। ওই গ্রুপের সঙ্গে আগামীতে কি ঐক্য হওয়ার সম্ভাবনা আছে? এর উত্তরে জাসদ সভাপতি বলেন, আ.স.ম. আবদুর রব থেকে শুরু করে যাঁরাই দল ছেড়ে চলে গেছেন, তাঁরা চাইলে যে-কোনো সময় জাসদে ফিরে আসতে পারেন। তাঁদের সবার জন্য জাসদের দরজা খোলা আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *