২০১৮ সাল ফেসবুকের বিভীষিকার বছর

২০১৮ সালে বারবার ভুল কারণে শিরোনামে এসেছে ফেসবুক। মার্চ মাসে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা থেকে শুরু হয়েছিল। তারপর ফেসবুকের বিরুদ্ধে আসে একের পর এক অভিযোগ। কখনো হ্যাক হয়েছে গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট, কখনো ফেসবুকের বিরুদ্ধে গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে। ২০১৮ সালে ফেসবুকের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ দেখে নেওয়া যাক।

১। মার্চ মাসে ফেসবুকের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা। ইংল্যান্ডের এই প্রতিষ্ঠান কয়েক কোটি ফেসবুক গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য ব্যবহার করেছিল। এই ঘটনা ২০১৬ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রভাব ফেলেছিল বলে অভিযোগ।

২। সেপ্টেম্বরে ফেসবুক প্রোফাইলে ‘ভিউ অ্যাজ’ ফিচার ব্যবহার করে পাঁচ কোটি ফেসবুক গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছিল।

৩। ইংল্যান্ডের সংসদ ও ফেসবুক মুখপাত্রের কথোপকথনে প্রকাশ্যে আসে যে ফেসবুকের কাছে গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষার কোনো দাম নেই।

৪। সম্প্রতি এক রিপোর্টে জানা গেছে সার্ভারে ভুল থাকার জন্য ৬৯ লাখ ফেসবুক গ্রাহকের ব্যক্তিগত ছবি চুরি করেছে হ্যাকাররা। যেসব ছবি গ্রাহক পোস্ট করেননি সেই ছবিও ডেভেলপারদের হাতে পৌঁছে গিয়েছিল।

৫। বছরের শুরুতে ফেসবুক প্রধান মার্ক জুকারবার্গ ছিলেন বিশ্বের তৃতীয় ধনী ব্যক্তি। নভেম্বরে বিশ্বের সব থেকে ধনী ব্যক্তিদের তালিকায় ছয় নম্বরে আছে জুকারবার্গ।

৬। এ বছরে ফেসবুক ছেড়েছেন হোয়াটসঅ্যাপের ও ইনস্টাগ্রামে প্রতিষ্ঠাতারা। প্রসঙ্গত এ দুটি কোম্পানি কয়েক বছর আগে কিনে নিয়েছিল ফেসবুক।

৭। এসব ঘটনার রেগে গিয়ে সারা বিশ্বের ইন্টারনেট গ্রাহকরা সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘হ্যাশট্যাগডিলিটফেসবুক’ শুরু করেন। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে এই হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে টুইটারে পোস্ট করতে শুরু করেন সারা বিশ্বের ফেসবুক গ্রাহক।

৮। এই বছরই গ্রাহকের ডাটা সুরক্ষিত না রাখার কারণে কয়েক মিলিয়ান ডলার ক্ষতিপূরণ দিতে হয়েছে ফেসবুককে।

৯। এই বছরে গ্রাহকের কাছে অসংখ্য বার ক্ষমা চেয়েছে ফেসবুক। তবে গ্রাহক তাদের ক্ষমা করল কী না তার উত্তর দেবে সময়।