২৭ জুলাইয়ের মধ্যে মিয়ানমারের জবাব চায় আইসিসি

রাখাইন থেকে লাখ লাখ রোহিঙ্গা কেন বাংলাদেশে আসতে বাধ্য হলো- তার ব্যাখ্যা জানাতে মিয়ানমারের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি)। একই সঙ্গে দেশটির ওপর আইসিসির বিচারিক এখতিয়ার প্রসঙ্গেও অভিমত জানাতে বলা হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার নেদারল্যান্ডসের হেগে অবস্থিত আইসিসির বিচারকরা এ আদেশ দেন।

 

আদেশে মিয়ানমারকে আগামী ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা ও অভিমত জানাতে বলা হয়েছে।

 

এর আগে বুধবার হেগে আইসিসির প্রি-ট্রায়াল চেম্বার-১-এ বিচারক ও প্রসিকিউটরদের রুদ্ধদ্বার ‘স্ট্যাটাস কনফারেন্স’ অনুষ্ঠিত হয়। ওই কনফারেন্সের পর বিচারক পিটার কোভাকসের নেতৃত্বাধীন আদালত গতকাল সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে। ওই সিদ্ধান্ত মিয়ানমার সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ, অ্যামিকাস কিউরি, প্রসিকিউটরের দফতর, ভুক্তভোগী ব্যক্তিদের আইনি প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোতে জানাতে বলা হয়েছে এক আদেশে।

 

বাংলাদেশ আইসিসির সদস্য হলেও মিয়ানমার সংস্থাটির সদস্য না হওয়ায় দেশটির ওপর আইসিসির বিচারিক এখতিয়ার নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। তবে মিয়ানমারের কাছে আইসিসির বিচারিক এখতিয়ার বিষয়ে জানতে চাওয়ার পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের গণবিতাড়নের ব্যাখ্যা চাওয়াকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট কূটনীতিকরা।

 

গত বছর ২৫ আগস্ট রাখাইনে নতুন করে সেনা অভিযান শুরুর পর এ পর্যন্ত সাড়ে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। রোহিঙ্গা গণহত্যার জন্য মালয়েশিয়ায় প্রতীকী আদালতে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে দোষী সাব্যস্তও করা হয়েছে।

 

এদিকে বাংলাদেশের মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আইসিসিতে বিচার প্রক্রিয়া আরও সহজ হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *