২ কোটি ৫৬ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নির্মিত বিজয় নগরের ব্রীজ উদ্বোধন

প্রকাশিত:সোমবার, ১৯ অক্টো ২০২০ ১০:১০

২ কোটি ৫৬ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নির্মিত বিজয় নগরের ব্রীজ উদ্বোধন

সুপ্রিয় চাকমা শুভ, রাঙ্গামাটি
বহু প্রতিক্ষার পরে রাঙ্গামাটি শহরের রাজবন বিহার হাসপাতাল হতে বিজয় নগর পর্যন্ত আরসিসি গার্ডার ব্রীজ উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার সকালে ৭৮ মিটার লম্বা ও ৫ মিটার প্রস্তের ২ কোটি ৫৬ লক্ষ টাকা ব্যায়ে নির্মিত ব্রীজের উদ্বোধন করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা (এনডিসি)। উদ্বোধনের শুরুতেই বৌদ্ধদের অন্যতম পবিত্র ত্রিরতœ বন্দনা পাঠ করেন সভ্যমিত্র ভিক্ষু। সর্বপ্রাণীর মঙ্গলকামনা করেই ফিতা কেটে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা। পরে আনন্দ উল্লাসে চেয়ারম্যানকে নিয়ে পুরো বিজয় নগর আনন্দ শোভাযাত্রা করে এলাকাবাসী ।
এক পর্যায়ে আনন্দ শোভাযাত্রা শেষে বিজয় নগর এলাকার কমিনিউটি সেন্টারে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় এলাকার গ্রাম প্রধান সভাপতি নিরোদ চাকমার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা (এনডিসি)। আরো উপস্থিত ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মুজিবুর আলম, উপসচিব মংছেলাইন রাখাইন, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ,এলাকার সাবেক সভাপতি চন্দ্র বিকাশ চাকমা, গণ্যমান্য ব্যক্তি রবিসূর্য্য চাকমাসহ বিজয় নগর এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি ও গ্রামবাসী।
মতবিনিময় সভায় চেয়ারম্যান নব বিক্রম কিশোর ত্রিপুরা (এনডিসি) বলেন, তিন পার্বত্য জেলায় ২৬টি উপজেলা রয়েছে। ৪২২ টি ইউনিয়ন রয়েছে। সেখানে উন্নয়ন বোর্ড অনেক উন্নয়ন কাজ করেছে। তারমধ্যে ২ কোটি ৫৬ লক্ষ টাকা ব্যায়ে বিজয় নগর এলাকায় আরসিসি গার্ডার ব্রীজ নির্মাণ হচ্ছে অন্যতম।
চেয়ারম্যান আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম অনেক বছর হলো অন্ধকারে পড়ে আছে। অন্ধকার থেকে আলোতে ফিরে আসতে বিভিন্ন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড। পার্বত্য চট্টগ্রামের মধ্যে যেখানে বিদ্যুৎ যাওয়ার সম্ভাবনা নেই সেসব জায়গাতে দশ হাজার আটশত পরিবারকে সোলার সিস্টেমের মাধ্যমে সৌরবিদ্যুৎ ব্যবস্থা করে দিবে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড। এছাড়াও চল্লিশ হাজার পরিবারকে সোলার সিস্টেম সৌরবিদ্যুৎ সরবাহ দেওয়ার প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়,আরো আড়াই হাজার কমিনিউটি সেন্টার, বিহার,স্কুল, ছাত্রাবাস, মাদ্রাসা রয়েছে সেসব প্রতিষ্ঠানেও সৌর বিদ্যুৎ দিবে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড।

এই সংবাদটি 1,227 বার পড়া হয়েছে

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ