Day: July 18, 2018

রোটারি ক্লাব অফ টরন্টো ডেনফোর্থের  অভিষেক অনুষ্ঠান

রোটারি ক্লাব অফ টরন্টো ডেনফোর্থের অভিষেক অনুষ্ঠান

রোটারী জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে মানবসেবার মাধ্যমে নিজেদের ইতিবাচক পার্থক্য সৃষ্টি করে চলেছে । পোলিও নির্মূল রোটারির একটি অন্যতম সফল প্রজেক্ট।   গত ২ জুলাই সোমবার বিকেল ৭.৩০ ঘটিকার সময় টরন্টো সিটির ডেনফোর্থের ৯ ডজের রয়েল কানাডিয়ান লিজিয়ন হলে রোটারি ডিস্ট্রিক্ট-৭০৭০ টরোন্টো এর রোটারি ক্লাব অফ টরন্টো ডেনফোর্থের “৩য় ইনস্টলেশন অনুষ্ঠান" এ প্রধান অতিথির বক্ত্যবে রোটারি ডিস্ট্রিক্ট-৭০৭০, কানাডার গভর্নর রোটারিয়ান মেরি লৌ হ্যারিসন উপরোক্ত কথাগুলো বলেন । ডি.জি. হ্যারিসন আরো বলেন রোটারি ক্লাব অফ টরন্টো ডানফোর্থের শিক্ষা বিষয়ক সেমিনার সমূহ কমিউনিটিতে ইতিবাচক প্রভাব বয়ে আনবে, ডেনফোর্থ ক্লাবের আন্তর্জাতিক প্রজেক্টের মধ্যে বাংলাদেশে মায়ানমারের রোহিঙ্গ্যা শরণার্থীদের জন্য বাস্তবায়িত প্রজেক্টগুলো সহ বন্যার্তদের জন্য ত্রাণ বিতরণ প্রকল্প, বিনামূল্যে চুক্ষু শিবির সহ নানান প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্
বেক্সিট শেষ পর্যন্ত নাও হতে পারে, আশঙ্কা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র

বেক্সিট শেষ পর্যন্ত নাও হতে পারে, আশঙ্কা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র

ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে ব্রিটেনের বেরিয়ে আসার পরিকল্পনা শেষ পর্যন্ত কার্যকর নাও হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। রবিবার (১৫ জুলাই) ব্রিটেনের ডেইলি মেইল পত্রিকায় এক নিবন্ধে তিনি এ আশঙ্কার কথা বলেন।   থেরেসা মে লিখেছেন, ‘এ সপ্তাহে দেশের কাছে আমার বার্তা খুবই সাধারণ: কী পরিণাম হতে যাচ্ছে সেদিকে আমাদের চোখ রাখাতে হবে। আমরা যদি একমত হতে না পারি, তাহলে ব্রেক্সিট না হওয়ার মতো ঝুঁকির মধ্যে দিয়ে আলোচনা শেষ করতে হবে।’   আগামী বছরের মার্চে ইইউ থেকে বের হয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে ব্রিটেনের, যা সংক্ষেপে ‘ব্রেক্সিট’ নামে পরিচিত। এই ব্রেক্সিটের ব্যাপারে গত সপ্তাহে একটি পরিকল্পনা তুলে ধরেন থেরেসা মে। সেই পরিকল্পনায় ইইউ থেকে বের হয়ে গেলেও তাদের সঙ্গে বাণিজ্যের ব্যাপারে নমনীয়তা দেখিয়েছেন থেরেসা মে। তার এই পরিকল্পনার প্রতিবাদে দেশটির দুজন জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী প
ভোট পর্যন্ত কারাগারেই থাকতে হচ্ছে নওয়াজকে

ভোট পর্যন্ত কারাগারেই থাকতে হচ্ছে নওয়াজকে

সামনের সপ্তাহেই সাধারণ নির্বাচন পাকিস্তানে। নির্বাচনী প্রচারণার ব্যস্ততা এখন তুঙ্গে। আর সেই ভোট পর্ব শেষ না পর্যন্ত কারাগারেই বন্দি থাকতে হচ্ছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে।   দুর্নীতি মামলায় অভিযুক্ত নওয়াজ গত সপ্তাহ থেকে রাওয়ালপিন্ডির আদিয়ালা জেলে দিন কাটাচ্ছেন। একই মামলায় নওয়াজের মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ এবং তার স্বামী মুহাম্মদ সফদরকেও সাজা ঘোষণা করা হয়েছে। এই রায়ের বিরুদ্ধে বুধবার ইসলামাবাদ হাইকোর্টে আবেদন জানিয়েছিলেন তারা।   কিন্তু সেই আবেদনের শুনানি চলতি মাসের শেষ সপ্তাহ পর্যন্ত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাইকোর্টের দুই সদস্যের বেঞ্চ। যা থেকে এটা স্পষ্ট যে, ২৫ জুলাই অর্থাৎ ভোট পর্যন্ত জেলেই থাকতে হচ্ছে তাদের। নওয়াজকে সামনে রেখে শেষ মুহূর্তে প্রচারে ঝড় তোলার পরিকল্পনা করে রেখেছিল তার দল পিএমএল-এন। আপাতত তা ভেস্তে গেছে।   তবে পাকিস্তানের বেশ কিছু গণমাধ্য
নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক সন্ধানের প্রথম বর্ষপূর্তি

নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক সন্ধানের প্রথম বর্ষপূর্তি

নিউইয়র্ক : প্রথম বর্ষপূর্তি উদযাপন করলো নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত বাংলা সাপ্তাহিক সন্ধান। এ উপলক্ষে শুক্রবার(১২ জুলাই) নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের অয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ডীন চারুশিল্পী মতলুব আলী। সাপ্তাহিক সন্ধানের পক্ষ থেকে স্বাগত বক্তব্য করেন সম্পাদক সনজীবন কুমার এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন সাপ্তাহিক সন্ধানের প্রধান উপদেষ্টা কাজী জামান ও উপদেষ্টা বিমল সরকার। সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন প্রেসিডেন্ট ও সিইও সাইফুল আমিন, ভাইস প্রেসিডেন্ট মনিরুল ইসলাম মনির, বার্তা সম্পাদক মোস্তফা কামাল মামুন ও ব্যবস্থাপনা সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন।     আমন্ত্রিত অতিথিদের সঙ্গে নিয়ে বর্ষপূর্তির কেক কাটেন সাপ্তাহিকটির সম্পাদক সনজীবন কুমার। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন একুশে পদকপ্রাপ্ত সঙ্গীতশিল্পী রথীন্দ্রনাথ রায়, স্বাধীন বাংলা বেতার
নেলসন ম্যান্ডেলার শততম জন্মবার্ষিকী আজ

নেলসন ম্যান্ডেলার শততম জন্মবার্ষিকী আজ

কিংবদন্তি নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার শততম জন্মবার্ষিকী আজ। বেঁচে থাকলে এই মহান নেতা আজ একশ বছরে পা রাখতেন। ১৯১৮ সালে আজকের এই দিনে দক্ষিণ আফ্রিকার ছোট্ট শহর এমভেজোতে জন্ম গ্রহণ করেন জাতিবিদ্বেষবিরোধী আন্দোলনের এই কিংবদন্তি নেতা। দক্ষিণ আফ্রিকার হাউটন রাজ্যের জোহান্সবার্গে ২০১৩ সালের ৫ ডিসেম্বর বিশ্বের লাখ লাখ মানুষকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে যান নেলসন ম্যান্ডেলা।   মৃত্যুর পরেও বিশ্বের মানুষের মনে এখনও অমর হয়ে আছেন এই বিদ্রোহী নেতা। ম্যান্ডেলা ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট। তিনি ১৯৯৪ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে ম্যান্ডেলা আফ্রিকান ন্যাশনাল কংগ্রেসের সশস্ত্র সংগঠন উমখন্তো উই সিজওয়ের নেতা হিসাবে বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন।   ১৯৬২ সালে তাকে দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদী সরকার গ্রেফতার কর
রাজনীতিতে নারীদের পিছনে রেখে টেকসই উন্নয়ন হবে না

রাজনীতিতে নারীদের পিছনে রেখে টেকসই উন্নয়ন হবে না

রাজনীতিতে নারীদের একটি অংশকে পিছনে রেখে কখনোই টেকসই উন্নয়ন হবে না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ।   নির্বাচনের বিধান না রেখে মনোনয়নের মাধ্যমে জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসন আরও ২৫ বছর বহাল রাখার প্রতিবাদে আয়োজিত সমাবেশে বক্তারা এ কথা বলেন। মঙ্গলবার (১৭ জুলাই) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।       সমাবেশে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আয়শা খানম বলেন, বাংলাদেশ বিভিন্ন সূচকে অনেক দূর এগিয়েছে। দেশের নারীরা যেমন হিমালয়ের চূড়ায় উঠেছে তেমনি সবক্ষেত্রে তাদের দক্ষতা ও আন্তরিকতার স্বাক্ষর রেখেছে। কিন্তু সেই নারীরাই আজ রাজনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়ছে। রাজনীতিতে নারীদের একটি অংশকে পিছনে রেখে কখনোই টেকসই উন্নয়ন হবে না।   তিনি আরও বলেন, যে নারী দেশের অর্থনীতিকে সচল রেখেছে, একটি দেশকে অনুন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশের দিকে
১০২ দিনে ৬৪ জেলায় সাইকেলে ভ্রমণ

১০২ দিনে ৬৪ জেলায় সাইকেলে ভ্রমণ

রাজধানীর পল্টন মোড় থেকে প্রেসক্লাবের রাস্তা দিয়ে পুরাতন ধরণের একটি বাইসাইকেল চালিয়ে আসছেন একজন। মাথায় কাপেড়ের তৈরি লাল সবুজের ক্যাপ। সাইকেলের সামনে-পিছনে মিলিয়ে রয়েছে ৩টি ব্যাগ। সামনে-পিছনে লেখা ‘বাংলাদেশর ৬৪ জেলা সাইকেল যোগে ভ্রমণ’।   এমন লেখা আর সাইকেল আরোহীর বেশভূষা দেখে সবার আগ্রহের দৃষ্টি সেই দিকে গিয়েই আটকাচ্ছে। সেই আগ্রহ থেকেই সাইকেল আরোহীর দিকে এগিয়ে যাওয়া। কাছে যেতেই সাইকেলের সামনের লেখাগুলো আরও স্পষ্ট হয়ে উঠলো। সেখানে লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য হিসেবে লেখা আছে- ‘বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয়, সামজিক, জনকল্যাণ বাস্তবায়িত ও নির্মিত স্থান দর্শন এবং দেশের ৬৪ জেলায় বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান সম্পর্কে জানা ও জ্ঞান অর্জন করা’।   আলাপকালে সাইকেল আরোহী জানালেন, ঠাকুরগাঁও জেলার রানীশংকৈল পৌরসভায় তার বাড়ি। পেশায় সবজির দোকানি। দেশের সব জেলায় ঘুরে বেড়ানোর ইচ্ছা অনেক দিনের । যদিও টাকা আর সময়ের
হেরেও বীরের বেশে দেশে ফিরলেন মদ্রিচ-রাকিটিচরা!

হেরেও বীরের বেশে দেশে ফিরলেন মদ্রিচ-রাকিটিচরা!

ফাইনালে ফ্রান্সের কাছে ২-৪ গোলে হার। প্রথমবার বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেও হাতছাড়া হয়েছে বিশ্বজয়ের মুকুট। তবু এতটুকু হতাশা নেই ক্রোয়াটদের। বিশ্বকাপের মঞ্চে দেশকে নতুন উচ্চতায় তুলে ধরা ফুটবলারদের বীরের সম্মানে বরণ করে নিল ক্রোয়েশিয়া।   বিমান থেকে অবতরণ করা দিয়ে শুরু। এরপর হুড খোলা বাসে রাজপথে মদ্রিচদের অভিবাদন গ্রহণ, লক্ষাধিক ক্রোয়েশিয়ান উন্মত্ত চিৎকারে উৎসবমুখর হয়ে ওঠে রাজধানী জাগ্রেবের আকাশ-বাতাস। ফুটবলাররাও সমর্থকদের কৃতজ্ঞতা জানাতে পিছপা হননি। সমর্থকদরে সঙ্গে হাসি-কান্না, নাচে-গানে একাত্ম হয়ে যান মানজুকিচ-রাকিটিচরা।   বিশ্বকাপ জিততে না পারলেও মদ্রিচ-রকিতিচরা দেশে ফেরেন বীরের বেশে। পুরো দেশটাই যেন হয়ে পড়েছিল উৎসবের। জাগ্রেবে মদ্রিচদের স্বাগত জানাতে হাজির হয়েছিল যেন পুরো দেশের সমস্ত জনতা। ৪৫ লাখের দেশটির রাজধানী জাগ্রেব মদ্রিচদের ফেরার পর পরিণত হয়েছিল উৎসবের নগরী