Day: September 23, 2018

‘লড়াইয়ে প্রস্তুত ইরান’

‘লড়াইয়ে প্রস্তুত ইরান’

আঞ্চলিক কয়েকটি ছোট দেশের সহযোগিতায় ইরানের ভেতরে আমেরিকা নিরাপত্তাহীনতা সৃষ্টি করতে চায়; কিন্তু ইরান এসব দেশের সঙ্গে লড়াই করতে প্রস্তুত রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি।   জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দেয়ার জন্য নিউ ইউয়র্কের উদ্দেশ্যে তেহরান ছাড়ার আগে প্রেসিডেন্ট রুহানি রোববার এসব কথা বলেছেন।       এর আগের দিন ইরানের দক্ষিণ-পশ্চিাঞ্চলীয় আহওয়াজ শহরে সামরিক বাহিনীর কুচকাওয়াজে সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়েছে। ওই হামলায় নারী ও শিশুসহ অন্তত ২৫ জন শহীদ হয়েছেন।   হাসান রুহানি বলেন, আমেরিকা চায় ইরানে কোনো নিরাপত্তা থাকবে না। তারা দেশের ভেতরে গোলযোগ সৃষ্টি করতে চায় এবং এমন অবস্থা তৈরি করতে চায় যাতে তারা একদিন এই দেশে ঢুকতে পারে যেমনটি পুরনো দিনগুলোতে ছিল। কিন্তু এখন তা আমেরিকার পক্ষে অসম্ভব।
বিএনপির উচিত শোকরানা নামাজ আদায় করা: শামীম ওসমান

বিএনপির উচিত শোকরানা নামাজ আদায় করা: শামীম ওসমান

সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী হাত বাড়িয়ে দেয়ায় বিএনপি নেতাদের শোকরানা নামাজ আদায়ের অনুরোধ জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ও এমপি একেএম শামীম ওসমান।   তিনি বলেছেন, বিকল্পধারা নামে রাজনৈতিক দল প্রতিষ্ঠা করার অপরাধে বিএনপির হামলা থেকে সেদিন হোন্ডায় চড়ে তিনি পালাতে না পারলে আজ হয়তো বিএনপি তাকে পেত না। বিএনপি এখন সেই বদরুদ্দোজার হাত ধরে উপরে ওঠার চেষ্টা করছে। তাই বিএনপির উচিত বেশি বেশি শোকরানা নামাজ আদায় করা। তবে ভবিষ্যতে বিএনপি আবারও তাকে দৌঁড়ের ওপর রাখবে কিনা সেটাই ভাববার বিষয়।       রোববার জেলা আইনজীবী সমিতির অভিষেক অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শামীম ওসমান এসব কথা বলেন। এর আগে জেলা আইনজীবী সমিতির ডিজিটাল বার ভবনের উদ্বোধন করেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।   উদ্বোধনের পর জেলা বারের সভাপতি অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েলের সভাপতিত্বে অভিষেক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন
ফাইভ-জি মোবাইল নেটওয়ার্কে বিকিরণের ঝুঁকি বেশি?

ফাইভ-জি মোবাইল নেটওয়ার্কে বিকিরণের ঝুঁকি বেশি?

স্মার্টফোন যত শক্তিশালী হয়ে উঠছে, বিকিরণের ক্ষতিকর প্রভাবের আশঙ্কাও তত বাড়ছে৷ ভবিষ্যতে ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক সেই ঝুঁকি আরো বাড়িয়ে দিতে পারে৷ তবে বিজ্ঞানীরা এখনো বিকিরণের প্রভাব নিয়ে অকাট্য প্রমাণ পাননি৷   মোবাইল প্রযুক্তির পঞ্চম প্রজন্মের আরও শক্তিশালী ফাইভ-জি অ্যান্টেনা৷ বর্তমান টাওয়ারেই তা বসানো সম্ভব৷ কিন্তু সেই অ্যান্টেনার কাছে থাকলে মানুষ আরো বিকিরণের শিকার হতে পারে৷ মোবাইল টাওয়ারের বিকিরণের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ আরো বাড়ছে৷ কেউ এমন বড় অ্যান্টেনার কাছে যেতে ভয় পাচ্ছেন, কেউ ক্যান্সারের আশঙ্কা করছেন৷ অনেকে মনে করিয়ে দিচ্ছেন, যে এখনো এ নিয়ে যথেষ্ট গবেষণা হয়নি৷ ফলে অনিশ্চয়তা রয়ে গেছে৷       উন্নত এই মোবাইল নেটওয়ার্ক গ্রাহকদের আরো শক্তিশালী ইন্টারনেট সংযোগ দেবে, যা বর্তমানের তুলনায় ১০০ গুণ দ্রুত৷ দ্রুত সংযোগের কল্যাণে চালকহীন গাড়ি নিয়ন্ত্রণ করা যাবে৷ শিল্প ক্ষেত্রে অনেক কাজ স
৭০ বছরের শত্রুতা ভুলে এক হতে যাচ্ছে দুই কোরিয়া !

৭০ বছরের শত্রুতা ভুলে এক হতে যাচ্ছে দুই কোরিয়া !

দুই কোরিয়ার ফের এক দেশ হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জা ইন। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রথম প্রেসিডেন্ট হিসেবে উত্তর কোরিয়ার জনগণের সামনে দেওয়া ভাষণে তিনি এ কথা বলেন। বুধবার পিয়ংইয়ংয়ের স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় মে ডে স্টেডিয়ামে উত্তর কোরিয়ার বৃহৎ ক্রীড়ানৈপুণ্য প্রদর্শনীর অনুষ্ঠানে দক্ষিণের প্রেসিডেন্ট ভাষণ দেওয়ার এ অভূতপূর্ব সুযোগ পান।   সাত মিনিটের এ ভাষণে মুন বলেন, ‘আমি প্রস্তাব করছি, আমাদের উচিত গত ৭০ বছরের শত্রুতা সম্পূর্ণ শেষ করা এবং ফের এক হওয়ার জন্য বড় ধরনের শান্তির পদক্ষেপ নেওয়া।’ ভাষণে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের প্রসঙ্গও আনেন মুন, পারমাণবিক অস্ত্র ‘স্থায়ীভাবে’ অপসারণের আহ্বান জানান তিনি। তিনদিনের পিয়ংইয়ং সফরে এর আগে মুন উত্তরের নেতা কিম জং উনের সঙ্গে এক ঐতিহাসিক চুক্তিতেও স্বাক্ষর করেছেন। আরিরাং গেমস নামের যে বিশাল ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনীর অনুষ্ঠানে মুন ভাষণ দিয়ে
ইন্দোনেশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণা শুরু

ইন্দোনেশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণা শুরু

ইন্দোনেশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারণা রোববার শুরু হয়েছে। আগামী বছর ১৭ এপ্রিল এ নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে।   এ নির্বাচনী লড়াইয়ে ক্ষমতাসীন জোকো উইদোদোকে সেনাবাহিনীর সাবেক এক জেনারেলের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।       মতামত জরিপে দেখা গেছে, উইদোদো তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী প্রাবোয়ো সুবিয়ান্তোর বিরুদ্ধে বেশ ভালো ব্যবধানে এগিয়ে আছেন।   তবে দ্বিতীয়বারের মতো প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়তে যাওয়া উইদোদোকে অর্থনৈতিক সংকট মোকাবেলা করতে হচ্ছে।   বিশ্বের বৃহত্তম মুসলিম দেশটিতে ১৭ এপ্রিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। নির্বাচনে প্রায় ১৮ কোটি ৬০ লাখ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। নির্বাচনে ভোটারা জাতীয় ও স্থানীয় পার্লামেন্ট সদস্যও বেছে নিবেন। বিশ্লেষকরা বলছেন, ইন্দোনেশিয়ায় অর্থনীতি, বৈষম্য ও ক্রমবর্ধমান অসহিষ্ণুতার বিষয়গুলোই এই প্রচারণায় গুরুত্ব

যুক্তরাষ্ট্রে ফেঁসে যাচ্ছেন গ্রিনকার্ডধারীরা

যুক্তরাষ্ট্রে ট্রাম্প প্রশাসন একটি প্রস্তাবনার ঘোষণা দিয়েছে যার ফলে দেশটিতে স্থায়ী বসবাসের অনুমতি পাওয়ার ক্ষেত্রে যারা ইতোমধ্যেই সরকারি সুবিধা পাওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছেন এমন বিদেশীদের জীবন কঠিন হয়ে পড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।   নতুন প্রস্তাবনা অনুযায়ী যেসব অভিবাসীরা খাদ্য, বাসস্থান বা স্বাস্থ্যসেবা নিচ্ছেন তারা বোঝা হিসেবে বিবেচিত হবেন এবং তাদের গ্রিন কার্ড পাওয়ার আবেদন প্রত্যাখ্যান হতে পারে।       যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত বিদেশীদের জন্য নানা ধরণের সুবিধা বন্ধ কিংবা আরও কঠোর করার জন্য এ ধরণের উদ্যোগ নিচ্ছে ট্রাম্প প্রশাসন।   বার্তা সংস্থা রয়টার্স-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে এর ফলে দেশটিতে বৈধভাবেও যেসব বিদেশী যাবেন বা রয়েছেন তারা খাদ্য সহায়তা, গৃহায়ন কিংবা স্বাস্থ্যসেবা পাওয়াটা কঠিন হয়ে দাঁড়াবে।   হোমল্যান্ড সিকিউরিটির বিভাগের প্রস্তাবিত রেগুলেশন্সে অ

বৃহত্তর ঐক্যের যাত্রা শুরু ৩০ অক্টোবরের মধ্যে নিবার্চনকালীন নিরপেক্ষ সরকার গঠন সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ নিবার্চনের পরিবেশ সৃষ্টি ও তফসিলের আগে সংসদ ভেঙে দিতে হবে কারারুদ্ধ সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার আইনগত ও ন্যায়সঙ্গত অধিকার নিশ্চিত করতে হবে দাবি না মানলে ১ অক্টোবর থেকে সারাদেশে সভা-সমাবেশ শুরু

শনিবার রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়ার মঞ্চের প্রথম সারিতে (ডান থেকে) ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আ স ম আবদুর রব, মিজার্ ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ড. কামাল হোসেন, অধ্যাপক বদরুদ্দৌজা চৌধুরী, ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেন ও ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ Ñযাযাদি বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের নেতাদের একমঞ্চে উঠিয়ে ঘোষিত পঁাচ দফা দাবি আদায়ে আগামী ১ অক্টোবর থেকে সারাদেশে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া। শনিবার মহানগর নাট্যমঞ্চে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নাগরিক সমাবেশ থেকে এ ঘোষণা দেন প্রকৌশলী শেখ মো. শহীদুল্লাহ। সমাবেশের ঘোষণাপত্রে বলা হয়, সন্ত্রাস, গুম, খুন, বিচারবহিভূর্ত হত্যা; হয়রানিমূলক গায়েবি মামলা ও গণগ্রেপ্তার; শান্তিপূণর্ সমাবেশে হামলা এবং নিবির্চারে জেল-জুলুম-নিযার্তনের মাধ্যমে জনগণকে ভোটাধিকারসহ মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও সাংবিধানিক অধিকার
বাংলাদেশের পাটজাত পণ্য রফতানিতে সহায়তার আশ্বাস

বাংলাদেশের পাটজাত পণ্য রফতানিতে সহায়তার আশ্বাস

ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাজারে বাংলাদেশের পাটজাত পণ্য রফতানিতে সহায়তা করবে বলে নেদারল্যান্ড আশ্বস্ত করেছে। গত ২০ সেপ্টেম্বর নেদারল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শেখ মুহম্মদ বেলালের সঙ্গে বৈঠকে নেদারল্যান্ডের সিবিআই-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক হ্যান্স ওবেদিন এই আশ্বাস দেন। সিবিআই উন্নয়নশীল দেশসমূহ থেকে নেদারল্যান্ডে পণ্য আমদানি উন্নয়নে/সহায়তায় ডাচ সরকারের পক্ষে কাজ করে থাকে।    বৈঠকে রাষ্ট্রদূত বেলাল পাট এবং পাটজাত পণ্যের বহুমুখী উন্নয়ন এবং ইইউ বাজারে এই পণ্যের, বিশেষ করে হস্তশিল্প এবং হোম টেক্সটাইল, রফতানিতে সিবিআইয়ের সহযোগিতার আহ্বান জানান। এ প্রেক্ষিতে সিবিআইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আশ্বাস প্রদান করেন যে, পাট এবং পাটজাত পণ্যের পরিবেশ-বান্ধব উপযোগিতা এবং এর সঙ্গে জড়িত নারীদের কর্মসংস্থান বিবেচনায় তারা শিগগিরই এ বিষয়ে একটি প্রকল্প গ্রহণ করবে যাতে পাটজাত পণ্য ইইউ বাজারে অধিক রফতানি হতে পারে।
টার্কি পালনে সফল কুদ্দুস আলম

টার্কি পালনে সফল কুদ্দুস আলম

একজন সংবাদকর্মী হিসেবে সকলেই চিনতো রাজবাড়ি জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার কুদ্দুস আলমকে। সাংবাদিকতায় ও আর্ট পেশায় বেশ নাম ছিল তার। এখন তাকে সবাই চিনে টার্কি কুদ্দুস হিসেবে গোয়ালন্দের গণ্ডি পেরিয়ে তার টার্কি মুরগি রপ্তানি হচ্ছে দেশের বিভিন্ন জেলায়। এই টার্কি মুরগি পালনে সফলতা এনেছেন তিনি।   কুদ্দুস আলম যে প্রতিষ্ঠানের সংবাদকর্মী হিসেবে কাজ করতেন গত বছরের মার্চ মাসে সেই প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ হয়ে যাওয়া এবং হাতে লেখা ব্যানার ফেস্টুনের কাজ না থাকায় ডিজিটাল ব্যানার ফেস্টুন হওয়ার  পর হতাশায় দিন পার করছিলেন তিনি। কি করবেন ? কিভাবে সংসার চালাবেন ? এই নিয়ে দুশ্চিন্তায় দিন পার করছিলেন তিনি।   কুদ্দুস আলমের সফলতা বিষয়ে কথা হয় তার সঙ্গে। তিনি জানান, বড় ছেলে রাজবাড়ি সরকারি কলেজে পড়া শোনা করে পাশাপাশি কম্পিউটারের উপর বেশ দক্ষতা রয়েছে তার। বাবার হতাশা আর দুশ্চিন্তা দেখে ইন্টারনেট ঘাটাঘাটি করতে করতে সন্ধান
রিয়াদ-ইমরুলে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৪৯

রিয়াদ-ইমরুলে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৪৯

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও ইমরুল কায়েসের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২৪৯ রান করেছে বাংলাদেশ। মাত্র ৮৭ রানে পাঁচ উইকেট হারানো বাংলাদেশকে লড়াই করার মতো স্কোর গড়ে দেন এই দুই ব্যাটসম্যান। রিয়াদ আউট হলেও অপরাজিত ছিলেন ইমরুল। রবিবার এশিয়া কাপের সুপার ফোরে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামে বাংলাদেশ। আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে মাত্র ১৮ রানের মধ্যে দুই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়েছিল মাশরাফি বাহিনী। সেখান থেকে লিটন দাস ও মুশফিকুর রহিম দলকে টেনে তুলছিলেন। তবে বেশিদূর যেতে পারেননি। ১৯তম ওভারে এসে পাল্টে যায় চিত্র। ৬ রানের মধ্যে তিন উইকেট হারায় বাংলাদেশ। দলীয় ৮১ রানে রশিদ খানের বলে ক্যাচ তুলে দেন লিটন। এরপর মাঠে নেমে একই ওভারের শেষ বলে রান আউট হয়ে যান সাকিব। দলীয় ৮৭ রানে ২১তম ওভারে এসে ফের রান আউটের শিকার হন মুশফিক। চরম বিপর্যস্ত অবস্থায় ষষ্ঠ উইকেটে জুটি বাঁধেন ইমরুল কায়েস