Fri. Aug 23rd, 2019

BANGLANEWSUS.COM

-ONLINE PORTAL

Afghanistan highway blast kills at least 35 on bus, wounds 27

2 min read

A roadside bomb in Afghanistan on Wednesday killed at least 35 people travelling on a bus, including children, and injured 27, officials said.

 

Security has been deteriorating across Afghanistan this year, with the Taliban and Islamic State fighters mounting near-daily attacks on Afghan forces, government employees and civilians.

 

The blast on the main road linking the provincial capitals of Herat and Kandahar happened in the Ab Khorma area of Farah province, said provincial police spokesman Mohibullah Mohib.

 

“The bomb was freshly planted by the Taliban insurgents to target Afghan and foreign security forces,” he said, adding most of the dead or injured were women and children.

 

No militant group claimed responsibility.

 

Farah is on the border of Iran.

 

A Taliban official denied responsibility and said their fighters were not responsible for planting landmines in the area.

 

“The blast has not been conducted by the Taliban, we are investigating the incident,” said spokesman Zabihullah Mujahid.

 

The blast comes ahead of the resumption of peace talks between US officials and Taliban representatives, who are hoping to strike a deal on a timetable for the withdrawal of foreign forces in exchange for security guarantees by the Taliban.

 

But despite the talks, violence has been relentless.

 

Government and aid officials say the number of people being killed and maimed is rising because of new explosives planted by the Taliban, who now control more territory than at any point since their ouster nearly 18 years ago.

 

According to the United Nations Mine Action Service (UNMAS), more than 1,415 civilians were killed or injured by landmines and leftover ordnance in Afghanistan last year.

 

‘INDISCRIMINATE’

 

A senior official at UNMAS in Kabul said initial reports suggested a bomb with a pressure plate was used in the bus blast in Farah.

 

“These are used by the anti-government groups to target convoys or control population movement. They are indiscriminate and currently inflict hundreds of civilian casualties,” said Mohammad Wakil Jamshidi, deputy programme manager at UNMAS.

 

“As peace negotiations continue, there is scope for the removal of these devices and other explosive ordnance to generate peace-building dividends,” he said.

 

In eastern Nangarhar province, on the border with Pakistan, clashes between the Taliban and Afghan forces on Wednesday caused civilian casualties.

 

Sohrab Qaderi, a member of Nangarhar’s provincial council, said Afghan special forces conducted operations in the Gandumak area, which is under Taliban control.

 

“Two Taliban fighters and five civilians were killed,” said Qaderi.

 

At least 3,812 Afghan civilians were killed or wounded in the first half of 2019 in the war with a big increase in the number of casualties caused by government and foreign forces, the United Nations said in a report published on Tuesday.

 

Afghan and foreign forces said civilians are hurt or killed during ground raids or air strikes as insurgents use them as human shields.

 

Caption: Afghan men receive treatment at a hospital after a bus was hit by a roadside bomb in Herat province, western Afghanistan July 31, 2019. REUTERS

 

আজকের খবর

1 min read

জম্মু-কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান কাশ্মীর সংক্রান্ত কোর গ্রুপ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেছেন। এতে কাশ্মীরের বিষয়টি বিশ্বব্যাপী তুলে ধরতে পাকিস্তানের আরও প্রচেষ্টার আলোচনা হয়েছে। এ বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরইশি, আইন ও বিচারমন্ত্রী ফারোগ নাসিম, কাশ্মীরের সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী তথ্য ও সম্প্রচার ড. ফিরদাউস আশিক আওয়ান এবং অ্যাটর্নি জেনারেল অব পাকিস্তান উপস্থিত ছিলেন। বিশ্বজুড়ে কাশ্মীরের পরিস্থিতি তুলে ধরতে পাকিস্তানের রাজনৈতিক, কূটনৈতিক, আইনি এবং মিডিয়া প্রচেষ্টাকে আরও যুক্ত করার পদক্ষেপে একমত হয়েছেন। এর আগে পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র ড. মোহাম্মদ ফয়সাল এক বিবৃতিতে বলেন, খাদ্য ও ওষুধের ঘাটতি হওয়ায় এ অঞ্চলটি মানবিক সংকটের অপেক্ষায় রয়েছে, যা জনগণের বিশেষত প্রবীণ, মহিলা ও শিশুদের জীবনকে ঝুঁকিপূর্ণ করছে। ভারতীয় বাহিনী দীর্ঘদিন ধরেই উপত্যকায় নৃশংস উপায়ে বিদ্রোহ দমন করে আসছে। ইতিমধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চল মোতায়েনকৃত সেনা হিসেবে অতিরিক্ত সেনা এ অঞ্চলে মোতায়েন করা হয়েছে। এতে কারফিউ আরোপ করা হয়েছে। ৫ আগস্ট ভারত সরকার কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার পর থেকেই যোগাযোগের অচলাবস্থা সৃষ্টি করা হয়েছে; শীর্ষস্থানীয় কাশ্মীরি নেতাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। জিয়ো টিভির প্রতিবেদনে বলা হয়ছে, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ (ইউএনএসসি), মানবাধিকার সংস্থা এবং আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম কাশ্মীরিদের ওপর দেয়া কারফিউ ও কাশ্মীরি জনগণের ভোগান্তি নিরসনের আহ্বান জানিয়েছিল। অধিকৃত কাশ্মীরের অবস্থা বিশ্লেষণ করে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির জন্যও আহ্বান করা হয়েছে। কাশ্মীর কোর গ্রুপও অধিকৃত কাশ্মীরে বসবাসকারী জনগণকে তাদের নিজস্ব অধিকার ফিরিয়ে দেয়া এবং উপত্যকায় আটকেপড়া লোকদের পাকিস্তানের সহায়তার কথা উত্থাপন করা হয়।

Copyright © Banglanewsus.com All rights reserved. | Developed By by Positive it USA.

Developed By Positive itUSA