অর্থনীতি

৫০০ শিক্ষার্থীকে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের বৃত্তি

৫০০ শিক্ষার্থীকে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের বৃত্তি

দেশের বিভিন্ন কলেজ, মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ৫০০ মেধাবী শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিয়েছে শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক। ২০১৮ সালে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের এ বৃত্তি দেয়া হয়।   শনিবার (২৩ মার্চ) রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে আয়োজিত অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের হাতে বৃত্তির চেক তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির।   বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে এসএসসি পর্যায়ে ছাত্র ১৬০ ও ছাত্রী রয়েছে ১৪০ জন। আর এইচএসসি পর্যায়ে ১২০ ছাত্র এবং ৮০ জন ছাত্রী রয়েছে।   শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান আক্কাস উদ্দিন মোল্লার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মো. তৌহিদুর রহমান এবং ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শহীদুল ইসলাম প্রমুখ।      
তামাকের কর বাড়ালে কমবে স্বাস্থ্য ঝুঁকি

তামাকের কর বাড়ালে কমবে স্বাস্থ্য ঝুঁকি

সিগারেট ও তামাক পণ্যের উপর কর বাড়লে একদিকে রাজস্ব বাড়বে অন্যদিকে কমবে তামাক ব্যবহারকারীর সংখ্যা। এতে মানুষের স্বাস্থ্য ঝুঁকিও কমবে। তাই আগামী বাজেটে এ খাতের বিদ্যমান করহার বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে বিশিষ্টজনরা।   শনিবার (২৩ মার্চ) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘কেমন তামাক কর চাই’ শীর্ষক প্রাক বাজেট সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে প্রগতির জন্য জ্ঞান (প্রজ্ঞা) এবং এন্টি টোব্যাকো মিডিয়া অ্যালায়েন্স (আত্মা)।   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও অর্থনীতিবিদ কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সাবেক চেয়ারম্যান ড. নাসির উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের
৬০০ টাকার প্রতিষ্ঠানে ১৫০ জনের কর্মসংস্থান!

৬০০ টাকার প্রতিষ্ঠানে ১৫০ জনের কর্মসংস্থান!

একটা সময় আমাদের সমাজে ধারণা ছিল, নারীরা শুধু ঘরের কাজই করবে। রান্না করা, ঘর গোছানো, ছেলে-মেয়ে লালন-পালনের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল তাদের জগৎ। সংসারের বাইরে উৎপাদনশীল অর্থনীতির মূলধরায় নারীরা সরাসরি সম্পৃক্ত হবেন- এটা অনেকে কল্পনাও করতে পারতেন না।   ‘নারীরা বাইরের কাজ পারবে না, তাদের ঘরের কাজই সামলাতে হবে’- এমন ভ্রান্ত ধারণা যারা মনের মধ্যে পুষে রেখেছিলেন গত দুই দশকে তাদের সেই ধারণা ভুল প্রমাণ করেছেন হাজার হাজার সাহসী নারী। সংখ্যাটি হাজার না বলে লক্ষাধিক বলাই ভালো।   সবক্ষেত্রে নারীরা যে এগিয়ে- সেটা এখন খুবই দৃশ্যমান। সর্বোচ্চ আদালত, সশস্ত্র বাহিনী, ছত্রীসেনা (প্যারাট্রুপার), ট্রেনচালক, ওসি, ডিসি, ইউএনও, সংসদ সদস্য- সবক্ষেত্রে নারীদের এখন জয়জয়কার। প্রায় ২৮ বছর ধরে যে দেশের সরকারপ্রধানের দায়িত্বে নারী, সেই দেশের নারীরা কী করে অর্থনীতির প্রাণশক্তি ব্যবসায় পিছিয়ে থাকবেন? &nb
চেন্নাই রুটে ইউএস-বাংলার হেলথ-হলিডে প্যাকেজ

চেন্নাই রুটে ইউএস-বাংলার হেলথ-হলিডে প্যাকেজ

বাংলাদেশের আকাশ পরিবহনের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ভারতের চেন্নাইয়ে ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। প্রতিষ্ঠানটি তাদের ব্যবসা সম্প্রসারণের ধারাবাহিকতায় আগামী ৩১ মার্চ থেকে এ যাত্রা শুরু করবে। প্রাথমিকভাবে সপ্তাহে তিন দিন এ ফ্লাইট পরিচালিত হবে।   বুধবার (২০ মার্চ) সকালে রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান আসিফ। এ সময় তিনি যাত্রীদের জন্য হেলথ ও হলিডে প্যাকেজ ঘোষণা করেন।   ঢাকা-চট্টগ্রাম-চেন্নাই রুটে ১৬৪ আসনের বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে ফ্লাইট পরিচালিত হবে। বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফটে আটটি বিজনেস ক্লাস ও ১৫৬টি ইকোনমি ক্লাসের আসন রয়েছে।       ঢাকা-চেন্নাই রুটে ওয়ানওয়ের জন্য সর্বনিম্ন ভাড়া ১৫ হাজার ৪৩ টাকা এবং ফিরতি ভাড়া ২৪ হাজার ২২৩ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে
জনপ্রিয় হচ্ছে কনডোমিনিয়াম

জনপ্রিয় হচ্ছে কনডোমিনিয়াম

• মধ্যবিত্তের কাছে কনডোমিনিয়াম জনপ্রিয় হচ্ছে • সাধারণ প্রকল্পের চেয়ে বাড়তি সুযোগ-সুবিধা • প্রকল্পভেদে সুযোগ-সুবিধা কমবেশি হতে পারে • বাড়তি সুবিধার কারণে খরচ বেশি বাড়ে না • জমির দামের কারণে ফ্ল্যাটের মূল্যে ওঠানামা   ঢাকায় বাচ্চাদের খেলার মাঠ হাতে গোনা। হাঁটার জায়গা বলতে কয়েকটি উদ্যান। সাঁতার কাঁটতে যেতে হয় পাঁচ তারকা হোটেল কিংবা ক্লাবে। এই সুযোগ-সুবিধাগুলো হাতের নাগালে নিয়ে আসতে নতুন ধরনের আবাসন প্রকল্প করছে দেশীয় বিভিন্ন আবাসন প্রতিষ্ঠান। কনডোমিনিয়াম নামের সেই প্রকল্পে ব্যায়ামাগার, পারিবারিক ও সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজনের জায়গা, এটিএম বুথ, ফার্মেসি, নিত্যপণ্যের দোকান ইত্যাদি সুবিধা থাকছে।   সাধারণ প্রকল্পের চেয়ে বাড়তি সুযোগ-সুবিধা থাকায় মধ্যবিত্ত মানুষের কাছে তাই কনডোমিনিয়াম প্রকল্প জনপ্রিয় হচ্ছে। ফলে মিরপুর, মোহাম্মদপুর, রামপুরা, মালিবাগ, কাঁচপুরসহ বিভিন্ন এ
সুযোগে বীমার শেয়ার ছাড়ল প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা

সুযোগে বীমার শেয়ার ছাড়ল প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সাধারণ বীমা খাতের কোম্পানি প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স। গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর লেনদেন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম দাঁড়ায় ১৭ টাকা ১০ পয়সা। এরপর অনেকটা টানা বেড়ে চলতি বছরের ১১ ফেব্রুয়ারি কোম্পাটির শেয়ারের দাম ৪৩ টাকা ২০ পয়সায় পৌঁছায়।   অর্থাৎ দেড় মাসেরও কম সময়ে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারের দাম বেড়ে প্রায় তিনগুণ হয়েছে। শুধু প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স নয় ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে তালিকাভুক্ত বেশির ভাগ বীমা কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। দুটি কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়ে হয়েছে চারগুণ।   বীমা কোম্পানিগুলোর শেয়ারের এ দাম বৃদ্ধিকে ‘অস্বাভাবিক’ বলেও উল্লেখ করেছে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) কর্তৃপক্ষ। কিন্তু এরপরও থামেনি দাম বৃদ্ধির প্রবণতা। হঠাৎ করে শেয়ারের এমন ‘অস্বাভাবিক’ দাম বাড়ায় প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের এক
বিদেশি বিনিয়োগ বাড়লেও শেয়ারবাজারে কমেছে

বিদেশি বিনিয়োগ বাড়লেও শেয়ারবাজারে কমেছে

দেশে বিদেশি বিনিয়োগ বাড়লেও কমেছে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ। চলতি (২০১৮-১৯) অর্থবছরের প্রথম সাত মাসে (জুলাই-জানুয়ারি) দেশে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ (এফডিআই) বেড়েছে ১০ দশমিক ৫১ শতাংশ। তবে এ সময়ে শেয়ারবাজারে বিদেশিদের বিনিয়োগ কমেছে ৭৫ দশমিক ৪৯ শতাংশ।   বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক লেনদেনের ভারসাম্যের ওপর করা সর্বশেষ প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।   কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী, ওই সাত মাসে দেশে মোট এফডিআই এসেছে ১৭৮ কোটি ৭০ লাখ ডলার, যা গত অর্থবছরের চেয়ে ১০ দশমিক ৫১ শতাংশ বেশি। মোট এফডিআই থেকে একই সময়ে বিদেশিদের অর্থ প্রত্যাবাসন বাদ দিয়ে নিট এফডিআইর হিসাব করা হয়। চলতি অর্থবছরের জুলাই-জানুয়ারি সময়ে ১০৬ কোটি ৫০ লাখ ডলারের নিট এফডিআই এসেছে। গত অর্থবছরের একই সময়ে যা ছিল ৯৬ কোটি ডলার। এসময়ে নিট এফডিআই বেড়েছে ১০ দশমিক ৯৪ শতাংশ।   জানা গেছে, গত (২০১৭-১৮) অর্থবছরে দেশে নিট
‘সমুদ্র অর্থনীতি বিকাশে উপযুক্ত নীতিমালা প্রয়োজন’

‘সমুদ্র অর্থনীতি বিকাশে উপযুক্ত নীতিমালা প্রয়োজন’

চীনের রাষ্ট্রদূত জ্যাং জো বলেছেন, সমুদ্র অর্থনীতি খাতে বাংলাদেশের সম্ভাবনা উজ্জ্বল। এই খাতের যথাযথ বিকাশে প্রয়োজনীয় নীতিমালা প্রণয়ন এবং প্রাতিষ্ঠানিক ও মানবসম্পদের দক্ষতা উন্নয়ন একান্ত অপরিহার্য।   শনিবার ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) সভাপতি ওসামা তাসীরের সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত জ্যাং জো সাক্ষাৎকালে এসব কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডিসিসিআইয়ের সহ-সভাপতি ওয়াকার আহমেদ চৌধুরী, সহ-সভাপতি ইমরান আহমেদ, পরিচালক আন্দালিব হাসান, আলহাজ দ্বীন মোহাম্মদ, এনামুল হক পাটোয়ারী প্রমুখ।   জ্যাং জো জানান, সম্প্রতি বিদেশি বিনিয়োগকে উৎসাহিত করে নতুন বৈদেশিক বিনিয়োগ নীতিমালা প্রণয়ন করেছে চীন সরকার। এ সুযোগ গ্রহণ করে বাংলাদেশের বিনিয়োগকারীদের চীনে বিনিয়োগের জন্য আহ্বান জানান তিনি।   তিনি আরও বলেন, মানসম্মত পরিবহন ব্যবস্থা নিশ্চিতকল্পে চীন
নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে দেশীয় শিল্প বিকাশের বিকল্প নেই

নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে দেশীয় শিল্প বিকাশের বিকল্প নেই

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, বিশ্বায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা, টেকসই শিল্পায়নের প্রসার ও নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে দেশীয় শিল্প বিকাশের কোনো বিকল্প নেই।   ‘জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা-২০১৯ উপলক্ষে দেয়া এক বাণীতে শুক্রবার এ কথা বলেন তিনি।   ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ফাউন্ডেশনের (এসএমই ফাউন্ডেশন) উদ্যোগে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শনিবার (১৬ মার্চ) থেকে সপ্তাহব্যাপী ‘জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা-২০১৯’ আয়োজিত হচ্ছে জেনে সন্তোষ প্রকাশ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘আমি এসএমই পণ্য মেলায় অংশগ্রহণকারী সকল উদ্যোক্তা, প্রতিষ্ঠানসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।’   তিনি বলেন, বর্তমান সরকার বাংলাদেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত করতে ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসারসহ বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। সরকারের এসব কর্মস
গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির খেসারত সাধারণ মানুষকেই দিতে হবে, বললেন জালানি বিশেষজ্ঞ এম শামসুল আলম

গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির খেসারত সাধারণ মানুষকেই দিতে হবে, বললেন জালানি বিশেষজ্ঞ এম শামসুল আলম

ডেস্ক রিপোর্ট :: গ্যাস বিতরণকারী কোম্পানিগুলো গত ডিসেম্বরে গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দেয় বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন বা বিইআরসিকে। মঙ্গলবার, বুধবার ও বৃহস্পতিবার গ্যাস বিতরণ কোম্পানির প্রস্তাবের ওপর গণশুনানি হয়। এ প্রসঙ্গে ভোক্তা অধিকার সংগঠন কনজিউমার অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশের জ্বালনি উপদেষ্টা এম শামসুল আলম বলেন, বর্তমানে গ্যাসের দাম বৃদ্ধির কোনো যৌক্তিকতা নেই। কোম্পানিগুলো এখনো লাভেই আছে। সরকার তো ব্যবসায়ী না, সরকার জনগণকে সেবা দেবে। কিন্তু এখানে হচ্ছে উল্টোটা । বৃহস্পতিবার জার্মান রেডিও ডয়চে ভেলেকে তিনি বলেন, শেষ পর্যন্ত গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির খেসারত সাধারণ মানুষকেই দিতে হবে। ৮০ থেকে ৯০ ভাগ মানুষ এতে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন আর লাভবান হবেন মাত্র ৫ থেকে ১০ ভাগ মানুষ। তিনি আরো বলেন, গ্যাসের দাম বাড়ালে পরিবহণ, বিদ্যুৎ, পণ্য উৎপাদন থেকে শুরু করে সব খাতে ব্যয় বাড়বে। এই বাড়তি ব্যয়ের প্